পাহাড়ধসে মা-মেয়েসহ পাঁচজনের মৃত্যু

কস্কবাজারসংবাদদাতাঃ টানা ভারি বর্ষণে কক্সবাজারে পাহাড়ধসে মা-মেয়েসহ দুই পরিবারের পাঁচজনের মৃত্যু হয়েছে। আহত হয়েছে আরো পাঁচজন। গত রবিবার রাতে জেলা রেজিস্ট্রার অফিসে সংলগ্ন রাডার স্টেশনের পাহাড়টির কিছু অংশ ধসে প্রাণহানির ঘটনা ঘটে। বর্তমানে ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় রয়েছে রাডার স্টেশনটি।

কক্সবাজার শহরের দক্ষিন বাহারছড়ার পাহাড় ধসের ঘটনায় নিহত পাঁচজন হলেন শাহ আলম (৪৫), তার স্ত্রী রোকেয়া বেগম (২৫) ও জাফর আলমের মেয়ে রিনা আকতার (১৬)। এর আগে পর্যটন শ্রমিকদলের সভাপতি খায়রুল আমিনের স্ত্রী জুনু বেগম (২৮), তার মেয়ে নীহা মনি (৭) এর লাশ উদ্ধার হয়। ঘটনায় মৃত্যুর সংখ্যা দাঁড়াল পাঁচজনে। এ ছাড়া এ ঘটনায় চারজনকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করা হয়েছে। তারা হলেন- স্থানীয় জহিরুল হকের মেয়ে শারমিন আকতার (২০), খাইরুল আমিনের ছেলে মোহাম্মদ আয়াত (১২), জাফর আলমের ছেলে মোহাম্মদ শেফায়েত (২০) ও জাকের হোসেনর ছেলে নুর নবী (২৮)

রবিবার দিবাগত রাত ২টার দিকে পাহাড়ধসে দক্ষিণ বাহারছড়ার কবরস্থানপাড়ার দুটি ঘর চাপা পড়ে। এতে ঘুমন্ত অবস্থায় প্রাণ হারিয়েছে দুই পরিবারের পাঁচজন। সোমবার বিকেল ৩টা পর্যন্ত সেনাবাহিনীর ১৬ ইসিবি (প্রকৌশল ইউনিট) সদস্য, ফায়ার সার্ভিস, পুলিশ ও স্থানীয় এলাকাবাসী একটানা উদ্ধার অভিযান চালিয়ে পাঁচজনের লাশ উদ্ধার করে। আহত অবস্থায় উদ্ধার করে আরো চারজনকে

কক্সবাজার ফায়ার সার্ভিসের অপারেশন কর্মকর্তা আব্দুল মজিদ জানান, পাহাড় ধসের ঘটনার খবর পেয়ে দ্রুত কক্সবাজার ফায়ার সার্ভিসের উদ্ধার দল ছুটে গিয়ে উদ্ধার কাজ শুরু করে। তিনি বলেন, তাদের তিনটি ইউনিট এবং সেনাবাহিনীর একটি দলসহ স্থানীয়রা রাত থেকে সকাল ৮ টা পর্যন্ত সমন্বিতভাবে এ উদ্ধার কাজ চালায়। পাহাড় ধসে চারটি বসত বাড়ি মাটি চাপা পড়ার পর হতাহতের ঘটনাটি ঘটে।

Comments

comments