ব্রেকিং নিউজ

বাংলাদেশে হিন্দুদের সংখ্যা বাড়ছে, কমছে মুসলমান

hindu

প্রতিবেদক:
বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরোর এক জরীপে বলা হচ্ছে বাংলাদেশে হিন্দুর সংখ্যা বেড়েছে। কমেছে মুসলমানের সংখ্যা। বুধবার বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে বিবিএস আয়োজিত জন্ম-মৃত্যু জরিপ প্রতিবেদনে এসব তথ্য প্রকাশ করা হয়েছে।
পরিসংখ্যানে বলা হচ্ছে, দেশের মানুষের গড় আয়ু বেড়েছে। পাঁচ বছর আগে এই গড় আয়ু যেখানে ৬৯ বছর ছিল, ২০১৫ তে তা বেড়ে ৭০.৯ শতাংশে দাঁড়িয়েছে। অন্যদিকে পুরুষদের দেরিতে বিয়ে করার প্রবনতা দেখা দিয়েছে।
অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন পরিকল্পনামন্ত্রি আ হ ম মুস্তফা কামাল। বক্তব্য রাখেন প্রতিমন্ত্রী এমএ মান্নান, তথ্য ও পরিসংখ্যান সচিব মোজাম্মেল হক। আর প্রতিবেদন তুলে ধরেন প্রকল্প পরিচালক একেএম আশরাফুল হক।
বিবিএসের জরীপে বলা হয়েছে, ২০১৫ সালে মোট ২০১২টি নমুনা এলাকা থেকে নেয়া তথ্যের উপর ভিত্তি করে প্রতিবেদনটি প্রস্তুত করা হয়েছে। জরীপ অনুযায়ী ২০১৫ সালের ১ জুলাই দেশে জনসংখ্যা হলো ১৫ কোটি ৮৯ লাখ। যা ২০১৪ তে ছিল ১৫ কোটি ৪৭ লাখ। তবে নির্ভরশীলতার হার কমেছে।
২০১১ সালের ৫৭ শতাংশ থেকে ১৫ সালে হয়েছে ৫৫। বেড়েছে জনসংখ্যার ঘনত্ব। প্রতি বর্গকিলোমিটারে ঘনত্ব বেড়েছে ৫ বছরে ৫৬ জন। বিবিএস বলছে, গড় আয়ুর মধ্যে মহিলাদের আয়ু বেড়েছে বেশি। তাদের গত ৫ বছরে আয়ু বেড়েছে ১ বছর ৯ মাস। ফলে মহিলাদের আয়ু এখন ৭২ বছর।
আর পুরুষের ৬৯.৪ বছর। এদিকে পুরুষের গড় বিয়ে বয়স ২৪.৯ বছর থেকে বেড়ে ২৬.৪ বছরে দাঁড়িয়েছে। মেয়েদের ১৮.৭ বছর। ২০১১ সালে দেশে মুসলমানের হার ছিল ৮৮.৮ শতাংশ। যা কমে ২০১৫ তে দাঁড়িয়েছে ৮৮.২ শতাংশে। আর ২০১৪ সালে যেখানে হিন্দুর হার ছিল ৯.৯ শতাংশ, তা এখন হয়েছে ১০.৭ শতাংশে।২০১১ সালের আদমশুমারিতে যে তথ্য আছে সেটিকে সবচেয়ে বেশি গ্রহণযোগ্য হিসেবে ধরতে হবে। আদমশুমারির মাধ্যমে পরিপূর্ণ গণনা উঠে আসে বলে তিনি উল্লেখ করেন।
২০১১ সালের আদমশুমারির তথ্য অনুযায়ী বাংলাদেশে মোট জনসংখ্যার মধ্যে হিন্দু জনগোষ্ঠি ৮.৫ শতাংশ এবং মুসলমানদের অনুপাত ৯০.৪ শতাংশ।আর ২০১৪ সালে যেখানে হিন্দুর হার ছিল ৯.৯ শতাংশ, তা এখন হয়েছে ১০.৭ শতাংশে।

Comments

comments