ব্রেকিং নিউজ

খালেদা জিয়ার সাজার পেছনে এরশাদের যোগসাজশ রয়েছে : কর্নেল অলি


প্রতিবেদক :

অবিলম্বে বেগম খালেদা জিয়া মুক্তি দাবি করে লিবারেল ডেমোক্র্যাটিক পার্টি (এলডিপির) সভাপতি কর্নেল অলি আহমদ বলেছেন, নির্বাচন থেকে দূরে রাখার জন্য, বিএনপিকে ধ্বংস করার জন্য বেগম খালেদা জিয়াকে অন্যায়ভাবে সাজা দেয়া হয়েছে। এটা সরকারের পূর্ব পরিকল্পনার অংশ বলে আমরা মনে করি।

তিনি শনিবার এক সংবাদ সম্মেলনে বলেন, পুরাতন ঢাকার ‘পরিত্যক্ত’ কারাগারে খালেদা জিয়াকে বন্দি রাখার পেছনে সরকারের সাথে এরশাদের যোগসাজস রয়েছে। আমরা শুনেছি তাকে (খালেদা জিয়া) কয়েদির কাপড় পড়ানো হয়েছে এবং পুরনো একটি জেলে রাখা হয়েছে। এটা কী কারণে করা হলো? আমি তো মনে করি এরশাদ মুক্ত আছে। তাকে নাজিমউদ্দিন রোডের কারাগারে রাখা হয়েছিলো। এটা হয়ত সরকার, আওয়ামী লীগ এবং এরশাদ ঐক্যবদ্ধভাবে এই কাজটা করেছে। একটা পরিত্যক্ত জেলে তাকে (খালেদা জিয়া) নেবার প্রয়োজন ছিলো না।

রাজধানীর তেজগাঁওয়ে ২০ দলীয় জোটের অন্যতম শরিক এলডিপি) এই সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করে। সংবাদ সম্মেলনে এলডিপির মহাসচিব রেদোয়ান আহমেদ, প্রেসিডিয়াম সদস্য আবদুল করীম আব্বাসী, আবদুল গনি, কামালউদ্দিন মোস্তফা, সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব শাহাদাত হোসেন সেলিম প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

কর্নেল অলি প্রশ্ন রেখে বলেন, সরকার তো দুইটা নতুন জেল নির্মাণ করেছে। কেরানিগঞ্জে হয়েছে, কাশিমপুরে হয়েছে। উনাকে স্বসম্মানে সেখানে রাখতে পারতো। বেগম খালেদা জিয়াকে নিজ বাসায় পাহারা দিয়ে রাখতে পারতো। এখানে তো জেল কোডের অবমাননা হতো না। বর্তমান প্রধানমন্ত্রী ও খালেদা জিয়াকেও ২০০৭ সালে সেনা সমর্থিত সরকার স্বসম্মানে সংসদ ভবনের দুইটা বাসায় রাখা হয়েছিলো। এই রকম একটা জায়গায় বেগম জিয়াকে কেনো রাখা হলো না, বর্তমান সরকারকে তার জবাব একদিন দিতে হবে।

তিনি বলেন, সাবেক প্রধানমন্ত্রী হিসেবে, সাবেক সেনা প্রধানের স্ত্রী হিসেবে, সাবেক রাষ্ট্রপতির স্ত্রী হিসেবে, মুক্তিযুদ্ধের ঘোষকের স্ত্রী হিসেবে বেগম খালেদা জিয়া যদি ডিভিশন না পান তাহলে বাংলাদেশে আর কে ডিভিশন পাওয়ার যোগ্য বলে প্রশ্ন রাখেন অলি আহমেদ।

খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে বিএনপির দেয়া সকল কর্মসূচির সাথে একাত্মতা প্রকাশ করেন অলি আহমেদ বলেন, নির্বাচন থেকে দূরে রাখার জন্য, বিএনপিকে ধ্বংস করার জন্য বেগম খালেদা জিয়াকে অন্যায়ভাবে সাজা দেয়া হয়েছে। এটা সরকারের পূর্ব পরিকল্পনার অংশ বলে আমরা মনে করি। আমরা অবিলম্বে বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবি জানাচ্ছি। এই দাবিতে বিএনপি যেসব কর্মসূচি দিচ্ছে তার প্রতি আমরা পূর্ণ সমর্থন জানাচ্ছি।

Comments

comments