ব্রেকিং নিউজ

ঢাকায় ফুটপাতের পর এবার রাস্তা দখল; জনভোগান্তি চরমে

ফুটপাত-দ্য বিডি এক্সপ্রেস.কম

ষ্টাফ রিপোর্টার।। 

ঢাকা মহানগরের প্রায় সবকটি ফুটপাত এখন তোলা পার্টির দখলে, সিটি কর্তৃপক্ষের উদাসীনতার কারণেই ফুটপাত দখলের উৎসব চলছে।সকল ফুটপাত স্হানীয় দখলদার তোলা পার্টির দখলে।মোটা অংকের টাকার লেনদেনের মাধ্যমে ফুটপাতের জায়গা বিক্রি হচ্ছে।মাত্র দুই/তিনহাত লম্বা আয়তনের একটি জায়গার মূল্য ৫/৭ লক্ষ টাকা।এই তোলা পার্টির সাথে স্হানীয় ছাত্রলীগের/যুবলীগের কতিপয় নেতারা জড়িত। আবার অনেক স্হানীয় অপরাধী চক্র ছাত্রলীগ ও যুবলীগের নাম ভাঙ্গিয়ে এই অবৈধ বানিজ্য ফ্রি স্টাইলে চালিয়ে যাচ্ছে।

প্রতিদিন কোঠি কোঠি টাকার চাঁদাবাজি হচ্ছে এই ফুটপাত বানিজ্যকে ঘিরে।চাদাঁর টাকার একটি অংশ যাচ্ছে ক্ষমতাসীন রাজনৈতিক দলের ছাত্র ও যুব সংগঠনের পকেটে, আর একটি অংশ যাচ্ছে পুলিশের কাছে।যারফলে কোনভাবেই রাজধানীর ফুটপাত দখলমুক্ত করা সম্ভব হচ্ছে না।  সাধারণ মানুষের চলাচলের বিঘ্ন ঘটিয়ে  ফুটপাত দখলকরে দোকান বসানোর মহাৎসব  আগের চেয়ে বেড়েছে। এই দখলদার সিন্ডিকেটের হাতে জিম্মি খোদ সিটি কর্পোরেশনও। নগর বিশেষজ্ঞদের মতে কর্তৃপক্ষের উদাসীনতার কারণে প্রতিদিনই বাড়ছে এর পরিসর।

বর্তমানে ফুটপাত দিয়ে হাঁটার কোন সাধ্য নেই অসহায় পথচারিদের,পথচারিরা বাধ্য হয়ে মূলসড়ক দিয়ে হাটছে।  হাঁটার জায়গা অবৈধভাবে দখল করে বিভিন্ন পণ্যের পসরা সাজিয়ে বসছে দোকানিরা। অনেক ক্ষেত্রে  ফুটপাত দখলের পর এখন রাস্তার উপর পসরা সাজিয়ে বসেছে দখলদাররা।
সাধারণ মানুষের অভিযোগ, ফুটপাত মানুষের হাঁটার জন্য, দোকানপাট বসানোর জন্য নয়। পুলিশেরা ফুটপাত দখল করতে সহায়তা করছে।
এমন চিত্র বিদ্যমান থাকলেও অসহায় সিটি কর্পোরেশন। ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন এর মেয়র সাঈদ খোকন বলেন, ফুটপাতকে ঘিরে বিভিন্ন রকম বাণিজ্য হয়ে থাকে। পুলিশের কিছু অসাধু কর্মকর্তা রয়েছে, রাজনৈতিক অনেক নেতা রয়েছে, বিভিন্ন হকারদের নেতা রয়েছে সবাই এ অপকর্মের সাথে জড়িত। সবাই মিলে এ সমস্যার সমাধান করতে হবে।
ফুটপাত দখল মুক্ত করতে তেমন কোন পদক্ষেপ দেখা যায় না। ফুটপাত ঘিরে প্রতিদিনই বাড়ছে দখলদারদের দৌরাত্ম। এত পথচারী চলাচলে সমস্যার পাশাপাশি বাড়ছে যানজটও।

 

 

Comments

comments