ব্রেকিং নিউজ

সোহরাওয়ার্দীর ৫২তম মৃতু্যুবার্ষিকী; যথাসময়ে আসতে না পারায় ২০ ঢাবি শিক্ষার্থী লাঞ্চিত

sohorardi-thebdexpress

ঢাবি থেকে ইয়ামিন:

হোসেন শহীদ সোহরাওয়ার্দীর ৫২তম মৃতু্যুবার্ষিকী উপলক্ষ্যে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের তিন নেতার মাজারে তার সমাধিতে ফুল দিতে রুম থেকে আসতে দেরী করায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় মুক্তিযোদ্ধা জিয়াউর রহমান হলের ২০ শিক্ষার্থীকে বেদড়ক মারধর করছে হল শাখা ছাত্রলীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক বনী আমিন মোল্লা ও তাঁর নেতারা। 

শনিবার সকাল ৮টার দিকে হলের গেস্ট রুমে এ ঘটনা ঘটে। পরে তাদেরকে ঢামেক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। আহতদের একজনের অবস্থা আশঙ্খাজনক বলে জানা গেছে।

আহতরা হলেন-আশিক (সমাজবিজ্ঞান,২য় বর্ষ), আলমগীর (বাংলা, ২য় বর্ষ), লিটন (দর্শন, ২য় বর্ষ), জুয়েল (ইংরেজি, ২য় বর্ষ), ফুয়াদ ও ফিরোজ (ম্যানেজম্যান্ট এন্ড ইফরম্যাশন সিস্টেম, ২য় বর্ষ), কামাল (আইইআর, ২বর্ষ), শাহাদত ও সাগর (ফিনান্স, ২য় বর্ষ) এবং মোশাররফ (১ম বর্ষ)। বাকিদের নাম জানা যায় নি। এদের মধ্যে আশিকের অবস্থা আশঙ্খাজনক। এরা সবাই জিয়া হল শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক গ্রুপের কর্মী।

হলশাখা ছাত্রলীগ ও প্রত্যক্ষসূত্রে জানা যায়, শনিবার সকাল ৭টার দিকে হোসেন শহীদ সোহরাওয়ার্দীর ৫২তম মৃতু্যুবার্ষিকী উপলক্ষ্যে তিন নেতার মাজারে ফুল দিতে আসার জন্য হল শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদকের নেতাকর্মীদের গেস্ট রুমে ডাকে হল শাখা ছাত্রলীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক বনী আমিন মোল্লা। এসময় কিছু কর্মী আসতে দেরি করায় গেস্টরুমে ক্ষিপ্ত হয়ে যায় বনী আমিন মোল্লা। পরে দেরী করে গেস্টরুমে উপস্থিত হওয়া কর্মীদের উপর চড়াও হয় বনী আমিন মোল্লা। এসময় বনী আমিন মোল্লা ও তার নেতারা দেশীয় অস্ত্র-রড়-হকস্টিক দিয়ে এলোপাতেড়ি এদের সবাইকে গেস্টরুমে মারতে থাকে। এদের মধ্যে আশিক নামের একজনের মাথায় লাগে এবং গেস্টরুমে অজ্ঞান হয়ে যায়। পরে আহতদের ঢামেক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। 

এ বিষয়ে জানতে হলের ভারপ্রাপ্ত সাধারন সম্পাদক বনি আমিন মোল্লাকে একাধিকবার ফোন দিলেও তিনি ফোন রিসিভ করেন নি। 


 

Comments

comments