নোবিপ্রবি’র দুই শিক্ষক চাকরি থেকে বরখাস্ত


নোয়াখালী প্রতিনিধি:

বিশ্ববিদ্যালয়ের বিধি লংঘনের অভিযোগে নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (নোবিপ্রবি) দুই শিক্ষককে স্থায়ীভাবে চাকরি থেকে বরখাস্ত করা হয়েছে।  

বরখাস্তকৃতরা হলেন নোবিপ্রবি মাইক্রোবায়োলজি বিভাগের সহকারি অধ্যাপক মো. মাসুদ আলম এবং ফার্মেসি সহকারি অধ্যাপক বিভাগের বিশ্বনাথ দাস।গত ৩০ আগষ্ট এবং ২১ অক্টোবর ২০১৭ অনুষ্ঠিত নোবিপ্রবি রিজেন্ট বোর্ডের ৩১ ও ৩২ তম সভার সিদ্ধান্ত অনুযায়ী তাদেরকে বরখাস্ত করা হয়।  

বুধবার (২৫-১০-২০১৭) বিকালে নোবিপ্রবি জনসংযোগ কর্মকর্তা ইফতেখার হোসাইন রাজুর স্বাক্ষরিত এক প্রেস বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে এ তথ্য জানা গেছে।  

জনসংযোগ কর্মকর্তা সূত্রে জানা যায়, মাইক্রোবায়োলজি বিভাগের শিক্ষক মো. মাসুদ আলম ২০১২ সালের অক্টোবরে পিএইচডি ডিগ্রি করতে শিক্ষাছুটিতে জাপান যান। পিএইচডি সম্পন্ন করে নিয়মানুযায়ী তার বিভাগে যোগদান করার কথা। কিন্তু তিনি যোগদান না করে কর্তৃপক্ষের অনুমতি এবং জিও (সরকারি আদেশ) ব্যতিত ২০১৭ সালে এর ৩০ জুলাই পুনরায় দেশত্যাগ করেন। এমন পরিস্থিতিতে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন জাতীয় দুটি পত্রিকায় তাকে কারণ দর্শানোর চূড়ান্ত নোটিশ দেন। কিন্তু তিনি ওই নোটিশেরও কোনো জবাব দেননি।  

এদিকে ফার্মেসি বিভাগের শিক্ষক বিশ্বনাথ দাস ২০১০ এর সেপ্টেম্বরে পিইচডি করতে কোরিয়ায় যান। তিনি ২০১৬ এর ৩১ আগস্ট পর্যন্ত শিক্ষাছুটি ভোগ করেন।

ছুটির মেয়াদ শেষে বিধি অনুযায়ী বিভাগে যোগদানের প্রশাসনিক নির্দেশনা থাকলেও তিনি যোগদান করেননি এবং কর্মস্থলে অনুপস্থিত থাকেন। পরবর্তীতে পত্রিকায় বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের মাধ্যমে এর কারণ জানতে চাওয়া হলে, অনুপস্থিতির কোনো সদুত্তর এবং অদ্যবধি তার কোনো অবস্থান নিশ্চিত হওয়া যায়নি।  
এমতাবস্থায় বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ উক্ত দুই শিক্ষককে বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন ও বিধি লংঘনের অভিযোগে চাকরি হতে স্থায়ীভাবে বরখাস্ত করে এবং তাদেরকে বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল দেনা পরিশোধের নির্দেশ প্রদান করে।

Comments

comments