ব্রেকিং নিউজ

চীন-ভারত সীমান্তে উত্তেজনা: ভারতের বাঙ্কার গুড়িয়ে দিয়েছে চীনা সেনাবাহিনী

Ngari1
আন্তর্জাতিক ডেস্ক:
ভারতীয় সেনাবাহিনীর অনেকগুলো বাঙ্কার বুলডোজার গুড়িয়ে দিয়েছে চীনা সেনাবাহিনী। সিকিমের চীন-ভুটান-ভারতের ত্রিদেশীয় সীমান্তে এটি ভেঙে দেয়া হয়েছে বলে ভারতীয় সংবাদ মাধ্যমের খবরে দাবি করা হয়েছে। ভারতীয় সরকারি সূত্রের বরাত দিয়ে খবরটি প্রকাশিত হয়েছে।

খবরে বলা হয়েছে, গত মাসের প্রথম দিকে সিকিমের ডোকা লা এলাকায় এ ঘটনা ঘটেছে। ভারতীয় সূত্রগুলো আজ (বুধবার) জানিয়েছে, এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে সিকিম সীমান্তে উত্তেজনা সৃষ্টি হয়েছে এবং দু দেশের সেনারা মুখোমুখি অবস্থায় চলে গিয়েছিল।জানা যাচ্ছে, ১৯৬২ সালের ভারত-চিন যুদ্ধের পর ১৪ হাজার ফুট উপরে ভারত, ভুটান ও চিন সামান্তে ডোকা লা মালভূমি এলাকায় ইন্দো টিবেটান বর্ডার পুলিশ (আইটিবিপি) মোতায়েন থাকে। আন্তর্জাতিক সীমান্ত থেকে তাদের শিবির ১৫ কিমি ভিতরে। কিন্তু সেনাও ওই চত্বরে নিয়মিত লং রুট পেট্রলিং করে। সম্প্রতি সেনার ইঞ্জিনিয়াররা ডোকা লা (পাস বা গিরিবর্ত্ম) পর্যন্ত সুন্দর রাস্তাও তৈরি করে ফেলেছেন। সেনা সূত্রের দাবি, ডোকা লা ভারতীয় সীমান্তের মধ্যে হলেও চিন ওই এলাকায় রাস্তা নির্মাণের ছক কষেছে। ফলে ওই সীমান্তে টহলদারি বাড়াতে হয়েছে ভারতীয় সেনাকে। ’৬২ যুদ্ধের পর থেকেই ওই অঞ্চলে অনেক অস্থায়ী বাঙ্কার রয়েছে। টহলদারির সময় সেখানে জওয়ানরা বিশ্রাম নেন। মাস দু’য়েক আগে চিনা ফৌজ এসে ডোকা লা-র লালটেন এলাকার বাঙ্কারগুলি ভেঙে দিতে বলে। ভারত তাতে পাত্তা দেয়নি।
আরও পড়ুন: ঢিল পড়তেই গর্জন শুরু ড্রাগনের
সেনা সূত্রের খবর, তার পর থেকেই দুই বাহিনীর মধ্যে তৎপরতা বাড়তে থাকে। একেবারে উত্তরের ‘ফিঙ্গার টিপ’ অঞ্চল ছাড়া সিকিম সীমান্তে আর কোথাও কখনও আগে যা হয়নি। দু’পক্ষের সেনা ডোকা লা অঞ্চলে বার বার সামনাসামনি চলে আসতে থাকায় উত্তেজনা বাড়ে। ভারত সীমান্তে প্রবেশ করে চিন কেন রাস্তা তৈরি করছে, তা নিয়েও প্রতিবাদ জানায় ফোর্ট উইলিয়াম। ৬ জুন এ নিয়ে ফ্ল্যাগ মিটিংও হয়।
কিন্তু তার দু’দিন পরেই ৮ জুন চিনা সেনা ভারতের ভূখণ্ডে ঢুকে দু’টি বাঙ্কার গুঁড়িয়ে দেয়।

সিকিম সীমান্তে ভারত অনেক নতুন নতুন বাঙ্কার তৈরির পাশাপাশি পুরনো বাঙ্কারগুলোর মান উন্নত করেছে। চীনা গণমুক্তি ফৌজ বা পিএলএ’র বিরুদ্ধে অবস্থান জোরদারে এ পদক্ষেপ নিয়েছে ভারত। কিন্তু ভারতের এ পদক্ষেপকে ভালো চোখে দেখেনি পিএলএ।

ভারত নিয়ন্ত্রিত জম্মু ও কাশ্মির থেকে অরুণাচল প্রদেশ পর্যন্ত বিস্তৃত ৩,৪৮৮ কিলোমিটার সীমান্তের মধ্যে ২২০ কিলোমিটার পড়েছে সিকিমে।

Comments

comments