ব্রেকিং নিউজ

পাকিস্তানে ভারতের সার্জিক্যাল স্ট্রাইকে ৩০০ জঙ্গি নিহত

প্রতিবেদক
কাশ্মীরের পুলওয়ামা হামলার জবাব দিয়েছে ভারতীয় সেনা বাহিনী। ভারতের দাবি, পাকিস্তান সীমান্তে প্রবেশ করে হামলায় জইশ-ই-মোহাম্মদের একাধিক ঘাঁটি ধ্বংস করে দিয়েছে। এতে ২০০ থেকে ৩০০ জন মারা গেছে বলে দাবি করেছে ভারতের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়। তবে ভারতের এ দাবি পুরোপুরি প্রত্যাখ্যান করেছে পাকিস্তান।

সংবাদ সংস্থা এএনআই জানায়, সোমবার রাত সাড়ে ৩টা নাগাদ ভারতের ১২টি মিরাজ-২০০০ যুদ্ধবিমান পাক জঙ্গি ঘাঁটি লক্ষ্য করে ১০০০ কেজি বোমাবর্ষণ করে। হামলায় লেজার নিয়ন্ত্রিত ব্যবস্থার সাহায্য নেওয়া হয়।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যমের খবরে বলা হয়েছে, বালাকোট, চাকোটি এবং মুজফ্রাবাদে অভিযান চালিয়ে গুঁড়িয়ে দেওয়া হয়েছে জইশ-ই-মোহাম্মদ, হিজবুল মুজাহিদিন এবং লস্কর-ই-তৈবার জঙ্গি ঘাঁটি। প্রতিটি এলাকাতেই জঙ্গি ঘাঁটি লক্ষ্য করে বোমাবর্ষণ করে বায়ুসেনার যুদ্ধবিমান।

ইতিমধ্যে ভারতের জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা অজিত ডোভাল প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে এই অভিযানের পূর্ণাঙ্গ রিপোর্ট জমা দিয়েছেন।

এছাড়া আজ (মঙ্গলবার) নিজের বাসভবনে ক্যাবিনেট কমিটি অন সিকিউরিটি-র বৈঠক ডাকেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। তাতে উপস্থিত ছিলেন প্রতিরক্ষামন্ত্রী নির্মলা সীতারমন, বিদেশমন্ত্রী সুষমা স্বরাজ, অর্থমন্ত্রী অরুণ জেটলি-সহ একাধিক শীর্ষ কর্তা।

এই অভিযানের পর ভারতীয় বিমান বাহিনীকে অভিনন্দন জানিয়েছেন কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী, পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরীওয়াল-সহ দেশের শীর্ষ নেতা।

এ হামলা সম্পর্কে পাকিস্তান সেনাবাহিনীর মুখপাত্র মেজর জেনারেল আসিফ গফুর জানান, ভারতীয় বিমানবাহিনী নিয়ন্ত্রণরেখা লঙ্ঘন করেছে। তিনি আরো দাবি করেন, পাকিস্তানের পাল্টা প্রতিরোধের মুখে পড়ে ভারতীয় যুদ্ধবিমানগুলি ফিরে যায়। তিনি জানিয়েছেন, মুজফফরাবাদ থেকে ভারতীয় বিমানগুলি প্রবেশ করে।

তাঁর দাবি, পাকিস্তানের জবাবে বালাকোটে বোমা ফেলেই চলে যায় ভারতীয় বিমানগুলি। এই হামলায় বিশেষ ক্ষয়ক্ষতি হয়নি বলে দাবি করেছেন তিনি।

ভারতীয় সেনা সূত্রে জানা যায়, প্রায় ৪০ মিনিট ধরে পাক অধিকৃত কাশ্মীরের আকাশে ছিল ভারতীয় বিমানবাহিনীর যুদ্ধবিমানগুলো। তবে ২১ মিনিট ধরে বোমাবর্ষণ চলেছে।

চকোটিতে বোমাবর্ষণ করা হয়েছে রাত ৩টা ৫৮ মিনিট থেকে ভোর ৪টা পর্যন্ত। মুজাফ্ফারাবাদে বোমাবর্ষণ চলে রাত ৩টা ৪৮ মিনিট থেকে ৩টে ৫৫ মিনিট পর্যন্ত। এই হামলায় ২০০ থেকে ৩০০ জন নিহত হয়েছে দাবি ভারতের।

অন্যদিকে পাকিস্তান হতাহতের কথা স্বীকার করেনি। এছাড়া এমন ইস্যুতে জাপান সফর স্থগিত করেছে পাকিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী শাহ মাহমুদ কুরেশি।

 এনডিটিভি, আনন্দবাজার

Comments

comments