ব্রেকিং নিউজ

জনস্বাস্থ্য রক্ষায় তামাকজাত দ্রব্যের বিপণন বন্ধ করতে হবে: অধ্যাপক ডাঃ আ ফ ম রুহুল হক

স্টাফ রিপোর্টার

করোনকালীন সময়ে জনস্বাস্থ্য রক্ষায় তামাকজাত দ্রব্যের বিপণন বন্ধে  আবেদন জানালেন সাবেক স্বাস্থ্যমন্ত্রী অধ্যাপক ডাঃ আ, ফ,ম, রুহুল হক, এমপি

ঢাকা আহ্ছানিয়া মিশন স্বাস্থ্য সেক্টর কতৃর্ক আয়োজিত করোনা সংলাপ বিষয়ক অনলাইন মিডিয়া আলোচনায় করোনাকালীন মহামারী সময়ে জনস্বাস্থ্য রক্ষায় তামাকজাত দ্রব্যের ব্যবহার নিয়ন্ত্রণ জরুরি বলে মত দিয়েছেন সাবেক  স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণমন্ত্রী ও  বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক মন্ত্রনালয়ের স্থায়ী কমিটির, সভাপতি অধ্যাপক ডাঃ আ, ফ,ম, রুহুল হক, এমপি। তিনি বলেন এ সময়ে যারা ধূমপান করছেন তাদের মধ্যে করোনা ভাইরাস সংক্রমনের সম্ভাবনা বেশী এবং এ  বিষয়ে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার গাইডলাইন অনুসারে তামাকজাত দ্রব্য ব্যবহারকারীদের বিশেষভাবে সর্তক করা হয়েছে। কারণ তামাকজাত দ্রব্য ব্যবহারকারীদের হৃদযন্ত্র, ফুসফুস ও অন্যান্য অংঙ্গপ্রতঙ্গ ক্ষতি সাধিত হয়ে থাকে বিধায় করোনা ভাইরাস খুব সহজে তাদের আক্রমন করতে পারে।

 এ সময়ে তামাক কোম্পানীর উৎপাদন ও বিপনণ চলমান থাকায় তিনি বিষ্ময় প্রকাশ করেন। জনস্বাস্থ্য রক্ষায় ঢাকা আহ্ছানিয়া মিশন স্বাস্থ্য সেক্টর এর এ ধরনের সচেতনতামূলক উদ্যোগ গ্রহনকে সাধুবাদ জানান। সর্বপরি, যেহেতু তামাক ব্যবহারকারীদের করোনা ভাইরাস আক্রান্ত হওয়ার ঝুকি বেশী তাই করোনা সংক্রমরোধে  এবং  জনস্বাস্থ্য সুরক্ষায় মহামারীকালীন সময়ে তামাক কোম্পানীর বিপণন কার্যক্রম বন্ধে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নিকট ডাঃ আ, ফ,ম, রুহুল হক এমপি বিনীত অনুরোধ জানান।
উল্লেখ্য গ্যাটস ২০১৭ অনুযায়ী বলা যায়, বাংলাদেশে ৩৫.৩ শতাংশ অর্থাৎ প্রায় ৩ কোটি ৭৮ লক্ষ প্রাপ্তবয়স্ক মানুষ (১৫ বছর ও তদুর্ধ্ব) তামাক ব্যবহার করে এবং ধোঁয়াবিহীন তামাক ব্যবহারকারী ২ কোটি ২০ লক্ষ, ধূমপায়ী ১ কোটি ৯২ লক্ষ। তামাক অসুস্থতা ও অকালমৃত্যু ঝুঁকির অন্যতম প্রধান কারণ। টোব্যাকো এটলাস-২০১৮ এর তথ্য মতে প্রতিবছর তামাকজনিত রোগে প্রায় ১ লক্ষ ৬২ হাজার মানুষ মৃত্যুবরণ করে।

Comments

comments