ব্রেকিং নিউজ

অবৈধ ক্ষমতা দখলকারীরা পেনশন সুবিধা পাবেন না

অেবৈধপ্রতিবেদকঃ অবৈধভাবে ক্ষমতা দখলকারী রাষ্ট্রপতিরা পেনশনসহ অন্যান্য সুবিধার যোগ্য হবেন না বলে সিদ্ধান্ত নিয়েছে মন্ত্রিসভা। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্ব সচিবালয়ে সোমবার মন্ত্রিপরিষদ কক্ষে অনুষ্ঠিত মন্ত্রিসভা বৈঠকে এ অনুমোদন দেওয়া হয়।
এ বিধান রেখে ‘রাষ্ট্রপতির অবসরভাতা, আনুতোষিক ও অন্যান্য সুবিধা আইন-২০১৫’ এর খসড়া চূড়ান্ত অনুমোদন দিয়েছে মন্ত্রিসভা।
বৈঠক শেষে মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোহাম্মদ মোশাররাফ হোসাইন ভূইঞা প্রেস ব্রিফিংয়ে সাংবাদিকদের বলেন, বাংলাদেশে প্রেসিডেন্টের পদ থেকে অবসরে যাওয়ার পর অবসরভাতা, আনুতোষিক বা অন্যান্য সুবিধার বিষয়টি নির্ধারিত হয় ১৯৭৯ সালের ‘প্রেসিডেন্টস পেনশন অর্ডিনেন্স’ অনুযায়ী। ১৯৮৮ সালে অধ্যাদেশটি একবার সংশোধন করা হয়েছিলঅনুমোদনের কথা জানান।

তিনি উল্লেখ করেন, ২০১০ সালে সংবিধানের সপ্তম সংশোধনী বাতিল করে হাই কোর্টের এক রায়ে বলা হয়, “খন্দকার মোশতাক আহমেদ, আবু সা'দাত মোহাম্মদ সায়েম এবং জিয়াউর রহমানের মতো এইচএম এরশাদও অবৈধ ক্ষমতা দখলকারী।"

অবসরভাতার এ আইন এরশাদ বা জিয়াউর রহমান কিংবা তাদের উত্তরাধীকারদের ক্ষেত্রে প্রযোজ্য হবে কি না জানতে চাইলে মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, “তারা প্রেসিডেন্ট হিসেবে অবসরভাতা নেন না। তারা সামরিক কর্মকর্তা হিসেবে প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে ভাতা নিয়ে থাকেন।”

আরেক প্রশ্নের জবাবে মোশাররাফ হোসাইন ভূইঞা বলেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের পরিবার কখনো এরকম পেনশন নেয়নি, কারণ ওই আইনটিই হয়েছিল ১৯৭৯ সালে। তবে নতুন আইন পাস হলে বঙ্গবন্ধুর উত্তরাধীকারীরা সে সূযোগ পাবেন।

রাষ্ট্রপতি হিসেবে জিয়াউর রহমান ও এইচ এম এরশাদের শাসনামলকে সর্বোচ্চ আদালত অবৈধ ঘোষণা করেছেন।
 

Comments

comments