ব্রেকিং নিউজ

সংলাপের জন্য সহিংসতা বন্ধ হতে হবে: প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টা

image_20_3386দ্য বিডি এক্সপ্রেসঃ বাংলাদেশে আবারও উত্তপ্ত হয়ে উঠেছে রাজনৈতিক পরিস্থিতি। চলছে বিএনপির দেয়া টানা অবরোধ; তার মধ্যেই থেকে থেকে চলছে হরতাল। বাড়ছে সহিংসতায় প্রাণহানির সংখ্যা। যোগাযোগ ব্যবস্থা স্বাভাবিক না হওয়ায় ব্যবসায়িক এবং রপ্তানি কার্যক্রমে এসেছে স্থবিরতা। বিএনপি চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা ও সাবেক পররাষ্ট্র সচিব রিয়াজ রহমান গুলিবিদ্ধ হওয়ার প্রতিবাদে আজ সারাদেশে ডাকা হয়েছে হরতাল। এই সংকটে অবসান করতে সরকার কি করছে? এমন প্রশ্নের জবাবে প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টা ইকবাল সোবহান চৌধুরী বিবিসিকে দেয়া সাক্ষাতকারে বলেন, সমাধান শুধু সরকারের উপর নির্ভর করেনা। দুটো পক্ষকেই একটা সমঝোতার দিকে আসতে হবে। সরকারের দায়িত্ব জনগণের জানমাল ও আইন-শৃঙ্খলা রক্ষা করা। পাশাপাশি বিরোধী দলগুলোর সাথে আলাপ আলোচনা করে সমঝোতার ভিত্তিতে দেশের স্থিতিশীলতা রক্ষা করাটাও সরকারের দায়িত্ব বলে উল্লেখ করেন প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টা। দেশে ৫ জানুয়ারির নির্বাচন নিয়ে বিতর্ক ও সমালোচনা থাকতে পারে; তবে সংবিধান অনুযায়ী আরেকটি নির্বাচনের আগে অরাজকতা সৃষ্টি করে আবারও নির্বাচন হওয়া সম্ভব নয়। দেশে বর্তমান রাজনৈতিক অস্থিরতার মাঝে সহিংসতার ঘটনা বাড়ার পরও সরকার কেন আলোচনার উদ্যোগ নিচ্ছে না সে প্রশ্নে ইকবাল সোবহান চৌধুরী বলেন, ২০১৩ সালেও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিএনপি চেয়ারপার্সনকে সংলাপের আমন্ত্রণ জানিয়ে ছিলেন, কিন্তু আলোচনা হয়নি। এখন আলোচনায় বসার জন্য সবার আগে এই সহিংস কর্মকাণ্ড বন্ধ করতে হবে। ।বিবিসি বাংলা।

Comments

comments