ব্রেকিং নিউজ

জনতা ব্যাংকের ২৫০ কোটি টাকা আত্মসাতকারী গ্রেফতার

dudok-thebdexpress

দ্য বিডি এক্সপ্রেস ডেস্কঃ

ভুয়া এলসির বিপরীতে জনতা ব্যাংক থেকে ২৫০ কোটি টাকা আত্মসাতের ঘটনায় দায়ের করা মামলায় ঢাকা ট্রেডিং হাউসের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. টিপু সুলতানকে বুধবার বিকেলে খুলনার প্রতিষ্ঠান থেকে গ্রেফতার করেছে দুদক। গ্রেফতারের পর বুধবার বিকেলে তাকে খুলনা মুখ্য মহানগর হাকিমের আদালতের মাধ্যমে খুলনা জেলা কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা মো. সামছুল আলম জানান, ঢাকা থেকে আগত দুদকের তিন সদস্যের একটি দল খুলনা রেলিগেটের ঢাকা ট্রেডিং হাউস থেকে তাকে আটক করে দুদক খুলনা কার্যালয়ে নিয়ে আসে। পরে তাকে গ্রেফতার দেখিয়ে আদালতে পাঠানো হয়। শুনানির পর আদালত মো. টিপু সুলতানকে জেলা কারাগারে পাঠান।

দুর্নীতি দমন কমিশনের উপ-পরিচালক মো. সামছুল আলম বাদী হয়ে গত ১৮ ফেব্রুয়ারি ঢাকার মতিঝিল থানায় মো. টিপু সুলতানকে প্রধান আসামি করে চার অবসরপ্রাপ্ত ব্যাংক কর্মকর্তার নামে মামলা করেন। মতিঝিল থানা এই মামলাটি গ্রহণ করে দুদকের কাছে তদন্তের দায়িত্ব দেয়। মামলার অভিযোগপত্রে বলা হয়েছে, ‘আসামিরা পরস্পর যোগসাজশে নামসর্বস্ব প্রতিষ্ঠানের অনুকূলে ২৭২ কোটি ৮৮ হাজার টাকার ভুয়া এলসির বিপরীতে এই টাকার ঋণ মঞ্জুর করেন। এখানে তার মার্জিন বাবদ ১৬ কোটি ৭২ টাকা টাকা জমা দিয়ে পুরা টাকাটাই তারা আত্মসাৎ করেছেন।’

এই মামলায় অন্য আসামিরা হলেন— জনতা ব্যাংক লিমিটেডের (দিলকুশা শাখা) সিনিয়র এক্সিকিউটিভ অফিসার মো. মসিউর রহমান, একই ব্যাংকের সাবেক ম্যানেজার (আমদানি) এ এস এম জহুরুল ইসলাম, সাবেক এজিএম শামীম আহমেদ খান। মো. সামছুল আলম জানান, ঢাকা ট্রেডিং হাউস এখন খুলনায় পাট রফতানিকারক হিসেবে ব্যবসা করছে। ঢাকার জনতা ব্যাংকের ঋণ খেলাপি থাকলেও খুলনার দৌলতপুর রূপালী ব্যাংক থেকে ইতোমধ্যে ১১০ কোটি টাকার ঋণ নিয়েছেন। তিনি বলেন, ‘গুদামের পাট দেখিয়ে যে টাকার ঋণ নিয়েছেন বাস্তবে তার গোডাউনে সেই টাকার পাট নেই।’

Comments

comments