ব্রেকিং নিউজ

১৯ বিরাঙ্গণাকে সম্মামনা

Picture of the Muktijudda

নিজস্ব প্রতিনিধিঃ

১৯ জন বীর নারী মুক্তিযোদ্ধাকে (বীরাঙ্গণা) আর্থিক সহায়তাসহ সম্মাননা প্রদান করেছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশন (ডুয়া)।

মঙ্গলবার আন্তর্জাতিক নারী দিবস উপলক্ষে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় নবাব নওয়াব আলী চৌধুরী সিনেট ভবনের অ্যালামনাই ফ্লোরে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে এ আর্থিক সহায়তা ও সম্মাননা প্রদান করা হয়।

এতে ১৯ জন বীর নারী মুক্তিযোদ্ধাদের (বীরাঙ্গনা) প্রত্যেককে নগদ ৫০ হাজার টাকা এবং মূল্যবান বস্ত্র সামগ্রী প্রদান করা হয়।

অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ও অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশনের প্রধান পৃষ্ঠপোষক অধ্যাপক ড. আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক।

অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি রকীবউদ্দীন আহমেদ-এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক এমপি এবং বিশেষ অতিথি ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রো-উপাচার্য (শিক্ষা) অধ্যাপক ড. নাসরীন আহমাদ।

মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী বলেন, মুক্তিযুদ্ধে আমাদের ২ লক্ষাধিক মা-বোন সর্বোচ্চ আত্মত্যাগ স্বীকার করেছেন। তাঁদের জন্য আমরা সকলেই গর্বিত। তাঁদের সম্মান, মর্যাদা ও অধিকার প্রতিষ্ঠায় বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নিরলস কাজ করে যাচ্ছেন এবং অসাধারণ অবদান রেখে চলছেন।

অধ্যাপক ড. আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক বলেন, আমাদের মহান মুক্তিযুদ্ধে নারীরা নানাভাবে নির্যাতিত ও নিপিড়ীত হয়ে যে আত্মত্যাগ করেছেন, তা পৃথিবীর ইতিহাসে বিরল। এই বীর মুক্তিযোদ্ধা নারীদের পূর্ণবাসন, সাহায্য-সহযোগিতা ও সম্মাননা প্রদান করা আমাদের নৈতিক, সামাজিক এবং রাষ্ট্রীয় দায়িত্ব। তাঁদেরকে বহু আগেই এই সম্মাননা দেওয়া উঁচিৎ ছিল কিন্তু মুক্তিযুদ্ধের চেতনা বিরোধী শক্তি দীর্ঘদিন ক্ষমতায় থাকায় তাঁদেরকে প্রাপ্য সম্মাননা দেওয়া সম্ভব হয়নি।

অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের অধ্যাপক ড. শেখ আবদুস সালাম, অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশনের মহাসচিব দেওয়ান রাশিদুল হাসান, এডভোকেট মোল্লা মো: আবু কায়সার, মুক্তিযোদ্ধা শেখ ফাতেমা আলী (বীরাঙ্গনা) এবং মুক্তিযোদ্ধা লাইলী বেগম (বীরাঙ্গনা)।

১৯ জন বীর নারী মুক্তিযোদ্ধাকে (বীরাঙ্গণা) আর্থিক সহায়তাসহ সম্মাননা প্রদান করেছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশন (ডুয়া)।

মঙ্গলবার আন্তর্জাতিক নারী দিবস উপলক্ষে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় নবাব নওয়াব আলী চৌধুরী সিনেট ভবনের অ্যালামনাই ফ্লোরে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে এ আর্থিক সহায়তা ও সম্মাননা প্রদান করা হয়।

এতে ১৯ জন বীর নারী মুক্তিযোদ্ধাদের (বীরাঙ্গনা) প্রত্যেককে নগদ ৫০ হাজার টাকা এবং মূল্যবান বস্ত্র সামগ্রী প্রদান করা হয়।

অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ও অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশনের প্রধান পৃষ্ঠপোষক অধ্যাপক ড. আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক।

অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি রকীবউদ্দীন আহমেদ-এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক এমপি এবং বিশেষ অতিথি ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রো-উপাচার্য (শিক্ষা) অধ্যাপক ড. নাসরীন আহমাদ।

মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী বলেন, মুক্তিযুদ্ধে আমাদের ২ লক্ষাধিক মা-বোন সর্বোচ্চ আত্মত্যাগ স্বীকার করেছেন। তাঁদের জন্য আমরা সকলেই গর্বিত। তাঁদের সম্মান, মর্যাদা ও অধিকার প্রতিষ্ঠায় বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নিরলস কাজ করে যাচ্ছেন এবং অসাধারণ অবদান রেখে চলছেন।

অধ্যাপক ড. আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক বলেন, আমাদের মহান মুক্তিযুদ্ধে নারীরা নানাভাবে নির্যাতিত ও নিপিড়ীত হয়ে যে আত্মত্যাগ করেছেন, তা পৃথিবীর ইতিহাসে বিরল। এই বীর মুক্তিযোদ্ধা নারীদের পূর্ণবাসন, সাহায্য-সহযোগিতা ও সম্মাননা প্রদান করা আমাদের নৈতিক, সামাজিক এবং রাষ্ট্রীয় দায়িত্ব। তাঁদেরকে বহু আগেই এই সম্মাননা দেওয়া উঁচিৎ ছিল কিন্তু মুক্তিযুদ্ধের চেতনা বিরোধী শক্তি দীর্ঘদিন ক্ষমতায় থাকায় তাঁদেরকে প্রাপ্য সম্মাননা দেওয়া সম্ভব হয়নি।

অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের অধ্যাপক ড. শেখ আবদুস সালাম, অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশনের মহাসচিব দেওয়ান রাশিদুল হাসান, এডভোকেট মোল্লা মো: আবু কায়সার, মুক্তিযোদ্ধা শেখ ফাতেমা আলী (বীরাঙ্গনা) এবং মুক্তিযোদ্ধা লাইলী বেগম (বীরাঙ্গনা)।

Comments

comments