ব্রেকিং নিউজ

যানজট আর জলজটে নাকাল রাজধানীবাসী

প্রতিবেদক:

টানা বৃষ্টিপাতের কারণে রাজধানীর প্রধান সড়ক থেকে অলিগলি পর্যন্ত তলিয়ে যায়। এতে বিভিন্ন সড়কে তীব্র যানজটের সৃষ্টি হয়। দিনভর জলজট আর যানজটে নাকাল হন নগরবাসী। বিশেষ করে কর্মব্যস্ত মানুষের চলাচলে সীমাহীন দুর্ভোগ পোহাতে হয়। উন্নয়ন কাজের কারণে খানাখন্দে ভরা সড়কগুলোয় শ্লথগতিতে পরিবহন চলাচল করে। ঘণ্টার পর ঘণ্টা যানজটে আটকে থেকে অনেককে বৃষ্টিতে ভিজে গন্তব্যের উদ্দেশে রওনা হতে দেখা গেছে। বিশেষ করে রামপুরা থেকে কুড়িল,গুলিস্হান থেকে মহাখালি পর্যন্ত সড়কে ছিল সীমাহীন দুর্ভোগ।

দুই দিন ধরে দেশজুড়েই ভারী বৃষ্টি হচ্ছে। তবে কোথাও কোথাও হচ্ছে অতিভারী বৃষ্টি। বৃষ্টিপাতের এই প্রবণতা থাকবে আরও দুই দিন। আর অতিভারী বৃষ্টি হলে চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগের পাহাড়ি অঞ্চলে আবার ভূমিধসের আশঙ্কা করছে আবহাওয়া অধিদপ্তর।

আবহাওয়া অধিদপ্তর জানায়, সারা দেশের মধ্যে সবচেয়ে বেশি বৃষ্টি হচ্ছে কক্সবাজারে। এ জেলায় অতিভারী বৃষ্টি হচ্ছে। ৮০ মিলিমিটারের বেশি বৃষ্টি হলেই তা অতিভারী হিসেবে গণ্য করে আবহাওয়া অফিস।
পানি উন্নয়ন বোর্ডের বন্যা পূর্বাভাস ও সতর্কীকরণ কেন্দ্র জানায়, সোমবার সকাল ৯টা পর্যন্ত বিগত ২৪ ঘণ্টায় সবচেয়ে বেশি বৃষ্টিপাত হয়েছে লামায়। সেখানে ২৭৩ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে। পাহাড়ে সবচেয়ে বেশি বৃষ্টি হওয়ায় দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চলের পাহাড়ি প্রধান নদীগুলোর পানি বৃদ্ধি পাচ্ছে। এতে চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগের পাহাড়ি অঞ্চলে ভূমিধসের শঙ্কা রয়েছে।
এদিকে দুই দিন ধরে টানা বৃষ্টিপাতের কারণে ঢাকার বেশিরভাগ রাস্তায় সৃষ্টি হয়েছে জলজট। রাস্তাগুলো পানিবন্দি হওয়ার কারণে ঠিক কোথায় গর্ত রয়েছে, তা বোঝা যাচ্ছে না। ধীরগতিতে চলছে গাড়িগুলো। এতে যানজটের ভোগান্তির শিকার হন রাজধানীবাসী। ভারী বর্ষণ আর রাস্তা কাটাকাটিতে সড়কগুলো এখন ছোট ছোট খালে রূপ নিয়েছে।
প্রেসক্লাব থেকে ফার্মগেট পুরো রাস্তায় দেখা গেছে দীর্ঘ যানজট। হাইকোর্ট, পল্টন, মৎস্য ভবন, শাহবাগ, কারওয়ানবাজার ও ফার্মগেট প্রতিটি মোড়েই গাড়ির দীর্ঘ জট। দীর্ঘ সময় জ্যামে বসে থাকা যাত্রীদের চোখেমুখে ছিল বিরক্তির স্পষ্ট ছাপ। ভোগান্তির যানজটের সঙ্গে যুক্ত হয়েছে পরিবহন সংকট। শাহবাগ ও ফার্মগেট মোড়ে শত শত মানুষকে গাড়ির জন্য দাঁড়িয়ে থাকতে দেখা যায়। অনেকেই পরিবহন না পেয়ে বৃষ্টিতে ভিজে হেঁটেই গন্তব্যস্থলে রওনা দিচ্ছেন।
গুলিস্তান থেকে রামপুরা রুটে তীব্র যানজট দেখা গেছে। পুরানা পল্টন, কাকরাইল, মালিবাগ, রামপুরা পার হতে দেড় ঘণ্টারও বেশি লেগে যাচ্ছে। এদিকে এই এলাকার জলাবদ্ধতার কারণে যানজট পরিস্থিতি আরও ভয়াবহ রূপ নিয়েছে?জিপিও, পল্টন মোড়, কাকরাইলে রাস্তার পাশে শত শত মানুষ বৃষ্টির মধ্যে দাঁড়িয়ে আছে যানবাহনের অপেক্ষায়। রামপুরা-বনশ্রী ঢোকার মুখ থেকে শুরু করে ডেমরা পর্যন্ত রাস্তার মাঝে থাকা গর্তে পানি জমে ভয়াবহ শঙ্কার সৃষ্টি করেছে। বৃষ্টি ও যানজটে পল্টন, কাকরাইল, ফকিরাপুল, রাজারবাগ পুলিশলাইনস ও মালিবাগে ভয়াবহ পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে।
ভুক্তভোগীরা জানান, কয়েক দিনের টানা বৃষ্টিতে কদমতলী থানার জুরাইন পোস্তগোলা এলাকার প্রায় সব রাস্তা পানিতে তলিয়ে গেছে। ফলে ভোগান্তিতে দিন পার করেছেন স্থানীয় বাসিন্দারা।
অন্যদিকে গুলশান, বনানী, বাড্ডা, নতুন বাজারসহ প্রগতি সরণিজুড়ে ব্যাপক যানজট লক্ষ করা গেছে। কাজ শেষে ঘরমুখো মানুষ পড়েন দুর্ভোগে। একই অবস্থা কুড়িল বিশ্বরোড থেকে বনানী, মহাখালী, ফার্মগেট, কারওয়ানবাজার, বাংলামোটর, শাহবাগমুখী সড়কে তীব্র যানজটে পথচলা প্রায় থেমে যায়।

Comments

comments