ব্রেকিং নিউজ

ভারতে বড় ধরনের হামলার প্রস্তুতি নিচ্ছে জঙ্গিরা

আল-কায়দার সঙ্গে ইন্ডিয়ান মুজাহেদিনের (আইএম) যোগাযোগ ভাবিয়ে তুলেছে ভারতীয় গোয়েন্দাদের। তারা আশঙ্কা করছেন, আল-কায়দা ভারতে বড় ধরনের হামলা চালাতে প্রস্তুত করে তুলছে জঙ্গি সংগঠন ইন্ডিয়ান মুজাহেদিনকে। সংগঠন দু’টির মধ্যকার যোগাযোগ থেকে ভারতীয় গোয়েন্দারা এ আশঙ্কা করছেন।

গোয়েন্দা কর্মকর্তারা রয়টার্সকে জানান, আল-কায়দা ও মুজাহেদিন ভারতে বিদেশিদের অপহরণের পরিকল্পনা করছে। তারা ভারতকে ‘সিরিয়া ও ইরাক’ বানাতে চায়, যেখানে অব্যাহত সহিংসতা চলছে।

জাতীয় তদন্ত সংস্থার (এনআইএ) প্রধান শরদ কুমার রয়টার্সকে বলেন, স্থানীয় উগ্রপন্থি গ্রুপগুলোর সঙ্গে আল-কায়দা ও আইএস কীভাবে যোগাযোগ রক্ষা করে চলেছে আমরা সেদিকে খেয়াল রাখছি। বিশেষ করে আফগানিস্তানে হামলার বিষয়ে।

Jongiতিনি বলেন, আল-কায়দার সঙ্গে সাম্প্রতিক সময়ে উগ্রপন্থি সংগঠনগুলোর যোগাযোগ ও কার্যক্রম বেড়েছে। পাকিস্তানের সীমান্তবর্তী ওয়াগায় আত্মঘাতী হামলা চালানো হয়েছে। কোলকাতায় মঙ্গলবার সন্ত্রাসী হামলার ব্যাপারে সতকর্তা জারি করা হয়েছে। এসব ঘটনার প্রতি আমরা নজর রাখছি।

ভারতীয় গোয়েন্দারা বলছেন, তারা যেসব তথ্য প্রমাণ সংগ্রহ করেছেন তাতে মনে হচ্ছে আল-কায়দা ও আইএম’র মধ্যে ঘনিষ্ঠতা দিন দিন বাড়ছে।

গত কয়েক সপ্তাহ আগে আল-কায়দা উপমহাদেশে হামলা চালানোর  জন্য তার ‘সাউথ এশিয়া’ শাখা স্থাপনের ঘোষণা দেয়।

গোয়েন্দা সংস্থাগুলো জানায়, তারা খোঁজ নিয়ে জানতে পেরেছেন আল-কায়দা আফগানিস্তান ও পাকিস্তানে ভারতীয় জঙ্গি সংগঠন আইএম ও অন্যান্য উগ্রপন্থি সংগঠনের সদস্যদের প্রশিক্ষণ দিচ্ছে।

জাতীয় তদন্ত সংস্থা এমআইয়ের সন্দেহভাজন ১১ জঙ্গির বিরুদ্ধে চার্জশিট দিয়েছে। এই চার্জশিট দিতে গিয়েই গোয়েন্দারা যে তদন্ত করেন তাতে ভারত, আফগানিস্তান ও পাকিস্তানি জঙ্গিদের মধ্যে ইন্টারনেট চ্যাটিং ও বৈঠকের কথা ওঠে আসে। ভারতীয় গোয়েন্দারা এক্ষেত্রে মার্কিন গোয়েন্দাদের সহায়তা নেন।

ভারত অভিযোগ করে আসছে, পাকিস্তানের গোয়েন্দা সংস্থা আইএসআই ইন্ডিয়ান মুজাহেদিনকে অস্ত্র ও অর্থ দিয়ে সহায়তা করছে।

এক আলাপচারিতায় আইএম’র প্রতিষ্ঠাতা সদস্য রিয়াজ ভাটকাল তার অনুসারীদের বলছেন, ‘এখন আইএসআইয়ের চেয়ে সরাসরি আল-কায়দার সঙ্গে যোগাযোগ গড়ে তোলা দরকার। তিনি আইএসআইকে ‘কুকুর’ বলে উল্লেখ করেন।

রোববার পাকিস্তান সীমান্তবর্তী ওয়াগায় আত্মঘাতী বোমা হামলায় অন্তত ৫৭ পাকিস্তানি মারা যান। তেহরিক ই-তালেবান ওই হামলা চালায়। আল-কায়দার সঙ্গে যোগাযোগ রয়েছে গ্রুপটির।

এর আগে মোদির শপথ নেয়ার আগে আফগানিস্তানের ভারতীয় কনস্যুলেটে হামলা চালানো হয়।

Comments

comments