ব্রেকিং নিউজ

ধ্বংসের মুখোমুখি দেশীয় সংস্কৃতি!

বিয়েদ্য বিডি এক্সপ্রেসঃ পশ্চিমা ভোগবাদি সংস্কৃতির প্রভাবে বাংলাদেশের সুস্হ সংস্কৃতিচর্চা একেবারে খাদের কিনারায় গিয়ে ঠেকছে। পাশাপাশি ভারতীয় কিছু কুরুচিপূর্ণ সংস্কৃতির বেলেল্লাপনার আগ্রাসনের স্বীকার হয়ে দেশের স্কুল ও কলেজগামী ছাত্র/ছাত্রী ও যুব সমাজ আজ ধ্বংসের ধারপ্রান্তে। মনে হচ্ছে আমাদের দেশে এইসব দেখার মত কেউ নেই? হাজার হাজার বছর ধরে চলে আসা মূল্যবোধ,কৃষ্টি কালচার, সংস্কৃতি বিলীন হওয়ার ষোলকলা পূর্ণ হতে চলছে।

দেশের মানুষকে সম্পূর্ণ অন্ধকারে রেখে কাদের অদৃশ্য সমর্থনে ও আঙ্গুলি হেলনে এইসব ভিনদেশি কুরুচিপূণ অশ্লীল বস্তাপচা সংস্কৃতি আমদামি করা হচ্ছে। ভারতের কিচু অশ্লীল কুরুচিপূর্ণ টিভি চ্যনেল গুলোর কারণে দেশের সমাজ ব্যবস্হা আজ হুমকীর সম্মূক্ষিন। পারিবারিক জীবনে নেমে এসেছে চরম অশান্তি। একান্নভুক্ত পরিবার গুলো ভেঙ্গে যাচ্ছে, বিবাহ বিচ্ছেদ বেড়েছে কয়েকশ গুণ বেশী।

বাংলাদেশের হাজার বছরের ঐতিহ্য, মূল্যবোধ,কৃষ্টিকালচার ধ্বংসের নীল নকসা বাস্তবায়ণ করা হচ্ছে। দেশের ছাত্র ও যুব সমাজকে কোথায় নিয়ে যাওয়া হচ্ছে আমরা কি একবারও ভেবে দেখছি। পশ্চিমা ও ভারতীয় ভোগবাদি ও কুরুচিপূণ সংস্কৃতির আগ্রাসনে স্বীকার হয়ে দেশের তরুন প্রজন্ম,যুব সমাজের নৈতিক অবক্ষয় শুরু হয়েছে। পশ্চিমা দেশ গুলোতে আজ নারীর মর্য্যাদা ভূলুন্ঠিত।

পশ্চিমা ভোগবাদ ও কর্পোরেট সংস্হাগুলো নারীকে সমান অধিকারের নামে বানিজ্যক পণ্যতে পরিণত করছে। নারীকে উপস্হাপন  করা হয় ভোগের সামগ্রী হিসাবে। অথচ প্রাচ্যের দেশ গুলোতে নারীকে মায়ের জাতি হিসাবে সম্নান ও শ্রদ্ধার চোখে দেখা হয়ে থাকে। পবিত্র ইসলাম ধর্মে নারীকে সম মর্য্যাদা দিয়ে শ্রদ্ধা সম্নানের আসনে অলংকিত করা হয়েছে।  সেখানে পশ্চিমা দুনিয়া নারীর সম মর্য্যাদার পরিবর্তে ভোগবাদের সামগ্রি হিসাবে ব্যবহার করছে।

বর্তমানে ভোগবাদ ও বেলেল্লাপনা সভ্যতার নতুন সংকটে জাতি ক্রান্তিকাল অতিক্রম করছে। এ থেকে পরিত্রান পেতে হলে ভিনদেশি সংস্কৃতি পরিহার করে দেশিয় সংস্কৃতি ও মূল্যবোধের লালন করতে হবে সবাইকে।

Comments

comments