ব্রেকিং নিউজ

শেখ হাসিনার ট্রেন বহরে গুলিবর্ষণ, বিএনপি নেতাসহ ৯ জনের ফাঁসি, ২৫ জনের যাবজ্জীবন


ফজলুল হক,পাবনা
পাবনা ঈশ্বরদীতে আওয়ামীলীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনার ট্রেনবহরে গুলিবর্ষণের মামলার রায় ঘোষনা করেছে আদালত। রায়ে ৯জনকে ফাঁসি ৫ লাখ টাকা করে জরিমানা, ২৫জনকে যাবজ্জীবন কারাদন্ড ৩লাখ টাকা করে জরিমানা ও ১৩ জনতে ১০ বছর করে কারাদন্ড প্রদান করেন। বুধবার জনাকির্ন আদালতে পাবনার অতিরিক্ত দায়রা জজ আদালত-১ এর বিচারক রোস্তম আলী এ রায় ঘোষনা করেন। রায় ঘোষনার সময় ৫২জন আসামীর মধ্যে ৩৪ জন উপস্থিত ছিলেন। ১২জন পলাতক, ১জন আসামী অন্য মামলায় জেল হাজতে ও ৫জন আসামী মামলা চালাকালীন সময়ে তারা মারা যায়। শুনানীতে আসামী পক্ষের আইনজীবি এ্যাডভোকেট সনৎ কুমার, এ্যাডভোকেট মাসুদ খন্দকার, নুর ইসলাম গেদাসহ ১৫/২০ আইনজীবি উপস্থিত ছিলেন। আসামী পক্ষের আইনজীবীবি নুরুল ইসলাম গেদা, এড সনৎ কুমার , এডভোকটে মাসুদ খন্দকার সহআরো অনেকে উপস্থিত ছিলেন। এ সময় রাষ্ট্রপক্ষের কৌশলী পিপি এ্যাডভোকেট আখতারুজ্জামান মুক্তা ও সহকারী পাবলিক প্রসিকিউটর ওবাইদুল হকসহ অন্যরা উপস্থিত ছিলেন। রায় ঘোষনায় আসামী পক্ষের আইনজীবিরা অসন্তোষ প্রকাশ করে বলেন, তারা এ রায়ের বিরুদ্ধে উ”চ আদালতে আপিল করবেন। রাষ্ট্র পক্ষ রায়ের প্রতি সন্তোষ প্রকাশ করে বলেন ২৫ বছর পর হলেও দেশে আইনের শাসন প্রতিষ্টিত হয়েছে। রায় ঘিরে আদালত প্রাঙ্গনসহ আশ পাশের এলাকা পুলিশি বেস্টনিতে ঢেকে ফেলা হয়। আদালতের প্রবেশ পথে কড়া পুলিশি পাহাড়া বসানো হয়। এ রায়ে ৩৫জন সাক্ষি সাক্ষ্য প্রদান করে এবং ২৩জন সাফায় সাক্ষি প্রদান করে। মামলার নিহত ৫ আসামীরা হলেন, আলী আজগর, খোকন, তুহিন, আলমগীর ও ওসিয়া। উল্লেখ্য, তৎকালীন বিরোধী দলীয় নেত্রী ও বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ১৯৯৪ সালের ২৩ সেপ্টেম্বর ঈশ্বরদী রেলওয়ে জংশন স্টেশনে যাত্রাবিরতি করলে অতর্কিত  ট্রেন ও শেখ হাসিনার বগি লক্ষ্য করে উপর্যুপরি গুলিবর্ষণ করা হয়।  ওইদিনই ঈশ্বরদী রেলওয়ে থানার ওসি মোঃ নজরুল ইসলাম বাদি হয়ে তৎকালীন ছাত্রদল নেতা ও বর্তমানে ঈশ্বরদী পৌর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক জাকারিয়া পিন্টুসহ ৭ জনকে আসামি করে বিস্ফোরক আইনের ৩ এবং ৪ ধারায় মামলা দায়ের করেন। মামলা নং-২৩, তাং-২৩-০৯-১৯৯৪।  ১৯৯৬ সালে আওয়ামীলীগ সরকার গঠন করার পর মামলাটি পুনঃতদন্ত করে পুলিশ। তদন্ত শেষে নতুন ভাবে ঈশ্বরদীর শীর্ষস্থানীয় বিএনপি, যুবদল ও ছাত্রদলের নেতাকর্মীসহ ৫২ জনের নামে অভিযোগপত্র প্রদান করে পুলিশ। গত রোববার শুনানীতে ৩০জন আসামী হাজির হলে আদালত তাদের জেল হাজতে প্রেরন করেন। গতকাল মঙ্গলবার মামলার অন্যতম আসামী ঈশ্বরদী পৌরসভার সাবেক মেয়র মোখলেছুর রহমান বাবলুসহ ২ আসামী আত্বসমর্পন করেন। আজ রায়ের সময় আরো ২ আসামী আদালতে হাজির হন। এ নিয়ে এ মামলায় ৩৪ আসামী রায়ের সময় উপস্থিত ছিলেন। চাঞ্চল্যকর এই মামলার প্রধান আসামি ঈশ্বরদী পৌর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক জাকারিয়া পিন্টু এবং বিএনপি নেতা হুমায়ুন কবীর দুলালসহ ১২ আসামী পলাতক রয়েছে এবং আদালত তাদের বিরুদ্ধে গ্রেফতারী পরোয়ানা জারি করেছে।

 

Comments

comments