ব্রেকিং নিউজ

আন্তর্জাতিক আদালতে ভারতীয় গোয়েন্দার ফাঁসি স্থগিত: এই রায় গ্রহণযোগ্য নয়-পাকিস্তান

jadab

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:
পাকিস্তানে আটক কথিত ভারতীয় গোয়েন্দা কুলভূষণ যাদবের প্রাণদণ্ডের আদেশ আন্তর্জাতিক আদালতে স্থগিত হওয়ায় ভারতের পক্ষ থেকে সন্তোষ প্রকাশ করা হয়েছে। অন্যদিকে, পাকিস্তান বলছে আদালতের রায় গ্রহণযোগ্য নয়, তারা আন্তর্জাতিক আদালত থেকে এ সংক্রান্ত কোনো চিঠি পায়নি।

ভারত আজ আন্তর্জাতিক আদালতের রায়কে স্বাগত জানিয়েছে। মৃত্যুদণ্ডে স্থগিতাদেশের কথা জানতে পেরে ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী সুষমা স্বরাজ আজ (বুধবার) সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম টুইটার বার্তায় বলেন, ‘আন্তর্জাতিক আদালতে ভারতের হয়ে এই মামলাটি লড়ছেন সিনিয়র আইনজীবী হরিশ সালভে। তার থেকে স্থগিতাদেশের নির্দেশের খবর শোনার পরই কুলভূষণের মায়ের সঙ্গে কথা হয়েছে। তিনি এখন অনেকটাই নিশ্চিন্ত।’

অন্যদিকে, পাকিস্তান কর্মকর্তারা বলছেন, যেকোনো প্রকার চিঠি ইস্যু করার আগে আন্তর্জাতিক আদালতকে অন্য পক্ষের কথা শুনতে হবে। পাকিস্তান সরকারের পররাষ্ট্র বিষয়ক উপদেষ্টা সারতাজ আজিজ এ নিয়ে আজ এক সংবাদ সম্মেলন করেন।

তিনি বলেন,‘পাকিস্তান আন্তর্জাতিক আদালতের এক্তিয়ারের বিষয়টি খতিয়ে দেখছে। পররাষ্ট্রমন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে ওই ইস্যুতে ২/১ দিনের মধ্যে বিবৃতি দেয়া হবে।’

অন্য এক খবরে বলা হয়েছে, সারতাজ আজিজ বলেছেন, ‘আন্তর্জাতিক আদালতের উপরে পাকিস্তান সরকারের পূর্ণ আস্থা রয়েছে। আমরা ওই মামলায় রিভিউ পিটিশন দাখিল করতে যাচ্ছি।’

এর আগে অবশ্য পাক পররাষ্ট্রসচিব তহমিনা জাঞ্জুয়া ওই ইস্যুতে তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করেন। আন্তর্জাতিক আদালত এ ব্যাপারে সীমালঙ্ঘন করেছে বলে তিনি মন্তব্য করেন। তাদের আচরণ গ্রহণযোগ্য নয় বলেও তিনি মন্তব্য করেন। কিন্তু পরে তিনি এ সংক্রান্ত টুইটার বার্তা মুছে ফেলেন।

এরপরেই পাক কর্তৃপক্ষ সুর নরম করে আন্তর্জাতিক আদালতের উপরে তাদের পূর্ণ আস্থা রয়েছে বলে জানায়।  

গত বছর ৩ মার্চ কুলভূষণ যাদবকে বেলুচিস্তান থেকে গ্রেপ্তার করেছিল পাকিস্তানের নিরাপত্তা বাহিনী। পাকিস্তানের অভিযোগ, ভারতীয় নৌবাহিনীর কর্মী কুলভূষণ ভারতের গুপ্তচর সংস্থা ‘র’-এর হয়ে কাজ করছিলেন। ইরান থেকে তিনি পাকিস্তানে ঢুকেছিলেন। ভারত অবশ্য বলেছে, কুলভূষণকে ইরান থেকে অপহরণ করা হয়েছে।

এর আগে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিং বলেন, ‘কুলভূষণকে রক্ষা করতে যা যা করণীয় ভারত সরকারের পক্ষ থেকে তা করা হবে।’ তিনি প্রশ্ন তুলে বলেন, কুলভূষণের কাছে বৈধ ভারতীয় পাসপোর্ট ছিল, সেজন্য পাকিস্তান কীভাবে তাকে ভারতীয় গুপ্তচর আখ্যা দিতে পারে?

পররাষ্ট্র সচিব এস জয়শংকর বলেন, ‘কুলভূষণের বিরুদ্ধে কোনো ‘বিশ্বাসযোগ্য প্রমাণ’ নেই। সুতরাং তার বিরুদ্ধে বিচারের যে প্রক্রিয়া চালানো হয়েছে, তা ‘প্রসহন’ ছাড়া আর কিছু নয়।’  

অন্যদিকে, পাকিস্তানের দাবি, বেলুচিস্তান এবং করাচিতে কুলভূষণ নাশকতা ছড়িয়েছিলেন। চলতি বছরের এপ্রিলে ওই অভিযোগের ভিত্তিতে পাক সামরিক আদালত তার মৃত্যুদণ্ডের নির্দেশ দেয়। ওই ইস্যুতে পাকিস্তান অনড় মনোভাব নেয়ায় ভারত আন্তর্জাতিক আদালতের দ্বারস্থ হয়।

Comments

comments