ব্রেকিং নিউজ

রাশিয়া থেকে এস-৪০০ ক্ষেপনাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা কিনবে পাকিস্তান

আন্তর্জাতিক ডেস্ক :

ভারতের চিরশত্রু পাকিস্তানের কাছে রাশিয়া কি এস-৪০০ ক্ষেপনাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা বিক্রি করছে? তবে, পাকিস্তানের প্রতিরক্ষামন্ত্রী নিশ্চিত করে বলেছেন যে এই সর্বাধুনিক প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা কেনার জন্য মস্কোর সঙ্গে আলোচনা চালিয়ে যাচ্ছে ইসলামাবাদ।

এস-৪০০ ক্ষেপনাস্ত্র ব্যবস্থা পাকিস্তান ও রাশিয়ার কৌশলগত সম্পর্ক ও সহযোগিতা ব্যাপকভাবে জোরদার করবে। শুধু এস-৪০০ নয়, আগামী দিনে রাশিয়ার কাছ থেকে টি-৯০ ট্যাংক কেনারও পরিকল্পনা আছে পাকিস্তানের। পাশাপাশি অন্যান্য সামরিক সহযোগিতা গ্রহণেরও চেষ্টা চলছে। ভূ-কৌশলগত অবস্থানে থাকা পাকিস্তানের গুরুত্ব সম্পর্কে রাশিয়া সম্যক ওয়াকিফহাল। তাই দক্ষিণ এশিয়ার দেশটিতে সামরিক সহযোগিতা বাড়াতে খুবই আগ্রহী মস্কো। পাকিস্তানের সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের সম্পর্কে টানাপোড়ন তৈরি হওয়ার কারণেও পাকিস্তান-রাশিয়া সম্পর্কটি গুরুত্বপূর্ণ।

যুদ্ধবিধ্বস্ত আফগানিস্তানে শান্তি ও স্থিতিশীলতা ফিরিয়ে আনা প্রশ্নে একই সারিতে পাকিস্তান ও রাশিয়া। বিরোধের অবসান ও শান্তি আলোচনা চালিয়ে যাওয়ার জন্য রাশিয়া নানা প্রচেষ্টা চালাচ্ছে।

রাশিয়ার সঙ্গে প্রতিরক্ষা সম্পর্ক জোরদারে জন্য পাকিস্তানের অনেক প্রচেষ্টার একটি হলো এস-৪০০ ক্ষেপনাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা। যৌথ সামরিক মহড়া চালানো, গোয়েন্দা তথ্য বিনিময় ও সামরিক সরঞ্জার কেনার পরিকল্পনা করেছে দুই দেশ। অতীতে আফগান যুদ্ধের সময় তারা বিরোধী পক্ষে থাকলেও এখন কাছাকাছি আসার চেষ্টা করছে, অভিন্ন আঞ্চলিক ও আন্তর্জাতিক ইস্যুগুলোতে পরস্পরের সঙ্গে কাজ করছে।

পাকিস্তানের ট্রিবিউন পত্রিকার এক প্রতিবেদনে বলা হয়, পাকিস্তান ও রাশিয়া ‘সামরিক সহযোগিতা সম্প্রসারণে আগ্রহী’। রাশিয়ার স্থল বাহিনীর কমান্ডার বলেন: ভূ-কৌশলগতভাবে গুরুত্বপূর্ণ একটি দেশ পাকিস্তান। দুই দেশের সামরিক বাহিনীর মধ্যে বর্তমান দ্বিপাক্ষিক সহযোগিতা সম্প্রসারণ করতে চায় রাশিয়া।

গত কয়েক বছর ধরে পাকিস্তান ও রাশিয়ার সম্পর্ক ক্রমাগত উষ্ণ হচ্ছে। সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে পাকিস্তানের লড়াইয়ের প্রশংসা করে রাশিয়া। অন্যদিকে পাকিস্তান প্রশংসা করে রাশিয়ার সামরিক সহযোগিতার। পাকিস্তান-যুক্তরাষ্ট্রের সম্পর্কে অবনতির পাশাপাশি ভারত-যুক্তরাষ্ট্র সম্পর্কের উন্নতিও রাশিয়া-পাকিস্তানের সম্পর্ক জোরদার করছে। এই অঞ্চলের পাকিস্তানে ভূ-কৌশলগত গুরুত্ব অনুধাবন করতে পারছে রাশিয়া।

Comments

comments