সংবাদকর্মীদের জন্য ফিস্টুলা-বিষয়ক যোগাযোগ কর্মশালা 


মুশফিকুর রহমান।।
বিশ্ব ফিস্টুলা দিবস ২০১৮ উপলক্ষে ফিস্টুলা নিরাময়ে সচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষে ইউনিভার্সিটি ফিস্টুলা সেন্টার, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের উদ্যোগে ‘মিডিয়া লিডার ওয়ার্কশপ অন ফিস্টুলা কমিউনিকেশন’ শীর্ষক এক কর্মশালার আয়োজন করা হয়।
নারীদের ফিস্টুলা প্রতিরোধ ও প্রতিকার নিয়ে গত মঙ্গলবার প্রেস ইনস্টিটিউট অব বাংলাদেশে (পিআইবি) গণমাধ্যমকর্মীদের এক কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়েছে। প্রেস ইনস্টিটিউট অব বাংলাদেশ (পিআইবি) ঢাকা সাব-এডিটর কাউন্সিল ও ফিস্টুলা কেয়ার প্লাস প্রকল্প এনজেন্ডারস বাংলাদেশ এর সহযোগিতায় আয়োজিত কর্মশালায় প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্হিত ছিলেন স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের (স্বাস্থ্য শিক্ষা ও আইন) অতিরিক্ত সচিব কাজী এ কে এম মহিউল ইসলাম। সভায় বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্হিত ছিলেন অধ্যাপক সায়েবা আক্তার এশিয়ান রিপ্রেজেটেটিভ (আইএসওএফএস)। রাফিজা রহমান,সিনিয়র প্রশিক্ষক, পিআইবি। বিধান চন্দ্র কর্মকার, পরিচালক, পিআইবি।কে এম শহিদুল হক সভাপতি, ঢাকা সাব-এডিটর কাউন্সিল।
কর্মশালায় লক্ষ্-উদ্দেশ্য তুলে ধরে প্রেজেন্টশন উপস্থাপন করেন ও এনজেন্ডারহেলথের ফিস্টুলা কেয়ার প্রজেক্টের কান্টি ম্যানেজার ডা: শেখ নাজমুল হুদা। উপস্থাপনায় আরো ছিলেন ডা: ইসরাত জাহান।
দিনব্যাপী কর্মশালায় মহিলাজনিত ফিস্টুলা আফ্রিকা ও এশিয়ার কিছু দেশের মত বাংলাদেশেও একটি উল্লেখযোগ্য নারী স্বাস্হ সমস্যা। ২০১৬ সালে পরিচালিত জাতীয় মাতৃমৃত্যু সমীক্ষায় প্রতিবেদন অনুযারী বাংলাদেশে ১৯,৫০০ মহিলা বর্তমানে ফিস্টুরা রোগে আক্রান্ত। জাতিসংঘ ২০৩০ সালের মধ্যে প্রসবজনিত ফিস্টুলা নির্মুলের আহ্বান জানিয়েছে।বাংলাদেশও এ লক্ষ অর্জনে কাজ করে যাচ্ছে।
কর্মশালায় বলা হয়, নারীদের যৌনি পথ বা মাসিকের রাস্তা দিয়ে যাদের অনবরত প্রশ্রাব ঝরে তারাই ফিস্টুলা রোগে আক্রান্ত রোগী। শতকরা নব্বই ভাগ ফিস্টুলাই সন্তান প্রসবকালে আঘাতের মাধ্যমে হয়ে থাকে। চিকিৎসার মাধ্যমে এ রোগ সারানো যায়। এর চিকিৎসায় কোনো অর্থই ব্যয় না। দেশে বিনামূল্যে এ রোগের চিকিৎসা করা হচ্ছে।
২০৩০ সালের মধ্যে দেশে থেকে ফিস্টুলা মুক্ত করার লক্ষে স্বাস্হ ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রনালয় দেশের সব রোগীর জন্য সর্বোচ্চ চিকিৎসার ব্যবস্হা এবং ২০৩০ সালের পর যেন নতুন কেউ ফিস্টুলায় আক্রান্ত না হয় সেটিা নিশ্চিত করা এবং সব ফিস্টুলা রোগীদের পূনর্বাসন চাহিদা পূরণ করার জন্য ২য় জাতীয় ফিস্টুলা কৌশলপত্র প্রণয়ন করেছে।ঢাকা সাব-এডিটর কাউন্সিল এর নির্বাচিত ৩০ জন ইলেকট্রনিক ও প্রিন্ট মিডিয়ার সংবাদকর্মী ও দেশের প্রত্যান্ত  এলাকার ১১জন কমিউনিটি রেডিও এর স্টেশন ম্যানেজারদের নিয়ে আয়োজিত এই কর্মশালায় মহিলাজনিত ফিস্টুলা প্রতিরোধে কমিনিটি রেডিও ও সংবাদ মাধ্রমের ভূমিকা সম্পর্কে বিশেষ ভাবে আলোকপাত করা হয়। দেশের বিভিন্ন প্রান্তে যেসব মহিলা এই সমস্যায় ভূগছেন তাদের চিকিৎসা ও পুনর্বাসনের আওতায় আনার জন্য এই কর্মশালার আয়োজন করা হয়।
ইউএসএইড, ফিস্টুলা কেয়ার প্লাস, ঢাকা সাব এডিটরস কাউন্সিল ও এনজেন্ডারহেলথের উদ্যোগে কর্মশালাটি আয়োজন করা হয়।

 

Comments

comments