ব্রেকিং নিউজ

সোনাইমুড়ীতে ১৬ কেন্দ্র স্থগিত, প্রিজাইডিং’সহ আহত-২৫

up1-thebdexpress

এম আর রিয়াদ নোয়খালী থেকেঃ
জোরপূর্বক ব্যালটে সীল, হামলা-সংঘর্ষ, গোলা-গুলিসহ বিচ্ছিন্ন ঘটনার মধ্য দিয়ে নোয়াখালীর সোনাইমুড়ী উপজেলার ১০টি ইউনিয়নের ভোটগ্রহণ শেষ হয়েছে। এর মধ্যে ৮টি ইউনিয়নের ১৬টি কেন্দ্রের ভোটগ্রহণ স্থগিত করেছে স্ব স্ব প্রিজাইডিং অফিসারগণ। এসব ঘটনায় একজন গুলিবিদ্ধ এবং ককটেল হামলায় একজন সহকারী প্রিজাইডিং অফিসারসহ অন্তত ২৫ জন আহত হয়েছে। পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে পুলিশ কয়েকটি কেন্দ্রে শর্টগানের গুলি ছুঁড়েছে।

শনিবার সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত বিভিন্ন কেন্দ্রে এসব ঘটনা ঘটে। আহতরা হচ্ছেন- নদনা ইউনিয়নের দেবপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী প্রিজাইডিং অফিসার বাবুল চন্দ্র আচার্য্য, গুলিবিদ্ধ মেম্বারপ্রার্থীর সমর্থক নোমান (২২) ও ককেয়কজন মেম্বার প্রার্থীসহ ২৫ জন। অপর আহতদের নাম পরিচয় জানা যায়নি।

সরেজমিনে নির্বাচন কেন্দ্রগুলো পরিদর্শন করে জানা যায়, সকাল ৮টা থেকে উপজেলার ১০টি ইউনিয়নের একযোগে ভোটগ্রহণ শুরু হয়। ভোটগ্রহণের পর থেকে কেন্দ্রে ভোটারদের উপস্থিতি তেমন একটা লক্ষ্য করা যায়নি। তবে বেলা বাড়ার সাথে সাথে ভোটার উপস্থিতি কিছুটা বাড়লেও বিভিন্ন কেন্দ্রে বিশৃঙ্খলা, ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া ও সংঘর্ষের ঘটনা ঘটলে ভোটারের উপস্থিতি কমে যায়।

সকাল থেকে বিভিন্ন কেন্দ্রে হামলা, ব্যালট পেপার ও সিল ছিনতাই, জোরপূর্বক ব্যালটে সীল মারা এবং কেন্দ্রে বিশৃঙ্খলার অভিযোগে জয়াগ ইউনিয়নে ১টি, নদনা ইউনিয়নে ৩টি, চাষিরহাট ইউনিয়নে ১টি, অম্বরনগর ইউনিয়নে ২টি, বজরা ইউনিয়নে ২টি, সোনাপুর ইউনিয়নে ২টি এবং দেওটি ইউনিয়নে ১টি’সহ ১৬টি কেন্দ্রের ভোট গ্রহণ স্থগিত করেন স্ব স্ব প্রিজাইডিং অফিসারগণ। 

এদিকে, দেবপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সকাল সোয়া ১১টার দিকে কেন্দ্রে একদল দূর্বৃত্ত হামলা চালায়। এসময় তারা কেন্দ্রের বিভিন্ন কেন্দ্রে হামলা ও ককটেল বিষ্ফোরণ ঘটায়। এতে ওই কেন্দ্রের সহকারি প্রিজাইডিং অফিসার বাবুল চন্দ্র আচার্য্য ককটেল হামলায় আহত হয়েছেন। দুপুর ১২টার দিকে নানদিয়াপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রের বাহিরে দু’পক্ষের সংঘর্ষ ও গোলা-গুলির ঘটনা ঘটে। এতে নোমান নামের একজন গুলিবিদ্ধ হয়েছে।

এছাড়াও বেশির ভাগ কেন্দ্রের মেম্বার প্রার্থীদের মধ্যে দফায় দফায় ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া ও সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে আহত হয়েছে অন্তত ২৩ জন।

এদিকে দুপুর ২টার দিকে এক প্রেসবিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে কেন্দ্র দখল ও সরকার দলীয় একতরফা প্রহসনমূলক নির্বাচনের অভিযোগ এনে ভোট বর্জন করেছে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ’এর ৮জন চেয়ারম্যান প্রার্থী।

জেলা সিনিয়র নির্বাচন কর্মকর্তা মনির হোসেন বলেন, বিছিন্ন কয়েকটি ঘটনা ছাড়া শান্তিপূর্ণভাবে ভোট গ্রহণ শেষ হয়েছে। যেসব কেন্দ্রে ভোট গ্রহণের পরিবেশ ছিল না সেগুলো স্ব স্ব প্রিজাইডিং অফিসার ভোট গ্রহণ স্থগিত করেছেন।

Comments

comments