ব্রেকিং নিউজ

নবম শ্রেণীর ছাত্রীকে ধর্ষণের পর হত্যা মামলায় ৪ জনের ফাঁসি

champa-thebdexpress

প্রতিবেদক।।

ফরিদপুরের কাশিমাবাদ গ্রামের নবম শ্রেণীর স্কুল পড়ুয়া ছাত্রী চম্পাকে ধর্ষণের পর হত্যার অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় চারজনকে মৃত্যুদণ্ড ও ২০,০০০ টাকা করে জরিমানা করেছে আদালত।

মঙ্গলবার ঢাকার দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনাল-৪ এর বিচারক আবদুর রহমান এ রায় দেন।

ফাঁসির দণ্ডপ্রাপ্ত আসামিরা হলেন- মো. শামিম মণ্ডল, মো. বাবুল হোসেন ওরফে রাজিব হোসেন ওরফে বাবু হোসেন মাতুব্বর, জাহিদুল হাসান ওরফে জাহিদ হাসান এবং আকাশ মণ্ডল। এদের মধ্যে বাবুল হোসেনক ওরফে রাজিব হোসেন ওরফে বাবু হোসেন মাতুব্বর ও আকাশ মণ্ডল পলাতক রয়েছেন।
 
ফরিদপুর জেলার কানাইপুর গ্রামে ২০১২ সালের ১৩ ডিসেম্বর এই ন্যাক্কারজনক ঘটনাটি সংঘটিত হয়। মামলার অভিযোগ থেকে জানা যায়, চম্পা কানাইপুর পুরদিয়া হাইস্কুলের নবম শ্রেণীতে লেখাপড়া করত।  আসামি শামীম চম্পাকে বিয়ের প্রস্তাব দিয়ে রাস্তাঘাটে উত্তক্ত্য করত। এ বিষয়টি চম্পা তার পরিবারকে জানালে শামীমের এ প্রস্তাব নাকচ করে তাকে সতর্ক করে দেওয়া হয়। এরপর ঘটনার রাতে (সন্ধ্যা ৭টা ৩০মিনিটে) চম্পাকে তার চাচাত বোন পপির গায়ে হলুদের অনুষ্ঠান থেকে আসামিরা মামলার সাক্ষীগণের সামনে থেকে ডেকে নিয়ে যায়।
 
রাত ৯টা অবধি চম্পা গায়ে হলুদের অনুষ্ঠানে ফিরে না এলে তাকে খোঁজাখুঁজি করতে থাকেন তার পরিবারের সদস্যরা। এরপর ১৪ ডিসেম্বর ভোর সাড়ে ৬টায় কাশিমাবাদ গ্রামের সোহরাব শেখের মেহগনি বাগানে ঝুলন্ত অবস্থায় চম্পার লাশ পাওয়া যায়।
 
এ ঘটনায় ১৫ ডিসেম্বর মো. হাসিবুল ইসলাম বাদী হয়ে ফরিদপুর কোতয়ালী থানায় উল্লেখিত আসামিদের বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নিরযাতন এবং দণ্ডবিধি আইনে এই মামলাটি দায়ের করেন।

Comments

comments