ব্রেকিং নিউজ

গাজীপুরে দ্বিতীয় শ্রেণির ছাত্রীকে ধর্ষণের পর হত্যা

দ্য বিডি এক্সপ্রেস ডটকমঃ

গাজীপুরে আট বছরের শিশুকে ধর্ষণের পর হত্যা করা হয়েছে। হত্যার পর তার লাশ ফেলে দেয়া হয় সেপটিক ট্যাংকে। গত রবিবার রাত ১১টার দিকে বাড়ির পাশের ওই সেপটিক ট্যাংক থেকে তার লাশ উদ্ধার করা হয়।

নিহত মায়া আক্তার মিলি গাজীপুর মহানগরীর দাখিনখান পূর্বপাড়া এলাকার রাজমিস্ত্রী কামাল হোসেন তফদারের মেয়ে। স্থানীয় হায়দরাবাদ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে দ্বিতীয় শ্রেণিতে পড়ত সে।

ঘটনার পর থেকে ধর্ষক রহমতউল্লাহ মনা (১৮) পলাতক রয়েছে। এ ঘটনায় পুলিশ ধর্ষকের মা ফজিলত বেগম ফাতেমা (৪০) ও বোন নাসিমা আক্তারকে (২২) গ্রেফতার করেছে।

খবর পেয়ে জয়দেবপুর থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে সেপটিক ট্যাংকের ভেতর থেকে হাত, পা ও গলায় রশি বাঁধা অবস্থায় মিলির লাশ উদ্ধার করে। পরে ময়না তদন্তের জন্য লাশ শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠায়। লাশ উদ্ধারকালে শরীরের নিম্নাংশে কোনো কাপড় ছিল না।

জয়দেবপুর থানার পূবাইল পুলিশ ক্যাম্পের ইনচার্জ এসআই মোবারক হোসেন জানান, নিহতের গোপনাঙ্গ দিয়ে রক্ত ঝরছিলো। তা থেকে ধারণা করা হচ্ছে হত্যার আগে তাকে ধর্ষণ করা হয়েছে। তার গালে ও শরীরের বিভিন্ন স্থানে কামড়ের চিহ্ন রয়েছে।

Comments

comments