ব্রেকিং নিউজ

জঙ্গিদের কাছ থেকে ড্রোন তৈরির সরঞ্জাম আটক : ডিএমপি

63320বিডি এক্সপ্রেসঃ গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনা ও গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তির উপর হামলা চালানোর জন্য খেলনা হেলিকপ্টারের চেয়ে উন্নত প্রযুক্তি ব্যবহার করে আনসারউল্লাহ বাংলা টিম ড্রোন তৈরি করছিল বলে জানিয়েছে পুলিশ।
রাজধানীর যাত্রাবাড়ীতে ড্রোন তৈরির সরঞ্জামসহ গ্রেফতার আনসারউল্লাহ বাংলা টিমের দুই সদস্যের কাছ থেকে এমন তথ্য জানা গেছে বলে জানিয়েছেন ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) যুগ্মকমিশনার (ডিবি)  মনিরুল ইসলাম।

ডিএমপির গণমাধ্যম কার্যালয়ে বুধবার দুপুরে এক সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানান তিনি।
যাত্রাবাড়ীর শহীদ ফারুক হোসেন সড়ক এলাকা থেকে মঙ্গলবার রাতে তাদের গ্রেফতার করা হয়। এ সময় তাদের কাছ থেকে ড্রোন তৈরির প্রজেক্ট, ড্রোন তৈরির সরঞ্জাম, বিভিন্ন ধরণের ইলেক্ট্রনিক ডিভাইস ও কয়েকটি উগ্র মতবাদ সম্বলিত পুস্তক উদ্ধার করা হয়।
গ্রেফতাররা হলেন, তানজিল হোসেন বাবু (২৬) ও মো. গোলামি মাওলা মোহন (২৫) ।

মনিরুল ইসলাম জানান, যেহেতু গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনায় পাহারা থাকে তাই তারা ড্রোনের সাহায্যে উপর থেকে হামলা চালানোর পরিকল্পনা করেছিল। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে তারা জানিয়েছে, ছয় মাস ধরে তারা ড্রোন তৈরির জন্য গবেষণা ও কার্যক্রম চালাচ্ছে। তারা ড্রোন তৈরির দ্বারপ্রান্তে পৌঁছে গিয়েছিল। আরও কিছু টেকনিক্যাল সাপোর্ট পেলেই তারা এটি তৈরি করতে পারত।
খেলনা হেলিকপ্টারের চেয়ে একটু উন্নত প্রযুক্তি ব্যবহার করে ড্রোনটি তৈরি করছিল জানিয়ে তিনি বলেন, ‘২০/৩০ তলা ভবনের মতো উঁচু ভবন থেকে হামলা চালানোর জন্য ড্রোনটি তৈরি করছিল তারা।’

তাদের হামলার টার্গেট গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনা এবং সেক্যুলার ব্যক্তিরা ছিলেন জানিয়ে তিনি বলেন, ‘সেক্যুলার রাজনীতিবিদ, শিক্ষক, বুদ্ধিজীবী ও সাংবাদিকেরা ছিলেন তাদের হামলার লক্ষ্য। এছাড়া গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনায় হামলা করে তারা বিশ্বের মনোযোগ আকর্ষণের পরিকল্পনা ছিল তাদের।’
মনিরুল ইসলাম জানান, গ্রেফতার মোহন গ্রিন ইউনিভার্সিটিতে কম্পিউটার সাইন্স বিষয়ে পড়াশোনা করছেন। অন্যদিকে তানজিলের একাডেমিক ডিগ্রি না থাকলেও তিনি টেকনিক্যাল দিকে থেকে পারদর্শী। এই দুইজন আনসার উল্লাহ বাংলা টিমের শীর্ষ নেতা জসিম উদ্দিন রোহানীর অনুসারী বলে জানান তিনি।
সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন, মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের উপ-কমিশনার কৃষ্ণপদ রায় ও ডিএমপির গণমাধ্যম শাখার উপ-কমিশনার মাসুদুর রহমান।

Comments

comments