শিবগঞ্জে গঙ্গা স্নান উপলক্ষে হিন্দু ধর্মাম্মবলীদের মিলন মেলা


শিবগঞ্জ সংবাদদাতা: প্রতিবছরের ন্যায় এবারও  বুধবার দিনব্যাপী  শিবগঞ্জ পৌর এলাকার তর্ত্তীপুর শ্মশানে মাকরী সপ্তমী মহাপূর্ণ স্নান উপলক্ষ্যে হিন্দু ধর্মাম্মবলীদের মিলন মেলা অনুষ্ঠিত হয়েছে। তবে এবছর  প্রচন্ড শীতের কারনে পূন্যার্থীর সংখ্যা কিছুটা কম ।  এ উপলক্ষ্যে শুধু স্থানীয় হিন্দু ভক্তদের অতি সকাল থেকে  তর্ত্তিপুর শ্মশান ঘাট এলাকায় গণ জমায়েত শুরু হয়। হিন্দুদের এ গনজমায়েত কে উদ্দেশ্য করে তর্ত্তীপুর ঘাট এলাকায় প্রতিবছরের ন্যায় এবছরও গড়ে উঠেছে মেলা। মেলা চলবে ৩ দিন।

তর্ত্তিপুর মেলা ও মহাশ্মশান কমিটির  সহসভাপতি শ্রী প্রদীপ কুমার বড়ুয়া জানান,হিন্দু শাস্ত্র মতে ভাগীরতি গঙ্গা নদীর জল প্রবাহ নিয়ে বাংলাদেশে আশার সময় তর্ত্তীপুর ঘাট এলাকায় শ্মশানের পাশে পৌঁছলে নিম গাছের নীচে জাহ্নবীমনির আশ্রম থেকে তাদের দেবতা জাহ্নবীমনি গঙ্গার জল ভূলবশতঃ পান করে ফেলে। এতে ভাগীরতি ক্ষুব্ধ হলে জাহ্নবীমনি তার জান কেটে সেই জল বের করে দেয় এবং গঙ্গা মুক্ত হয়। সেই থেকে গঙ্গার এই জল প্রবাহ বলে হিন্দু ধর্মাম্মবলীরা বিশ্বাস করে। আর এই উপলক্ষ্যে এই দিনে বাংলাদেশের  উত্তর বঙ্গের বিভিন্ন জেলা  থেকে পূর্ণ লাভের আশায় লক্ষাধিক হিন্দু ধর্মাম্মবলীরা জমায়েত হন। স্নান শেষে অধিকাংশ হিন্দুদের দই চিড়া ভোজ খেয়ে গঙ্গার জল সাথে নিয়ে নিজ নিজ বাড়ীতে ফিরে যান। মেলায় কীর্তন, গীতা পাঠ ও ধর্ম সভা অনুষ্ঠিত হয়। 
অন্যদিকে শিবগঞ্জের তর্ত্তীপুর মেলা ও মহাশ্মশান কমিটির  সাধারন সম্পাদক কমল কুমার ত্রিবেদী জানান, পবিত্র এ স্নান উপলক্ষে প্রশাসনের বাড়তি নিরাপত্তা নেয়া হয়েছে। সেসাথে সাদা পোষাকে মেলা প্রাঙ্গনে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর তৎপরতা  লক্ষ্য  করা গেছে।

Comments

comments