ব্রেকিং নিউজ

‘শিক্ষিত সমাজই বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করেছে’-সুভাষ সিংহ রায়

প্রতিবেদক:

রাজনৈতিক বিশ্লেষক কলামিস্ট সুভাষ সিংহ রায় বলেছেন, শিক্ষিত সমাজই বঙ্গবন্ধু হত্যার সঙ্গে জড়িত। হত্যার পর অনেকেই বঙ্গবন্ধুর সাফাই গেয়েছেন। তারাই এখন সাধারণ মানুষের সাথে মিশে গেছেন।

১০ আগস্ট বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় বাংলাদেশ প্রেস ইনস্টিটিউট (পিআইবি) সেমিনার কক্ষে বাংলাদেশ অনলাইন মিডিয়া এসোসিয়েশন (বিওএমএ) আয়োজিত ‘বঙ্গবন্ধু হত্যাকান্ড ও গণমাধ্যমের ভূমিকা’ শীর্ষক আলোচনা সভায় তিনি এ সব কথা বলেন।

সুভাষ সিংহ রায় বলেন, স্বাধীনতার পর অনেক সংবাদ মাধ্যম বাংলাদেশের ইতিহাস, জাতির পিতার ভূমিকা ও জাতীয় পতাকার ইতিহাস বিকৃত করেছেন।

তিনি বলেন, আমরা এর তীব্র নিন্দা জানাই। আমরা চাই গণমাধ্যম সব সময় সত্য প্রকাশ করবে এবং সত্যকে তুলে ধরবে। তাহলে আমাদের আগামী প্রজন্ম সঠিক ইতিহাস জানবে।
জাতীয় পার্টি চেয়ারম্যান এইচ এম এরশাদকে উদ্দেশ্য করে তিনি বলেন, এরশাদ সকালে এক বক্তব্য দেন বিকেলে আরেক বক্তব্য দেন। তিনিই জিয়াউর রহমানের মৃত্যুর পর অনেককেই জানাজায় যেতে বাধ্য করেছেন।
তিনি বলেন, ১৯ বার বঙ্গবন্ধুর কন্যা শেখ হাসিনাকে হত্যার চেষ্টা করা হয়েছে। ডিজিটাল দেশ গড়তে তিনি অক্লান্ত পরিশ্রম করছেন। আমরা তার সাথে আছি।

অনুষ্ঠানে বিওএমএ-এর সহ-সভাপতি আজকের সংবাদের সাব-এডিটর সৈয়দ মুসফিকুর রহমান বলেন, বঙ্গবন্ধুর কারনেই আজ বাংলাদেশের মানুষ বাকস্বাধীনতা পেয়েছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কল্যানেই দেশের সংবাদপত্র স্বাধীনতা ভোগ করছে। ১৯৭৫ সালে বঙ্গবন্ধুকে সপরিবারে হত্যা করে সংবিধানে কুখ্যাত ‘ইনডেমনিট ‘ অধ্যাদেশ জারি করে হত্যা কান্ডের বিচার রহিত করে দেয় সামরিক সরকার।

বিও্এমএ‘র সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আলতাফ মাহমুদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন- সাবেক ছাত্রনেতা তরুণ রাজনীতিবিদ এডভোকেট মির্জা মাহাবুব বাচ্চু, সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ লুঃফুর রহমান অর্থ সম্পাদক সাব্বির আহমেদ রনি, সন্ধি নিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকমের সম্পাদক আফরোজা বেগম শিরিন কাজী ছপলসহ আরো অনেকে।অনুষ্ঠানে মুল প্রবন্ধ উপস্হাপন করেন বিওএমএর সাধারণ সম্পাদক সৌমিত্র দেব।

Comments

comments