ব্রেকিং নিউজ

ভারী বর্ষণে রাজধানী বাসির ভোগান্তি চরমে

বৃষ্টি ৪প্রতিবেদকঃ গত কয়েকদিন ধরে একটানা ভারী বর্ষণে রাজধানী ঢাকায় জলাবদ্ধতা দেখা দেওয়ায় নাগরিক জীবনে নেমে এসেছে চরম ভোগান্তি। জলাবদ্ধতার এই ভোগান্তি ঢাকার বাইরে দেশের বিভিন্ন জেলা ও উপজেলা শহরেও ছড়িয়ে পড়েছে। টানা বৃষ্টিতে দেশের নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হচ্ছে। নদ-নদী উপচে বন্যার পানি ছড়িয়ে পড়ছে নিম্নাঞ্চলে। ক্রমেই বাড়ছে পানিবন্দী মানুষের সংখ্যা।

অন্যদিক টানা বৃষ্টিপাতের কারণে দেশের পার্বত্যাঞ্চলে পাহাড়ধসের ঘটনা বিপজ্জনকহারে বেড়েছে। পাহাড়ধসে শুক্রবার বান্দরবানে দুই শিশুর (ভাই-বোন) মৃত্যু হয়েছে।

আবহাওয়া অধিদফতর সূত্র জানায়, শুক্রবার বিকেল ৪টা থেকে পরবর্তী ২৪ ঘণ্টার মধ্যে দেশের বিভিন্ন স্থানে ভারি বর্ষণ ও ভূমিধসের ঘটনা ঘটতে পারে। কোথাও কোথাও শিলা ও বজ্রবৃষ্টিসহ ঝড়েরও আশঙ্কা রয়েছে।

আবহাওয়া অধিদফতর থেকে  জানা যায়, সারাদেশে চলমান বৃষ্টি শনিবার বিকেল নাগাদ কমতে পারে। 

দেশের উত্তর থেকে দক্ষিণাঞ্চল সব এলাকাতেই বৃষ্টিপাত হচ্ছে। রাজধানী ঢাকায় বৃহস্পতিবার সকাল ৬টা থেকে শুক্রবার সকাল ৬টা পর্যন্ত ৮৩ মিলিমিটার বৃষ্টি হয়েছে। তবে দেশের দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চলে বৃষ্টি বেশি ভোগাচ্ছে। ২৪ ঘণ্টার চাঁদপুরে সবচেয়ে বেশি বৃষ্টি হয়েছে, যার পরিমাণ ২৮৮ মিলিমিটার। কক্সবাজারে বৃষ্টি হয়েছে ২১০ মিলিমিটার। উত্তরের জেলা রাজশাহীতে বৃষ্টি হয়েছে ১০০ মিলিমিটার।

উত্তর বঙ্গোপসাগর ও বাংলাদেশের উপকূলীয় এলাকা এবং সমুদ্রবন্দরসমূহের উপর দিয়ে ঝড়ো হাওয়া বয়ে যেতে পারে। চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, মংলা ও পায়রা সমুদ্রবন্দরকে ৩ নম্বর স্থানীয় সতর্ক সঙ্কেত দেখাতে বলা হয়েছে। পাশাপাশি উত্তর বঙ্গোপসাগরে অবস্থানরত মাছ ধরার নৌকা ও ট্রলারসমূহকে পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত উপকূলের কাছাকাছি এসে সাবধানে চলাচলের জন্য বলা হয়েছে।

মৌসুমি বায়ুর প্রভাবে কক্সবাজারে দমকাসহ ঝড়ো হাওয়া বয়ে যেতে পারে। কক্সবাজার সমুদ্রবন্দরকে ৩ নম্বর স্থানীয় সতর্ক সঙ্কেত দেখিয়ে যেতে বলা হয়েছে। পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত সব মাছ ধরার ট্রলার উপকূলের কাছাকাছি নিরাপদ স্থানে রাখতে বলা হয়েছে।’

 চট্টগ্রাম নগরীতে টানা মাঝারি থেকে ভারি বর্ষণে নিম্নাঞ্চলেরবেশিরভাগ এলাকা পানির নিচে তলিয়ে গেছে। শুক্রবার সকালে বিভিন্ন স্থানে হাঁটু পরিমাণ পানি জমতে দেখা গেছে। ফলে কর্মজীবী মানুষের দুর্ভোগ চরমে পৌঁছেছে।

এদিকে টানা বর্ষণের কারণে চট্টগ্রাম বন্দরের বহির্নোঙরে পণ্য খালাস কার্যক্রম তিন দিন ধরে বন্ধ রয়েছে।

 

Comments

comments