ব্রেকিং নিউজ

জামায়াতের হরতাল; চাঁদপুরে ট্রেনে ককটেল নিক্ষেপ

explosive-thebdexpress

প্রতিবেদকঃ

জামায়াতে ইসলামীর আমির মতিউর রহমান নিজামীর ফাঁসির রায় বহাল রাখার প্রতিবাদে দলটির ডাকা সারাদেশে সকাল-সন্ধ্যা শান্তিপূর্ণ হরতাল আজ বৃহস্পতিবার ভোর থেকে চলছে। তবে, জামায়াতের পক্ষ থেকে সকাল কয়টা থেকে সন্ধ্যা কয়টা পর্যন্ত এই হরতাল চলবে তা নির্দিষ্ট করে বলা হয়নি।

এর আগে, জামায়াতের ভারপ্রাপ্ত আমির মকবুল আহমাদ ও ভারপ্রাপ্ত সেক্রেটারি জেনারেল ডা. শফিকুর রহমান বুধবার সকালে এ কর্মসূচির ঘোষণা করেন। এদিকে, হরতালকে কেন্দ্র করে যে কোনো ধরনের নাশকতা, অপ্রীতিকর পরিস্থিতি মোকাবিলায় প্রস্তুত রয়েছে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী। রাজধানীর গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনা ও এলাকায় বাড়তি নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে।

হরতালের আগের রাতে চাঁদপুরে  ট্রেনে ককটেল নিক্ষেপের ঘটনা ঘটেছে। বুধবার রাত পৌনে নয়টার দিকে চাঁদপুর-লাকসাম রেলপথের চিতোষী-শাহরাস্তির মধ্যবর্তী উনকিলায় আন্তঃনগর মেঘনা এক্সপ্রেস ট্রেনে দুর্বৃত্তরা  ককটেল নিক্ষেপ করে। কিন্তু চালকের বুদ্ধিমত্তায় অল্পের জন্য বেঁচে যায় ট্রেনের সহস্রাধিক যাত্রী।

এ ব্যাপারে চাঁদপুর রেলওয়ে থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করা হয়েছে।
ট্রেনের চালক মো. সাহাবুদ্দীন ও সহকারী চালক মহিউদ্দিন জানান, চাঁদপুর-চট্টগ্রাম রেলপথে চলাচলকারী মেঘনা এক্সপ্রেস ট্রেন লাকসাম-চিতোষী থেকে ছেড়ে চাঁদপুরের দিকে আসছিল। রাত পৌনে ৯টার দিকে ১৫নং ব্রিজ সংলগ্ন উনকিলা এলাকায় আসলে দুর্বৃত্তরা ট্রেন লক্ষ্য করে  ককটেল নিক্ষেপ করে।
এ সময় তারা ইঞ্জিনের টেবিলে আগুন জ্বলতে দেখেন। তাৎক্ষণিক চালক ট্রেন না থামিয়ে পানি নিক্ষেপ করলে আগুন নিভে যায়। ফলে বড় ধরনের দুর্ঘটনা থেকে রক্ষা পায় ট্রেনটি। এতে করে ট্রেনে থাকা সহস্রাধিক যাত্রী প্রাণে বেঁচে যায়।
ওই ট্রেনের বরিশালগামী যাত্রী মো. জিয়া ও মো. সোহাগ জানান, হঠাৎ করে বিকট শব্দ হয়। এ সময় যাত্রীরা আতঙ্কিত হয়ে ট্রেনের মধ্যে ছুটোছুটি করতে থাকে।

অনেকের ধারণা করে হয়তো বড় কোনো দুর্ঘটনা ঘটেছে। মেহের স্টেশনে থামার পর জানা যায় ট্রেনে ককটেল হামলা হয়েছিল।
এ ব্যাপারে রেলওয়ে জিআরপি থানার ওসি জানান, ট্রেনটি চাঁদপুর আসার পর চালকের সঙ্গে কথা বলি এবং ঘটনা সম্পর্কে জানি। তবে ট্রেনের তেমন কোনো ক্ষতি হয়নি। ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Comments

comments