ব্রেকিং নিউজ

স্ত্রী-শাশুড়িসহ ধর্ষক তুফান ফের রিমান্ডে

প্রতিবেদক:
বগুড়ায় ছাত্রী ধর্ষণ ও পরে মাসহ ওই ছাত্রীকে নির্যাতনের ঘটনায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনের মামলায় তুফান সরকার, তাঁর স্ত্রী আশা সরকার, শাশুড়ি রুমি বেগম ও সহযোগী মুন্নার ফের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত।
মামলার তদন্ত কর্মকর্তা বগুড়া সদর মডেল থানার পরিদর্শক (অপারেশন) আবুল কালাম আজাদ আজ বুধবার বিকেলে চার আসামিকে অতিরিক্ত মুখ্য বিচারিক হাকিম আদালতে হাজির করে সাতদিনের রিমান্ড আবেদন করেন। আদালতের বিচারক শ্যামসুন্দর রায় তুফান সরকার ও মুন্নার দুদিনের এবং আশা ও রুমির একদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

এ ছাড়া মা-মেয়ের মাথা ন্যাড়া করে দেওয়ার কথা স্বীকার করে আদালতে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দেন নাপিত জীবন। পরে তাঁকে জেলহাজতে পাঠানোর আদেশ দেন আদালত। এ ছাড়া আসামি তুফানের শ্বশুর জাহিদুল, সহযোগী দিপু, আলী আজম ও রূপম এবং গাড়িচালক জিতুকে জেলহাজতে পাঠানো হয়।
মামলার এজাহারে বলা হয়েছে, আসামি তুফান সরকার ও তাঁর সহযোগীরা এসএসসি পাস এক ছাত্রীকে ভালো কলেজে ভর্তি করার কথা বলে গত ১৭ জুলাই শহরের নামাজগড় এলাকায় তাঁদের বাড়িতে নিয়ে ধর্ষণ করেন। পরে এ ঘটনা কাউকে না জানাতে ভয়ভীতি দেখিয়ে বাড়ি পাঠিয়ে দেন। ধর্ষণের ঘটনা ভিন্ন খাতে প্রবাহিত করতে গত শুক্রবার বিকেলে তুফান সরকারের স্ত্রী আশা ও তাঁর বড় বোন বগুড়া পৌরসভার সংরক্ষিত ওয়ার্ডের নারী কাউন্সিলর মার্জিয়া আক্তার রুমকিসহ কয়েকজন মিলে ওই ছাত্রী ও তাঁর মাকে বেধড়ক পিটিয়ে মাথা ন্যাড়া করে দেন। তাঁদের বগুড়ার শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

Comments

comments