ব্রেকিং নিউজ

বর্তমান প্রধানমন্ত্রী বড় স্বৈরাচার : এরশাদ

এরশাদপ্রতিবেদক: জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান ও প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ দূত হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে তার চেয়েও বড় স্বৈরাচার বলে মন্তব্য করেছেন।

তিনি বলেন, ‘এখনকার প্রধানমন্ত্রী আমার চেয়েও বড় স্বৈরাচার। আমি গুলি করে মানুষ মারি নাই, মানুষ হত্যা করি নাই। এখন প্রতিদিন নূর হোসেন, বিশ্বজিৎ মরছে। কিন্তু আমাদের চোখে পানি আসে না।’

রবিবার দুপুরে জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যানের বনানী কার্যালয়ে দলের ঢাকা মহানগর উত্তর ও দক্ষিণের যৌথ সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

এরশাদ বলেন, ‘গণতন্ত্র এখন কবরে, নির্বাসনে। আজ থেকে আমরা গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারের শপথ নিলাম। আজ থেকে গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারের যাত্রা শুরু হলো।’

তিনি বলেন, ‘মানুষ মেরে ক্ষমতায় যাওয়া না, আবার ক্ষমতায় থাকাও যায় না। এই দুই দলের প্রতি মানুষের আস্থার লেশমাত্র নেই। সুযোগ এসেছে গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারের। এই সুযোগ আমাদের কাজে লাগাতে হবে।’

সাবেক এই রাষ্ট্রপতি বলেন, ‘প্রতিদিন হরতাল, অবরোধ। আজ হরতালে বাচ্চাদের স্কুলে পাঠাবো কি না চিন্তায় আছি। ঢাকায় যানজটে আপনারা খুশি। কিন্তু বাইরের অবস্থা কি? ঢাকা এখন বিচ্ছিন্ন।’

এরশাদ বলেন, ‘ঢাকার বাইরের কৃষক না খেয়ে আছে। রাস্তায় দুধ ঢেলে প্রতিবাদ জানাচ্ছে। ঢাকায় কোথায় যানজট? আমরা পুরো দেশকে রাজনীতির যানজট মুক্ত করতে চাই। এবার সেই সুযোগ এসেছে।’

প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ দূত বলেন, ‘এবার আল্লাহ আমাদের একটা সুযোগ দিয়েছেন। এই সুযোগ আমাদের কাজে লাগাতে হবে।’

এখন বার্ন ইউনিটে যাওয়ার নামে নাটক হচ্ছে দাবি করে এরশাদ বলেন, ‘আমি নাটক করার জন্য বার্ন ইউনিটে যাই না। আমি রংপুরে বার্ন ইউনিটে গিয়েছিলাম। বলেছিলাম, সাথে কোনো ক্যামেরা থাকবে না। এই রাজনীতি আমরা চাই না। এই গণতন্ত্র আমরা চাই না। সত্যিকারের গণতন্ত্র চাই।’

এরশাদ বলেন, ‘ক্ষমতা ছাড়া আমাদের দেশে এখন আর গণতন্ত্র নেই। গণতন্ত্রের কবর রচনা হয়েছে। আমরা আর বিরোধীদলে থাকতে চাই না। এবার আমরা ক্ষমতায় যাব। আমরা এখন তালগাছ চাই। গণতন্ত্র চাই না। জনগণের ভোটে এবার তালগাছ আমরা নেব।’

জাতীয় পার্টির মহাসচিব জিয়াউদ্দিন আহমেদ বাবলুর সভাপতিত্বে যৌথ সভায় উপস্থিত ছিলেন জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য এস এম ফয়সল চিশতী, সৈয়দ আবু হোসেন বাবলা, সুনীল শুভরায়, ঢাকা সিটি করপোরেশন দক্ষিণের মেয়র প্রার্থী হাজী সাইফুদ্দিন আহমেদ মিলন, উত্তরের মেয়র প্রার্থী বাহাউদ্দিন বাবুল, যুগ্ম মহাসচিব রেজাইল ইসলাম ভূঁইয়া, নুরুল ইসলাম নুরু প্রমুখ।

Comments

comments