শহিদুল আলমের জামিন শুনানিতে বিব্রত হাইকোর্ট

প্রতিবেদক :
তথ্য ও যোগাযোগপ্রযুক্তি আইনের মামলায় আলোকচিত্রী শহিদুল আলমের জামিন আবেদনের শুনানিতে বিব্রত প্রকাশ করেছেন হাইকোর্ট। বিচারপতি মো. রুহুল কুদ্দুস ও বিচারপতি খন্দকার দিলীরুজ্জামানের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ শুনানিকালে আজ মঙ্গলবার এই বিব্রত প্রকাশ করেন।
বিব্রত প্রকাশের কথা নিশ্চিত করে শহিদুল আলমের আইনজীবী জ্যোতির্ময় বড়ূয়া জানান, এখন নিয়ম অনুযায়ী শুনানি আবেদনটি প্রধান বিচারপতির কাছে পাঠানো হবে। তিনি পরবর্তী শুনানির জন্য নতুন বিচারপতির বেঞ্চ নির্ধারণ করে দেবেন।  
এর আগে গতকাল সোমবার শহিদুল আলমের জামিন চেয়ে করা আবেদনের ওপর আজ মঙ্গলবার শুনানির দিন নির্ধারণ করেন হাইকোর্ট।
গত ৬ আগস্ট তথ্য ও যোগাযোগপ্রযুক্তি আইনে রমনা থানায় মামলাটি হয়। ওই দিনই ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি) শহিদুল আলমকে আদালতে হাজির করে। পরে তার সাত দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন আদালত।
পুলিশের রিমান্ড আবেদনে বলা হয়, আসামি শহিদুল আলম তার ফেসবুকের মাধ্যমে দেশি-বিদেশি আন্তর্জাতিক বিভিন্ন গণমাধ্যমে কল্পনাপ্রসূত অপপ্রচার চালাচ্ছেন। এর মাধ্যমে জনসাধারণের বিভিন্ন শ্রেণিকে শ্রুতিনির্ভর (যাচাই-বাছাই ছাড়া কেবল শোনা কথা) মিথ্যা তথ্য উপস্থাপন করে উসকানি দিয়েছেন, যা রাষ্ট্রের জন্য ক্ষতিকর। তিনি সরকারকে প্রশ্নবিদ্ধ ও অকার্যকররূপে আন্তর্জাতিক পরিমণ্ডলে উপস্থাপন করেছেন। আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতিসহ জনমনে ভীতি ছড়িয়ে দেওয়ার ষড়যন্ত্র এবং তা বাস্তবায়নের জন্য ইলেকট্রনিক মাধ্যমে প্রচার করেছেন শহিদুল আলম।
পরে ১৪ আগস্ট ঢাকার মহানগর দায়রা জজ আদালতে জামিন আবেদন করা হলে ১১ সেপ্টেম্বর শুনানির জন্য দিন ধার্য করা হয়। এর পর ১৯ আগস্ট শুনানির তারিখ এগিয়ে নেওয়ার জন্য আবেদন করা হলে তা গ্রহণ করেননি আদালত। এ অবস্থায় ২৬ আগস্ট শহিদুল আলমের অন্তবর্তীকালীন জামিন চাইলে ওই আদালত শুনানির জন্য তা গ্রহণ করেননি। পরে গত ২৮ আগস্ট এ মামলায় শহিদুল আলমের জামিন চেয়ে হাইকোর্টে আবেদন করেন তার আইনজীবীরা।

Comments

comments