ব্রেকিং নিউজ

বয়ফ্রেন্ড থাকলেই মেয়েদের চরিত্রহীন বলা ঠিক নয়- রাজনন্দিনী

বিনোদন ডেস্ক:

ছেলেদের অনেক গার্লফ্রেন্ড থাকলে সমস্যা হয় না, যেন গর্বের বিষয়। ‘এক যে ছিল রাজা’র গল্প করতে বসে বললেন রাজনন্দিনী’। বেরিয়ে এল আফশোস, ‘সৃজিত অভিনয় করার সময় আমায় বকল না কেন?’

‘এক যে ছিল রাজা’,জীবনের প্রথম ছবিতেই পরিচালক সৃজিত মুখোপাধ্যায়কে জড়িয়ে আপনার সঙ্গে নানা কথা!
প্রথমে একটা কথা বলি, ইন্ডাস্ট্রিতে প্রথম শুটের দিন আমাকে অপর্ণা সেনের মুখোমুখি অভিনয় করতে হয়েছিল। আমার অবস্থাটা নিশ্চয়ই আন্দাজ করতে পারছেন। ‘উড়নচণ্ডী’পরে শুট হয়। যদিও রিলিজ হয় আগে। আর সৃজিতের সঙ্গে এই সম্পর্কের গল্পটা কিন্তু লোকমুখে ছড়াল! আর সৃজিতকে দেখুন, ও সেদিনও মজা করে বলল, এতদিন ওর সঙ্গে পঁচিশ থেকে পঁয়ত্রিশ বছরের মেয়েদের নিয়ে কথা বলা হত। এখন উনিশ…।ওর ভালই লাগছে।
প্রেম নেই তাহলে?
ধুর। এখন তো কারওর সঙ্গেই প্রেম নেই। আমি কিন্তু চাই। আমার সব কিছু নিয়ে থাকবে এমন কেউ থাকুক।

যিশু সেনগুপ্তর বউ হবেন শুনে আপনি নাকি আনন্দে বাড়ি মাথায় করেছিলেন?
করব না? জাস্ট ভাবুন একবার। যিশু সেনগুপ্ত ছাড়াও আরও একজন আছে এই ছবিতে, আমার ব্যাড লাক সে আমার দাদার চরিত্র করছে। আসলে আগেকার দিনের সময় নিয়ে ছবি তো, তাই আমার একটাই বর হল। নয়তো অনির্বাণ ভট্টাচার্যের সঙ্গেও কিছু হতে পারত! তাই না? বেশ দুটো বর হত!আপনার নিশ্চয়ই খুব অদ্ভুত লাগছে আমি এ ভাবে কথা বলছি! আমি রেখেঢেকে কথা বলতে পারি না।যা মনে আসে বলে দিই। এক্সাইটমেন্ট চেপে রাখব কেন?

বেশ কয়েকটি সাক্ষাৎকারে আপনি বলেছেন, সৃজিত আপনাকে অন্য সকলের মতো ফ্লোরে একদম বকেনি!
হ্যাঁ। বকেনি ভেবে খুব আনন্দে ছিলাম। কিন্তু এখন মনে হচ্ছে, এ বাবা! আমায় কেন বকল না? তার মানে কি আমায় গাইড করল না? উফফ! এটা নিয়ে এখন টেনশন হচ্ছে!
আগের বিজয়া সম্মিলনীতে আলাপ। আর এ বারের পুজোয় ছবি…
ঠিক তাই। বুম্বা আঙ্কেলের বিজয়া সম্মিলনীতে সৃজিতের সঙ্গে বুম্বা আঙ্কেল আমায় আলাপ করিয়ে দেয়। ফোন নাম্বার শেয়ার করি আমরা।ওই দিন থিম ছিল ইন্ডিয়ান। আর মা আমায় সেটা বলেনি। সবাই শাড়ি পরে সেজে আর আমি ছেঁড়া জিন্স, শর্ট টপ। ওই পোশাকেই সৃজিত আমায় চন্দ্রাবতী ভেবেছিল!একেই বলে পরিচালকের চোখ।

Comments

comments