ব্রেকিং নিউজ

আজ বৃহত্তর নোয়াখালী মুক্ত দিবস

noakhali-thebdexpress

দ্য বিডি এক্সপ্রেস.কম

৭ডিসেম্বর শনিবার নোয়াখালী পাক হানাদার মুক্ত । '৭১'র এই দিনে মুক্তিযোদ্ধারা সম্মুখ সমরে পাক হানাদার বাহিনীকে পরাজিত করে নোয়াখালীর মাটিতে স্বাধীন বাংলাদেশের পতাকা উড়িয়েছিল।

দীর্ঘ নয় মাসের রক্তক্ষয়ী স্বাধীনতা সংগ্রামে হানাদার বাহিনী ও তাদের দোসর রাজাকার-আলবদর বাহিনীর নৃশংশ বর্বরতায়  নোয়াখালী শহরে স্বাধীনতাকামী বাঙ্গালীরা বিজয়ের নিশান উড়িয়ে উল্লাস করে।

এদিন সকালে বৃহত্তর নোয়াখালী জেলা বিএলএফ প্রধান মাহমুদুর রহমান বেলায়েত ও সি জোনের কমান্ডার ক্যাপ্টেন মোশারেফ হোসেন সুবেদার লুৎফুর রহমান মোঃ মোমিন উল্যার নেতৃত্বে জেলা শহর মাইজদীকে শত্রুমুক্ত করার জন্য আক্রমণ করে মুক্তিযোদ্ধারা। একযোগে তারা তিনটি রাজাকার ক্যাম্প দখল করে। মুক্তিযোদ্ধাদের আক্রমনে পাক বাহিনী পালিয়ে পায়।

নোয়াখালী হানাদারমুক্ত হওয়ার কারনে ঢাকা-চট্টগ্রামের সাথে সড়ক ও রেল পথে হানাদার বাহিনীর যোগাযোগ ব্যবস্থা সম্পূর্ণ রূপে বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। এতে করে বাংলাদেশ স্বাধীনতার সূর্য উদিত হওয়ার বিষয়টি সময়ের ব্যাপার হয়ে দাঁড়িয়েছিল।

মুক্তিযুদ্ধ চলাকালে হানাদার বাহিনী ও তাদের দোসররা চৌমুহানি টেকনিকেল সেন্টার, গোপালপুর বাজার,বগাদিয়ার যুদ্ধ,রামপুর,মোহম্মদপুর গনহত্যা, করপাড়া,পানিওয়ালা,করপাড়া সোনাইমুড়ি যুদ্ধ, সহ আরও কয়েকটি স্থানে স্বাধীনতাকামী নিরীহ মানুষকে নির্মম ভাবে নির্যাতন চালিয়ে হত্যা করেছিল। শহীদদের স্মৃতির ভাস্কর হিসেবে জেলার বিভিন্ন  জায়গায় শহীদদের নামের তালিকা সহ মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতি স্তম্ভ নির্মান করা  হয়েচে।

নোয়াখালী পিটিআই ও বেগমগঞ্জ সরকারি পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ে শক্তিশালী ঘাঁটি গড়ে পাকিস্থানি সেনাবাহিনী। তাদের সঙ্গে এদেশীয় রাজাকাররা মিলে শুরু করে লুটপাট।  কোম্পানীগঞ্জের বামনীর যুদ্ধ, বেগমগঞ্জের বগাদিয়াসহ অসংখ্য যুদ্ধহয় মুক্তিযোদ্ধাদের সঙ্গে পাকবাহিনীর। শহীদ হয় শত শত মুক্তিযোদ্ধা। শুধুমাত্র সোনাপুরের শ্রীপুরে তারা হত্যা করেছিল শতাধিক ব্যক্তিকে। 

'৭১'র এই দিনে মুক্তিযোদ্ধারা সম্মুখ সমরে পাক হানাদার বাহিনী পরাজিত করে নোয়াখালির মাটিতে স্বাধীন বাংলাদেশের পতাকা উড়িয়েছিল।

দীর্ঘ নয় মাসের রক্তক্ষয়ী স্বাধীনতা সংগ্রামে হানাদার বাহিনী ও তাদের দোসর রাজাকার-আলবদর বাহিনীর নৃশংশ বর্বরতায় ক্ষত-বিক্ষত নোয়াখালি শহরে স্বাধীনতাকামী বাঙ্গালীরা বিজয়ের নিশান উড়িয়ে উল্লাস করে।

 

 

Comments

comments