জঙ্গি নির্মূলে যুক্তরাষ্ট্রের সাথে যৌথ অভিযানের প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান পাকিস্হানের

আন্তর্জাতিক ডেস্ক :

পাকিস্তানের মাটিতে যুক্তরাষ্ট্রের সাথে যৌথ অভিযান চালানোর প্রস্তাবকে সরাসরি নাকচ করে দিয়েছে পাকিস্তান। এ নিয়ে চলতি সপ্তাহে অনুষ্ঠিত দুই দেশের আলোচনা কোন সমাধান ছাড়াই শেষ হয়। কূটনৈতিক সূত্রে এ খবর জানা গেছে।

গত মঙ্গলবার (৫ ডিসেম্বর) পাকিস্তানের বেসামরিক ও সামরিক নেতৃবৃন্দের সাথে পৃথক বৈঠকে মার্কিন প্রতিরক্ষা মন্ত্রী জেমস ম্যাটিস উপজাতীয় এলাকায় হাক্কানি নেটওয়ার্কের বিরুদ্ধে যৌথ অভিযান চালানোর প্রস্তাব দেন। তবে পাকিস্তানের নেতারা এ প্রস্তাব সরাসরি নাকচ করে দেন।

সূত্র জানিয়েছে, দু’পক্ষের আলোচনা মূলত সমাধান ছাড়াই শেষ হয়েছে। কারণ যৌথ সামরিক অভিযানের প্রস্তাবে ইসলামাবাদ একমত হয়নি। তবে, ম্যাটিসকে এটা জানানো হয়েছে, যুক্তরাষ্ট্রের পক্ষ থেকে জঙ্গি গ্রুপগুলোর ব্যাপারে সুস্পষ্ট তথ্য দেয়া হলে ব্যবস্থা নেবে পাকিস্তান। কিন্তু পাকিস্তানের মাটিতে অন্য কোন দেশের অভিযান চালানো কোনভাবেই গ্রহণযোগ্য নয়।

পাকিস্তান সফরে প্রধানমন্ত্রী শাহিদ খাকান আব্বাসি ও সেনাপ্রধান জেনারেল কমর জাভেদ বাজওয়ার সঙ্গে বৈঠক করেন ম্যাটিস। বৈঠকের পর তিন পক্ষ থেকে তিনটি আলাদা বিবৃতি দেয়া থেকেই বোঝা গিয়েছিল তাদের মধ্যে ব্যাপক মতপার্থক্য রয়ে গেছে।

সীমান্তে সন্ত্রাস কমাতে আলোচনায় পাকিস্তানের পক্ষ থেকে দু’টো পরিস্কার দাবি রাখা হয়েছে। প্রথমত, পাকিস্তান তার সীমান্তে বেড়া দেয়ার পর, আফগানিস্তানও যেন তাদের সীমান্তে বেড়া দেয়, সে জন্য তাদেরকে চাপ দিতে হবে যুক্তরাষ্ট্রকে। দ্বিতীয়ত, পাকিস্তান থেকে আফগান শরণার্থীদের ফিরিয়ে নিতে যুক্তরাষ্ট্রকে ভূমিকা রাখতে হবে। যাতে পাকিস্তানের মাটিতে এই শরণার্থীদের ভিড়ে জঙ্গিরা লুকিয়ে থাকতে না পারে।

“যুক্তরাষ্ট্র যদি এই দুটি কাজ করতে পারে, তবে পাকিস্তান প্রতিশ্রুতি দেবে যাতে আফগান সীমান্ত এলাকায় জঙ্গি তৎপরতা চালানোর জন্য কোনভাবেই তাদের মাটি ব্যবহার করা না হয়”, বৈঠকের সংশ্লিষ্ট একটি সূত্র এ তথ্য জানিয়েছে।

সূত্র জানিয়েছে, আন্তরিক পরিবেশে দু’পক্ষের বৈঠক হয়েছে। আফগানিস্তানে ভারতের সামরিক অবস্থান নিয়ে পাকিস্তানের উদ্বেগের বিষয়টিও বিবেচনায় নিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। দক্ষিণ এশিয়ার পারমাণবিক অস্ত্রধারী দুই দেশের বিরোধ মেটাতে বিশেষ করে কাশ্মীর ইস্যুতে ভূমিকা রাখারও ইঙ্গিত দিয়েছে তারা।

প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প চলতি বছরের আগস্টে যে দক্ষিণ এশিয়া নীতি ঘোষণা করেন, যুক্তরাষ্ট্র তা সংশোধন করবে বলে আত্মবিশ্বাসী পাকিস্তান। আফগানিস্তানে ভারতের ভূমিকা জোরদার করার যে কৌশল নিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র, পাকিস্তান তাতে জোড়ালো আপত্তি জানিয়েছে।

এর আগে, মার্কিন প্রতিরক্ষা দফতরের মুখপাত্র দি নিউজ’কে জানান, যুক্তরাষ্ট্র পরিস্কার করে তাদের দাবির কথা জানিয়েছে যাতে পাকিস্তানের মাটিতে সক্রিয় সন্ত্রাসী ও জঙ্গি দলগুলোর বিরুদ্ধে সুস্পষ্ট পদক্ষেপ নেয়া হয়।

দি নিউজের এক প্রশ্নের জবাবে ওয়াশিংটন থেকে স্টেট ডিপার্টমেন্টের মুখপাত্র ই-মেইলে জানিয়েছেন, “জঙ্গি দলগুলোর তৎপরতা কমাতে এবং তালেবান ও আফগানিস্তান সরকারের মধ্যে শান্তি আলোচনা নিশ্চিত করতে সুনির্দিষ্ট কি পদক্ষেপ নেয়া যেতে পারে, সে ব্যাপারে পাকিস্তানকে জানিয়েছেন তারা।”

Comments

comments