ব্রেকিং নিউজ

দাঙ্গাগুরু এখন ধর্মগুরু হয়েছেন: মোদিকে উদ্দেশ করে মমতা

d3184cb0cee5e91e0321e9a68687a64c_XLপশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায় আজ (সোমবার) নাম উল্লেখ না করে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির তীব্র সমালোচনা করেছেন। 'দাঙ্গাগুরু', 'হাতে রক্ত লেগে আছে', এমনকি তাঁর বিদেশ  সফরগুলোতে কত টাকা খরচ হয়েছে, কে সেই টাকা দিল, এ সব প্রশ্নও ছুড়ে দেন তিনি। পাশাপাশি, বিজেপি এবং সিবিআইকেও আক্রমন করেছেন।

সোমবার বিকেল ৩টার দিকে কোলকাতার কলেজ স্কোয়ার থেকে শুরু হয় তৃণমূল কংগ্রেসের মিছিল। দলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নিজে সেই মিছিলে হাঁটেন। মিছিল ধর্মতলায় পৌঁছানোর পর কর্মী-সমর্থকদের উদ্দেশে ভাষণ দেন তিনি।

প্রসঙ্গত, সারদা-কাণ্ডে সিবিআইকে রাজনৈতিক উদ্দেশ্যে ব্যবহার করার অভিযোগ তুলে আজকের মিছিলের ডাক  দেয়া হয়েছিল।

মমতা বলেন, ‘আমাদের এখানে একজন সেলফি দাঙ্গাগুরু রয়েছেন। দাঙ্গাগুরু এখন আবার ধর্মগুরু হয়েছেন। গুজরাটে  দাঙ্গা বাধিয়েছেন। মনে রাখবেন, বাংলার মাটিতে এ সব করতে পারবেন না। এই সরকার ক্ষমতায় আসার পর সব জায়গায় দাঙ্গা হচ্ছে। উত্তরপ্রদেশ, মহারাষ্ট্র, এমনকি দিল্লিতেও।’

মমতা বলেন, ‘আমরা চাই সব কালো টাকা ফেরত আসুক। প্রধানমন্ত্রী যে বিদেশ যান, সেই ব্যাপারে বিস্তারিত খরচ জানতে চাই। কারা এই টাকা দিচ্ছে?  আমেরিকায় গিয়ে এত বড় করে সভা করলেন, কে দিল খরচ?’

কেন্দ্রীয় সরকার ও সিবিআইকে চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিয়ে তিনি বলেছেন, ‘সারা জীবন আমি মানুষের পাশে থেকে লড়েছি।  আর লড়বও। আমাদের নীরবতাকে দুর্বলতা ভাববেন না। আমি জানি, তৃণমূলকে হারাতে কাস্তে-হাতুড়ি, হাত আর পদ্ম এক হয়ে গেছে। পারবেন না। কেন্দ্রের জনবিরোধী নীতির বিরুদ্ধে আমি জনসাধারণকে বাংলা থেকে দিল্লি নিয়ে যাব। এখন কেন্দ্রীয় সরকার মানুষের কথা ভাবে না। আমি কেন্দ্রীয় সরকারকে চ্যালেঞ্জ করছি, সাহস থাকলে আমায় গ্রেফতার করুন।’

তাঁর দাবি, আগের এনডিএ সরকার ও বামফ্রন্টের আমলে চিটফান্ড জন্ম নিয়েছে। বরং তৃণমূল সরকার চিটফান্ডের মালিকদের গ্রেফতার করেছে।

বর্ধমান বিস্ফোরণের দায়ও তিনি কেন্দ্রের ওপর চাপিয়ে দেন। বলেন, বিএসএফ, এসএসবি ইত্যাদি নিরাপত্তাবাহিনী সীমান্ত পাহারা দেয়। এরা কেন্দ্রের অধীন। তা হলে জঙ্গিরা এ দেশে কী করে ঢুকল? এর দায় কেন্দ্রীয় সরকারকে নিতে হবে বলে তিনি মন্তব্য করেন

Comments

comments