বঙ্গপসাগরে নিম্নচাপঃ ধেয়ে আসছে শক্তিশালী ঘূণিঝড় রোয়ানু

cyclone-thebdexpress

দ্য বিডি এক্সপ্রেস ডটকমঃ

পশ্চিম-মধ্য বঙ্গোপসাগর ও কাছাকাছি এলাকায় অবস্থানরত নিম্নচাপটি আরও উত্তর দিকে অগ্রসর ও ঘণীভূত হয়ে ঘূর্ণিঝড় ‘রোয়ানু’তে রূপ নিয়ে একই এলাকায় অবস্থান করছে।

ঘূর্ণিঝড় কেন্দ্রের কাছাকাছি এলাকায় সাগর খুবই উত্তাল রয়েছে। চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, মংলা ও পায়রা সমুদ্রবন্দরকে ১ নম্বর দূরবর্তী সতর্ক সংকেত নামিয়ে ২ নম্বর দূরবর্তী হুঁশিয়ারি সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে।

আবহাওয়াবিদ রুহুল কুদ্দুস বিবিসিকে জানান, ঝড়টি কক্সবাজার থেকে ১৩৩৫ কিলোমিটার দূরে অবস্থান করছে। আজ রাতে ঝড়টি আরো ঘনীভূত হওয়ার সম্ভাবনা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার আবহাওয়া অধিদপ্তরের বিশেষ সতর্ক বার্তায় বলা হয়েছে, পশ্চিম মধ্য সাগরে তৈরি হওয়া ঝড়টি ধীরগতিতে উত্তর-উত্তরপূর্ব দিকে অগ্রসর হয়ে এখন একই এলাকায় অবস্থান করছে।

তবে আজ রাতে এটি আরো ঘনীভূত হয়ে উত্তর উত্তর-পূর্ব দিকে অর্থাৎ বাংলাদেশের দিকে অগ্রসর হতে পারে বলে আবহাওয়াবিদরা আশংকা করছেন।

চার নম্বর সতর্ক সংকেত অনুযায়ী সমুদ্র বন্দরে ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাব পড়বে। বাতাসের গতিবেগ হতে পারে ৫১ থেকে ৬২ কিলোমিটার।

ঘূর্ণিঝড় কেন্দ্রের ৫৪ কিলোমিটারের মধ্যে বাতাদের একটানা গতিবেগ ঘণ্টায় ৬২ কিলোমিটার যা ঝড়ো হাওয়ার আকারে ৮৮ কিলোমিটার পর্যন্ত বাড়তে পারে।

ঘূর্ণিঝড় ‘রোয়ানু’ বৃহস্পতিবার সকাল ৯টায় চট্টগ্রাম সমুদ্রবন্দর থেকে এক হাজার ৪২৫ কিলোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিমে, কক্সবাজার সমুদ্রবন্দর থেকে এক হাজার ৩৯৫ কিলোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিমে, মংলা সমুদ্র বন্দর থেকে এক হাজার ২৪৫ কিলোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিমে এবং পায়রা সমুদ্রবন্দর থেকে এক হাজার ২৭৫ কিলোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিমে অবস্থান করছিল।

এটি আরও ঘনীভূত হয়ে উত্তর-পূর্ব দিকে অগ্রসর হতে পারে। ঘূর্ণিঝড় কেন্দ্রের ৫৪ কিলোমিটারের মধ্যে বাতাসের একটানা সর্বোচ্চ গতিবেগ ঘণ্টায় ৬২ কিলোমিটার যা দমকা বা ঝড়ো হাওয়ার আকারে ৮৮ কিলোমিটার পর্যন্ত বৃদ্ধি পাচ্ছে। ঘূর্ণিঝড় কেন্দ্রের নিকটবর্তী এলাকায় সাগর খুবই উত্তাল রয়েছে বলেও জানিয়েছে আবহাওয়া বিভাগ।

২ নম্বর দূরবর্তী হুঁশিয়ারি সংকেত মানে, দূরে গভীর সাগরে একটি ঝড় সৃষ্টি হয়েছে। সেখানে বাতাসের একটানা গতিবেগ ঘণ্টায় ৬২ থেকে ৮৮ কিলোমিটার। বন্দর এখনই ঝড়ে কবলিত হবে না, তবে বন্দর ত্যাগকারী জাহাজ পথিমধ্যে বিপদে পড়তে পারে।

উত্তর বঙ্গোপসাগর ও গভীর সাগরে অবস্থানরত সব মাছ ধরার নৌকা ও ট্রলারকে উপকূলের কাছাকাছি থাকতে বলেছে আবহাওয়া অধিদফতর। যাতে তারা স্বল্প সময়ের নির্দেশে নিরাপদ আশ্রয়ে যেতে পারে। সেই সঙ্গে জেলেদের গভীর সাগরে বিচরণ না করতে বলা হয়েছে

 

Comments

comments