জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সেনা মোতায়েন হবে- সিইসি


প্রতিবেদক :
প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কেএম নূরুল হুদা বলেছেন, আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সেনাবাহিনী মোতায়েন থাকবে। নির্বাচন কমিশনের সাথে আলাপ আলোচনার পর আগামী নির্বাচনে সেনাবাহিনীর উপস্থিতির বিষয়টি নিশ্চিত করা হবে। এ সময় সিইসি বলেন, নির্বাচন কমিশন আকুল আহবান জানায়, যেন সকল রাজনৈতিক দল জাতীয় নির্বাচনে অংশগ্রহণ করে এবং নির্বাচন প্রতিযোগিতামূলক হয়। 

বুধবার সকালে বরিশাল সার্কিট হাউজের হলরুমে বরিশাল ও ফরিদপুর অঞ্চলের নির্বাচন কর্মকর্তাদের ইলেক্ট্রনিক ভোটিং মেশিনের (ইভিএম) উপর প্রশিক্ষন কর্মসূচির উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ শেষে সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের জবাবে এসব কথা বলেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার কে এম নূরুল হুদা। 

এ সময় সিইসি বলেন, বিএনপি আগামী জাতীয় নির্বাচনে আসবে বলে প্রত্যাশা করে নির্বাচন কমিশন। তবে কোন রাজনৈতিক দল নির্বাচনে আসবে কি আসবেনা সে ব্যাপারে নির্বাচন কমিশনের আলাদাভাবে উদ্যোগ গ্রহণ করার কোন সুযোগ নেই। 

আগামী ৩০ জুলাইয়ের বরিশাল সিটি নির্বাচন অবাধ, সুষ্ঠু এবং সুন্দর করার সক্ষমতা বরিশালের প্রশাসনের আছে বলে মনে করেন সিইসি। 

ইভিএম পুরোপুরি কার্যকর হলে ভোটে অনিয়মের অভিযোগ করার কোন সুযোগ থাকবেনা বলে জানান তিনি। 

খুলনার সিটি নির্বাচনে অনিয়মের অভিযোগ প্রসঙ্গে সিইসি বলেন, স্থানীয় সরকার এমনকি জাতীয় সংসদ নির্বাচনে দুই একটা অনিয়মের ঘটনা ঘটতে পারে। অনিয়ম, সংঘাত হবেনা- এমনটা নিশ্চিত করে বলা যায় না। কোথাও অনিয়ম হলে তাৎক্ষণিক ভোট গ্রহণ বন্ধসহ ওই কেন্দ্রে পুনরায় ভোট গ্রহণ করা হবে। সর্বোপরি ভোট সুষ্ঠু ও সুন্দর করার জন্য নির্বাচন কমিশন সহ প্রশাসন প্রানপণ চেষ্টা করে যাচ্ছে বলে জানান সিইসি। 

এর আগে বরিশালের জেলা প্রশাসক মো. হাবিবুর রহমানের সভাপতিত্বে বরিশাল ও ফরিদপুর অঞ্চলের নির্বাচন কর্মকর্তাদের ইলেক্ট্রনিক ভোটিং মেশিনের (ইভিএম) উপর প্রশিক্ষণ কর্মসূটির উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান নির্বাচন কমিশনার কে এম নূরুল হুদা বলেন, কাগুজে ভোট জটিলতার সৃষ্টি করে। নির্বাচন কমিশন এই ঝুঁকি থেকে বেড়িয়ে আসতে চায়। ইভিএম’র মাধ্যমে ভোটের সকল অনিয়ম-অনাচার এবং ঝুঁকি থেকে নির্বাচন কমিশন বেড়িয়ে আসতে চায়। 

অনুষ্ঠানে বিভাগীয় কমিশনার মো. শহীদুজ্জামান, নির্বাচন প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউটের মহাপরিচালক মোস্তফা ফারুক, বরিশাল মেট্রোপলিটন পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কমিশনার মাহফুজুর রহমান, আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তা মো. মুজিবুর রহমান বক্তব্য রাখেন।

এছাড়া ইভিএম বিষয়ক উপস্থাপনা করেন জাতীয় পরিচয় নিবন্ধন অনুবিভাগের মহাপরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মোহাম্মদ সাইদুল ইসলাম। প্রশিক্ষণ কর্মসূচিতে বরিশাল ও ফরিদপুর অঞ্চলের ৬০জন নির্বাচন কর্মকর্তা অংশগ্রহণ করেন। 

এছাড়া বরিশালের বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক, সাংস্কৃতিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ, জনপ্রতিনিধিবৃন্দ, সুশীল সমাজের প্রতিনিধিরা উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।

Comments

comments