ব্রেকিং নিউজ

নিরঙ্কুশ সংখ্যাগরিষ্ঠতার পথে আম আদমি

দ্য বিডি এক্সপ্রেসঃ ভারতের দিল্লি বিধানসভার নির্বাচনে একক সংখ্যাগরিষ্ঠতা পেতে পারে অরবিন্দ কেজরিওয়ালের নেতৃত্বাধীন আম আদমি পার্টি (এএপি)। নির্বাচনপূর্ব একাধিক জরিপে এমন আভাস পাওয়া গেছে। খবর এনডিটিভি ও টাইমস অব ইন্ডিয়ার।
৭ ফেব্রুয়ারি দিল্লি বিধানসভার নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। ফলাফল জানা যাবে ১০ ফেব্রুয়ারি। দিল্লি বিধানসভায় মোট আসন ৭০।
বেসরকারি প্রভাবশালী টিভি চ্যানেল এনডিটিভির পরিচালিত এক জরিপে দেখা গেছে, নির্বাচনে কেজরিওয়ালের এএপি ৩৭টি আসন পেতে পারে। মোট আসনে অর্ধেকের চেয়ে তা দুটি বেশি। জরিপে দেখা যায়, প্রতিদ্বন্দ্বী ভারতীয় জনতা পার্টি (বিজেপি) ও এর মিত্ররা ২৯টি আসন পেতে পারে। ২০১৩ সালের দিল্লি বিধানসভা নির্বাচনে বিজেপি আরও তিনটি আসন বেশি পেয়েছিল। কংগ্রেস পাবে মাত্র চারটি। ইংরেজি দৈনিক হিন্দুস্তান টাইমস, ইকোনমিক টাইমস এবং এবিপি নিউজ-এর তিনটি আলাদা জরিপের ফলাফলের ভিত্তিতে এনডিটিভির জরিপটি করা হয়।
এবিপি নিউজ-নিয়েলসেনের পরিচালিত জরিপে দেখা গেছে, এএপি ৩৫টি আসন পেয়ে একক বৃহত্তম দল হিসেবে আবির্ভূত হবে। ওই জরিপে বলা হয়েছে, বিজেপি পেতে পারে ২৯ আসন। আর কংগ্রেস পেতে পারে ছয়টি আসন। জরিপ অনুযায়ী মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে পছন্দের তালিকার শীর্ষে আছেন এএপি নেতা অরবিন্দ কেজরিয়াল। তাঁকে পছন্দ করেন ৪৮ শতাংশ ভোটার। এরপর ৪২ শতাংশ ভোটারের পছন্দের প্রার্থী বিজেপির কিরণ বেদী।
ভোটের হিসাবে এএপি ৩৭ শতাংশ পেতে পারে বলে জরিপে বলা হচ্ছে। বিজেপি পাবে ৩৩ শতাংশ। আর কংগ্রেস সবচেয়ে কম, ১৮ শতাংশ।
জরিপের ফল বলছে, অর্থনৈতিকভাবে পিছিয়ে থাকা এবং মুসলিমদের মধ্যে এএপির জনপ্রিয়তা অনেক।
দিল্লি বিধানসভার গত নির্বাচনে একক বৃহত্তম দল হিসেবে এএপি কংগ্রেসের সমর্থনে সরকার গঠন করে। তবে মাত্র ৪৯ দিনের মাথায় কেজরিওয়ালের সেই সরকার পদত্যাগ করে। কেজরিওয়াল সরকারের পদত্যাগের পর দিল্লিতে কয়েক মাস চলে রাষ্ট্রপতির শাসন। গত ফেব্রুয়ারিতে বিধানসভা ভেঙে দেওয়া হয়।

Comments

comments