ব্রেকিং নিউজ

জাতিসংঘ মানবাধিকার কমিশনের হুঁশিয়ারি

515e6f7a526f3d719640030922b207a7_XL১৭,জানুয়ারি ইউরোপীয় ইউনিয়নের পর এবার জাতিসংঘ মানবাধিকার কমিশন বাংলাদেশে অব্যাহত রাজনৈতিক সহিংস ঘটনায় উদ্বেগ প্রকাশ করেছে। একই সঙ্গে সঙ্কট নিরসনে সব রাজনৈতিক দলের প্রতি সংযম প্রদর্শন এবং অবিলম্বে সহিংসতা বন্ধের আহ্বান জানিয়েছে এ বিশ্ব সংগঠনটি।

জেনেভায় জাতিসংঘ মানবাধিকার বিষয়ক হাইকমিশনারের মুখপাত্র রাভিনা শামদাসানি বিবৃতিতে বলেন, 'বাংলাদেশের দুই প্রধান রাজনৈতিক দল শান্তিপূর্ণভাবে তাদের বিরোধ মেটাতে ব্যর্থ হওয়ার পর যেভাবে সহিংসতা বাড়ছে, তা খুবই উদ্বেগজনক। মাত্রাতিরিক্ত সহিংসতায় আমরা গভীরভাবে উদ্বিগ্ন। সহিংসতায় মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে। আহত হয়েছে অনেকে।'

বিবৃতিতে বলা হয়, গত বছর নির্বাচন বয়কট করা প্রধান বিরোধী দল বিএনপি গত ৫ জানুয়ারি নির্বাচনের বর্ষপূতিতে যখন অবরোধের ডাক দেয়, তখনই সহিংসতায় নতুন মাত্রা পায়। কমিশনের নজরে এসেছে, সরকার রাজধানীতে সব ধরনের সভা-সমাবেশ নিষিদ্ধ করেছে এবং বিএনপি চেয়ারপারসন ও শীর্ষ নেতাদের সমাবেশে বাধা দিয়েছে। দুই দলের সমর্থক ও আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর মধ্যে সংঘাতে এরইমধ্যে ডজনসংখ্যক লোক মারা গেছে।

বাংলাদেশের সর্বশেষ এই রাজনৈতিক সহিংসতায় সংঘটিত হত্যাকাণ্ডগুলোর নিরপেক্ষ তদন্ত দাবি করেছে জাতিসংঘ মানবাধিকার কমিশন।

বিবৃতিতে কমিশন বলেছে, 'সরকার বা সরকারের বাইরে যারাই এসব ঘটনার পেছনে থাক, আমরা চাই অবিলম্বে এসব হত্যাকাণ্ডের নিরপেক্ষ এবং কার্যকর তদন্তের উদ্যোগ নেবে কর্তৃপক্ষ।'

বিরোধী দলের গুরুত্বপূর্ণ নেতাদের গ্রেফতার ও আটকের ক্ষেত্রে সরকার যেন স্বেচ্ছাচারিতার আশ্রয় না নেয় এবং আইন-শৃঙ্খলা রক্ষায় নেওয়া পদক্ষেপগুলোতে যেন আন্তর্জাতিক মানবাধিকার আইনের লঙ্ঘন না ঘটে, সেজন্য সরকারকে হুঁশিয়ার করে দেওয়া হয় বিবৃতিতে।

জাতিসংঘ মানবাধিকার কমিশন যেভাবে নির্বিচারে গাড়িতে আগুন দেয়ার ঘটনা ঘটছে, তা নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করে। বিবৃতিতে গত মঙ্গলবার একটি বাসে হামলায় এক শিশুসহ চারজন পুড়ে মারা যাওয়া এবং বিএনপির এক উপদেষ্টার গাড়িতে হামলার কথা উল্লেখ করা হয়।

এর আগে ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ) বাংলাদেশে চলমান সহিংসতা এবং বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা ও সাবেক পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী রিয়াজ রহমানের ওপর হামলায় ঘটনায় উদ্বেগ জানিয়েছে। সহিংসতা বন্ধ এবং গণতন্ত্রকে শক্তিশালী করতে সব পক্ষকে সংলাপে বসার আহবানও জানিয়েছে সংস্থাটি।

এছাড়া, আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংগঠন অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল ও হিউম্যান রাইটস ওয়াচও বাংলাদেশের সাম্প্রতিক সহিংস ঘটনায় উদ্বেগ প্রকাশ করেছে।

এ প্রেক্ষাপটে ১০ জানুয়ারি (শনিবার) আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল ও হিউম্যান রাইটস ওয়াচকে ‘বিএনপি-জামায়াতের দালাল’ আখ্যা দিয়ে বাংলাদেশে তাদের কার্যক্রম বন্ধ করে দেয়ার দাবি জানিয়েছেন

Comments

comments