২৯ নভেম্বর জাপান যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী, জাপান-বাংলাদেশ বন্ধুত্বের ৫০ বছর

প্রতিবেদক
জাপানের প্রধানমন্ত্রী ফুমিও কিশিদার আমন্ত্রণে আগামী ২৯ নভেম্বর তিন দিনের সফরে টোকিও যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সফরে বাংলাদেশ ও জাপান দ্বিপক্ষীয় সম্পর্ককে ‘কৌশলগত অংশীদারিত্ব’ পর্যায়ে উন্নীত করবে বলে আশা করা হচ্ছে। আজ বৃহস্পতিবার সকালে জাপানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের দক্ষিণ-পূর্ব ও দক্ষিণ-পশ্চিম এশিয়া বিষয়ক মহাপরিচালক ও সহকারী মন্ত্রী আরিমা ইউতাকার সঙ্গে পররাষ্ট্র সচিব রাষ্ট্রদূত মাসুদ বিন মোমেনের এক বৈঠকে এ বিষয়ে আলোচনা করা হয়। আজ পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে পাঠানো এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য জানানো হয়। 

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গিয়েছে, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আসন্ন জাপান সফরের প্রস্তুতি নিয়ে আলোচনা করতে জাপানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সহকারী মন্ত্রী ও মহাপরিচালক দুই দিনের সফরে ঢাকায় এসেছেন।

বৈঠকে উভয় পক্ষই দুই বন্ধুপ্রতীম দেশের মধ্যে ক্রমবর্ধমান দ্বিপক্ষীয় সম্পর্কের প্রতি সন্তোষ প্রকাশ করে। তারা ২০১৪ সালের মে মাসে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জাপান সফরের কথা তুলে ধরেন। ঢাকা সফররত জাপানের সহকারী মন্ত্রী আশা প্রকাশ করেন, বাংলাদেশ-জাপান বন্ধুত্বের ৫০ বছরপূর্তি উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আসন্ন জাপান সফর বাংলাদেশ-জাপান দ্বিপক্ষীয় সম্পর্কের ইতিহাসে একটি মাইলফলক হয়ে থাকবে।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, সফরে বাংলাদেশ ও জাপান উন্নয়ন সহযোগিতা, বাণিজ্য ও বিনিয়োগ, মানবসম্পদ উন্নয়ন, কৃষি, আইসিটি, শিক্ষা, প্রতিরক্ষা সংলাপ ও বিনিময়, জনগণের মধ্যে যোগাযোগ, প্রত্যাবাসনের ক্ষেত্রে গভীর অর্থনৈতিক অংশীদারিত্ব গড়ে তুলবে বলে প্রত্যাশা করছে দুদেশ। এছাড়া জলবায়ু পরিবর্তন, জাতিসংঘের সংস্কার, নিরস্ত্রীকরণ এবং অপসারণ ইত্যাদি বিষয়ে আন্তর্জাতিক ফোরামে সহযোগিতা বাড়ানোর আগ্রহ প্রকাশ করেছে। বৈঠকে ঢাকায় নিযুক্ত জাপানের রাষ্ট্রদূত ইতো নাওকি এবং পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মহাপরিচালক (পূর্ব এশিয়া) যোগ দেন।  

Comments

comments