ব্রেকিং নিউজ

রাবিতে ছাত্র-শিক্ষক নির্যাতন দিবস পালিত

রাজশাহী প্রতিনিধি: শিক্ষক-ছাত্র নির্যাতনের বার্ষিকী স্মরণে দিনটি যথাযথভাবে পালন করেছে রাজশাহী বিশ^বিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষার্থী ও বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। দিবসটি উপলক্ষে গতকাল সোমবার বেলা ১১টায় সিনেট ভবনে আলোচনা সভা অনুষ্ঠানের আয়োজন করে বিশ্ববিদ্যালয় কতৃপক্ষ।

বিশ^বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার প্রফেসর মুহাম্মদ এন্তাজুল হকের উপস্থাপনায় ও ভিসি  প্রফেসর মুহম্মদ মিজানউদ্দিনের সভাপতিত্বে  বক্তব্য রাখেন, নির্যাতিত শিক্ষক ও বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ভিসি প্রফেসর সাইদুর রহমান খান, বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রো-ভিসি প্রফেসর চৌধুরী সারওয়ার জাহান, ভূতত্ত্ব ও খনিবিদ্যা বিভাগের সভাপতি প্রফেসর গোলাম সাব্বির সাত্তার, ম্যানেজমেন্ট স্টাডিজ বিভাগের প্রফেসর মলয় ভৌমিক, গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের প্রফেসর দুলাল চন্দ্র বিশ্বাস, বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-প্রধান তথ্য অফিসার মো. সাদেকুল ইসলাম।

আলোচনা সভায় বক্তারা বলেন, বাঙালি জাতির সকল আন্দোলন সংগ্রামে দেশের ছাত্র-শিক্ষক সমাজ এক গৌরবময় ভূমিকা পালন করে এসেছে। তারই ধারাবাহিকতায় দেশে বিরাজমান নিপীড়নমূলক পরিস্থিতিতে ২০০৭ সালের আগস্টে ঢাকা ও রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়সহ অন্যান্য শিক্ষাঙ্গন প্রতিবাদমুখর হয়ে উঠে। সেই প্রতিবাদ দমন করতে তৎকালীন রাষ্ট্রক্ষমতা নিয়ন্ত্রণকারী মহল ছাত্র-শিক্ষকদের গ্রেফতার করে নির্যাতন ও হয়রানির পথ বেছে নেয়। তাদের বিরুদ্ধে চাপিয়ে দেয় হয়রানিমূলক মামলা। কিন্তু এক সময় সকল ষড়যন্ত্র থেকে ছাত্র-শিক্ষক সমাজ মুক্ত হয়, প্রতিষ্ঠিত হয় সত্য। সভায় আলোচকগণ সেদিনের সেই নিপিড়ন ও হয়রানির ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত করে দোষী ব্যক্তিদের উপযুক্ত শাস্তির দাবী করেন।

এর আগে দিবসটি উপলক্ষে বিশ্ববিদ্যালয়ের সাংস্কৃতিক সংগঠন অনুশীলন নাট্যদল সকাল ১০টায় এক বর্ণাঢ্য র‌্যালি বের করে। র‌্যালিটি বিশ্ববিদ্যালয়ের রাকসু ভবন থেকে শুরু হয়ে বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগারের সামনে এসে সংক্ষিপ্ত সমাবেশে মিলিত হয়।

সমাবেশে রাবি উপ-উপাচর্য অধ্যাপক চৌধুরী সারওয়ার জাহান বলেন, ২০০৭ সালের এই দিনে ছাত্র-শিক্ষকের ওপর নেমে আসে নির্মম নির্যাতন। বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-শিক্ষক ভাষা আন্দোলন থেকে শুরু করে ‘৬৯ এর গণঅভ্যূত্থান, স্বাধীনতা আন্দোলন, ‘৯০ এর স্বৈরাচার বিরোধী আন্দোলনে অগ্রণী ভূমিকা পালন করেছে। তৎকালীন তত্ত্বাবধায়কের নামে সেনা সরকার আমাদের উপর নির্যাতন করে আমাদের গণতন্ত্রের পথ রুদ্ধ করতে চেয়েছিলো। কিন্তু তারা সফল হতে পারেনি।’

Comments

comments