ব্রেকিং নিউজ

বাংলাদেশি তরুনের সাফল্য, রাজশাহীতে বিশ্বের সর্ববহৎ ডিজিটাল ঘড়ির উদ্বোধন

রাজশাহী প্রতিনিধি: রাজশাহী নগরীর উপকণ্ঠ কাপাশিয়া গ্রামের সরদার পাড়ায় কয়েকজন যুবক মিলে তৈরী করেছেন ৭৮৫ বর্গফুটের বিশাল এক ডিজিটাল ঘড়ি। তাদের দাবি এই ডিজিটাল ঘড়িই বিশ্বের সবচেয়ে বড় ডিজিটাল ঘড়ি। রাতের বেলা অন্তত ১০ কিলোমিটার থেকে এর সময় দেখা যায়। এমনকি এই ঘড়িটিকে যেন গিনেজ বুকে ঠাঁই দেয়া হয়, এমনটি দাবি করেছেন স্থানীয় এলাকাবাসী। গতকাল শুক্রবার রাত ১০টার দিকে এ ঘড়িটি উদ্বোধন করা হয়। ঘড়ি উদ্ভাবনের প্রধান উদ্ােক্তা আকুল হোসেন মিঠু বলেন, বিশাল এই ঘড়িটির সংখ্যার উচ্চতা ১৭.৫ ফুট এবং প্রস্থ ৪৪.৯ ফুট। প্রায় দু বছরের চেষ্টায় বিদ্যুৎ দ্বারা সফটওয়ার দিয়ে চালিত এই বিশাল ঘড়ি তৈরী করা হয়েছে ৪৮ টি রড বাল্ব, স্টিলের বডি আর বাঁশের ফ্রেম দিয়ে। যা তৈরী করতে খরচ হয়েছে আড়াই লক্ষ টাকা।

তিনি আরও জানান, স্থানীয় এলাকবাসীর সহযোগীতায় তারা ঘড়িটি নির্মাণ করেছেন। গ্রামে-গঞ্জে এমন প্রতিভার যেন মূল্যায়ন করা হয় সেই লক্ষেই তারা ঘড়িটি নির্মাণ করেছে। এ ঘড়িটি তৈরী করতে গ্রামের স্থানীয়রা সকল দিক দিয়ে সাহায্য করেছে।

মিঠু বলেন, ‘তার বাবা মনতাজ সরদার কাটাখালি পৌর সভার ১ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর। বাবার স্বপ্ন ছিল ছেলে মিঠু বড় হয়ে ইঞ্জিনিয়ার হবে। কিন্তু মিঠু তা হতে পারেনি। রাজশাহী কলেজ থেকে বাংলায় অনার্স পড়েই থেমে যেতে হয়েছে । তবে হালও ছাড়েননি।  দীর্ঘদিন থেকেই ইলেক্ট্রোনিক্সের কাজ করতে করতে অভিজ্ঞ হয়ে উঠেন মিঠু। সেই সঙ্গে বছর তিনেক আগে রাজশাহী থ্রি ইঞ্জিনিয়ার্স লিমিটেডে ১৫ দিনের মাইক্রো কন্ট্রলার বিষয়ে প্রশিক্ষণ নেন তিনি।

এছাড়াও বিভিন্ন বইপত্র এবং ইন্টারনেট থেকে সাহায্য নিয়ে দুই বছর আগে শুরু করেন ডিজিটাল ঘড়ির নির্মাণকাজ। তার দেখাদেখি এলাকার আরো কয়েকজন যুবক ও স্থানীয়রা যোগ দেয় তার সাথে। সেই থেকে এলাকাবাসীর সার্বিক সহযোগিতায় ঘড়িটির নির্মাণকাজ শেষ করেন মিঠু। এর পর ঘড়িটির শুক্রবার সন্ধ্যায় আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধন করেন তারা।

Comments

comments