ব্রেকিং নিউজ

হজযাত্রীদের সাথে প্রতারণা, ১৮ এজেন্সির অনিয়ম তদন্তে দুদক


প্রতিবেদক :

১৮ হজ এজেন্সির বিরুদ্ধে অনিয়মের বিরুদ্ধে অনুসন্ধানে নেমেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।

দুদকের প্রধান কার্যালয় থেকে এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত হওয়ার পর বৃহস্পতিবার দুদকের উপপরিচালক জুলফিকার আলীকে অনুসন্ধান কর্মকর্তা হিসেবে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। বিষয়টি তদারক করবেন দুদকের মহাপরিচালক মোহাম্মদ মুনীর চৌধুরী। দুদকের জনসংযোগ কর্মকর্তা প্রনব কুমার ভট্টাচার্য এ তথ্য জানিয়েছেন।

দুদক সূত্রে আরো জানায়, ১৮টি হজ এজেন্সির বিরুদ্ধে অনিয়মের অভিযোগ উঠার পর দুদকের কাছে ওই এজেন্সিগুলোর বিরুদ্ধে সুনিদিষ্ট অভিযোগ আসে। ওই অভিযোগ ও বিভিন্ন মিডিয়ায় প্রকাশিত তথ্য আমলে অনুসন্ধানের সিদ্ধান্ত নেয় দুদক।

এর আগে মঙ্গলবার এক ব্রিফিংয়ে সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান ধর্ম মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম-সচিব হাফিজুর রহমান জানান, ভিসা পাওয়ার পরেও হজে যেতে না পেরে ৯৮জন হজযাত্রী ১৮টি হজ এজেন্সির বিরুদ্ধে অভিযোগ করেছেন। আর ভিসা পেয়েও হজে যেতে পারেননি ৩৬৭ জন।

তিনি বলেন, এবার ১ লাখ ২৭ হাজার ৫৯৬ জন বাংলাদেশি হজে যাওয়ার ভিসা পেয়েছিলেন। এদের মধ্যে ১ লাখ ২৭ হাজার ২২৯ জন সৌদি গিয়েছেন। সেই হিসেবে ৩৬৭ জন বিভিন্ন কারণে হজে যেতে পারেননি।

হাফিজুর রহমান বলেন, সব রিপোর্ট পাওয়ার পর কতজন হজে যাননি সেই সংখ্যাটা নিশ্চিত করে বলা যাবে। ৯৮ জন হজযাত্রী অভিযোগ করেছেন তাদের হজে যাওয়ার ইচ্ছে থাকা সত্ত্বেও হজে যেতে পারেননি। তাদের পাসপোর্ট ছিল, ভিসা ছিল, কিন্তু টিকেট ছিল না। হজ এজেন্সির প্রতিনিধিও হজ ক্যাম্পে উপস্থিত ছিলেন না। আমাদের কাছে ৯৮ জন হজ যাত্রীর অভিযোগ রেকর্ডভুক্ত হয়েছে।

অন্যদিকে ওই একই দিন হজ ব্যবস্থাপনায় অনিয়মের সঙ্গে জড়িত ট্রাভেল এজেন্সিগুলোকে চিহ্নিত করে তাদের লাইসেন্স বাতিল ও প্রয়োজনে জরিমানা করার জন্য বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়কে সুপারিশ করেছে সংসদীয় কমিটি। এ ছাড়া আগামী হজ মৌসুমে বিমানের টিকিট বুকিং দেওয়ার সময় এজেন্সিগুলোর কাছ থেকে টিকিটের সম্পূর্ণ টাকা পরিশোধ সাপেক্ষে টিকিট দেওয়ার সুপারিশ করা হয়েছে কমিটি থেকে। 

Comments

comments