ব্রেকিং নিউজ

শুক্রবার শুরু ইজতেমা; লাখো মুসল্লি বরণে প্রস্তুত তুরাগ তীর

বিশ্ব ইজতেমা-দ্য বিডি এক্সপ্রেস.কম

দ্য বিডি এক্সপ্রেস.কম।।

উৎসবমুখর পরিবেশে আগামী শুক্রবার বাদ ফজর আম’বয়ানের মধ্যদিয়ে শুরু হবে বিশ্ব ইজতেমা। বুধবার থেকে মুসল্লীদের আসা শুরু হয়েছে। ১০ জানুয়ারি রবিবার আখেরী মোনাজাতের মধ্য দিয়ে শেষ হবে প্রথম ধাপ। চারদিন বিরতি দিয়ে ১৫ জানুয়ারি শুক্রবার থেকে শুরু হবে বিশ্ব ইজতেমার দ্বিতীয় ধাপ। ১৭ জানুয়ারি আখেরী মোনাজাতের মধ্যে দিয়ে ২০১৬ সালের বিশ্ব ইজতেমা সমাপ্ত হবে। ১৯৬৬ সাল থেকে নিয়মিত ইজতেমা অনুষ্ঠিত হয়ে আসছে। মুসল্লীদের চাপ কমাতে ২০১১ সাল থেকে দুই পর্বে ইজতেমা অনুষ্ঠিত হয়ে আসছে। এ বছরই ৪ভাগে ভাগ করে প্রথম ধাপে ১৭ জেলা, দ্বিতীয় ধাপে ১৬ জেলার মুসল্লীরা অংশগ্রহণ করবেন। স্বাধীনতার পর জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান টঙ্গীর বিভিন্ন মৌজায় বিশ্ব ইজতেমার জন্য ১৬০ একর ভূমি বরাদ্দ দেন। বর্তমান আওয়ামী লীগ সরকারের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা  ইজতেমাস্থলের ব্যাপক উন্নয়ন সাধন করেন। প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ নির্দেশে ইজতেমাস্থলের ব্যাপক উন্নয়নে রাস্তা-ঘাট, অসমতল ভূমি সমতল করণ,  ৮ হাজার পাকা পায়খানা, পাকা গোসলখানা, ওযুখানা, বিদেশী মুসল্ল­ীদের জন্য প্রয়:প্রণালী, রান্না-বান্না, থাকার জন্য স্থায়ী পাকা টিনসেড ঘর নির্মাণ, ইজতেমা সড়ক নির্মাণ, ড্রেন-কালভার্ট নির্মাণ ও অন্যান্য উন্নয়নের কাজ সমাপ্ত হয়েছে।
গাজীপুর জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আলহাজ্ব এড. আ.ক.ম মোজাম্মেল হক এমপি, যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রনালয়ে সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি ও স্থানীয় সংসদ সদস্য আলহাজ্ব মোঃ জাহিদ আহসান রাসেল সার্বক্ষনিক দায়িত্ব পালন করছেন। তারা জানান, বিশ্ব ইজতেমায় আগত মুসল্লী­দের সেবায় সরকারি বেসরকারি প্রতিষ্ঠান নানা ধরনের সেবা প্রদানের মাধ্যমে প্রতিবছরের  ন্যায় এবারো সকল ধরনের প্রস্তুতি গ্রহণ করা হয়েছে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এ পর্যন্ত প্রায় ২০০ কোটি টাকা ইজতেমার জন্য দিয়েছেন।
মুসল্লীদের সুবিধার্থে আজ ৬ জানুয়ারী থেকে বিআরটিসি ২২৮টি স্পেশাল বাস সার্ভিস ১৯ জানুয়ারী পর্যন্ত চলবে।
বিআরটিসির একটি সূত্র জানায়, ৬ থেকে ১৯ জানুয়ারী পর্যন্ত চলাচলকারী স্পেশাল বাসের মধ্যে ৩টি বাস বিদেশী মুসল্লীদের জন্য রিজার্ভ থাকবে। আব্দুল্লাহপুর-মতিঝিল ভায়া ইজতেমাস্থল ২৯টি বাস, শিববাড়ী-মতিঝিল ভায়া ইজতেমাস্থল ১৩টি, টঙ্গী-মতিঝিল ভায়া ইজতেমাস্থল ১৭টি, গাজীপুর-চৌরাস্তা, মতিঝিল-ভায়া ইজতেমাস্থল ৬টি, গাবতলী-গাজীপুর ভায়া ইজতেমাস্থল ৫টি, গাবতলী-মহাখালী ভায়া ইজতেমাস্থল ৩৫টি, গাজীপুর-মতিঝিল ভায়া ইজতেমাস্থল ২৫টি, মতিঝিল-বাইপাল ভায়া ইজতেমাস্থল আরো ২০টি বাস চলবে। এছাড়া ঢাকা-নরসিংদী ভায়া ইজতেমাস্থল ২০টি, চট্টগ্রাম রোড-সাভার রোড ২০টি, ঢাকা-কুমিল্লা রোডে চলবে আরো ১৫টি বাস।
অপরদিকে বিশ্ব ইজতেমায় আগত মুসল্লীদের যাতায়াতে সুবিধার্থে বাংলাদেশ রেলওয়ে ২৮টি বিশেষ ট্রেন পরিচালনা করবে। এ ছাড়া সকল আন্তঃনগর, মেইল এক্সপ্রেস ও লোকাল ট্রেনে অতিরিক্ত ২০টি কোচ সংযোজন করা হয়েছে। কমিউটার, ঢাকা-টঙ্গী কমিউটার, ঢাকা-জয়দেবপুর কমিউটার, ঢাকা-কুমিল্লা কমিউটার আখেরী মোনাজাতের দিন বন্ধ থাকবে। ইতিমধ্যে সেনাবাহিনীর ইঞ্জিনিয়ার ব্রিগেড এর সদস্যরা তুরাগ নদীর  ৯টি স্থানে (পন্টুন) ভাসমান সেতু নির্মানের কাজ সমাপ্ত করেছে।

Comments

comments