ব্রেকিং নিউজ

‘জয় বাংলা শ্লোগান নজরুলের সৃষ্টি‘ঃপ্রধানমন্ত্রী

63348দ্য বিডি এক্সপ্রেসঃ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন,সকল ভেদাভেদ ভুলে গিয়ে নজরুলের চেতনায় উদ্বুদ্ধ শোষণ ও বঞ্চনামুক্ত সোনার বাংলা গড়ে তোলার আহ্বান জানিয়েছেন। তিনি বলেছেন, বাংলাদেশে শোষণ বঞ্চনা মুক্ত একটি সুখী সমৃদ্ধ সমাজ প্রতিষ্ঠা করতে পারলে কবি কাজী নজরুল ইসলামের স্বপ্ন পূরণ হবে

‘জয় বাংলা’ শ্লোগানকে অনেকে হিন্দুদের শ্লোগান বলে। তবে বঙ্গবন্ধু ‘জয় বাংলা’ শ্লোগানটি নজরুলের কবিতা থেকে নিয়েছিলেন।’

প্রধানমন্ত্রী আরো বলেন, ‘কবি কাজী নজরুল ইসলাম তার কবিতার মাধ্যমে বাংলা ভাষাকে সমৃদ্ধ করেছেন। নজরুল প্রেরণা ও চেতনার কবি। তার কবিতা ও গানে অসাম্প্রদায়িকতাকে ফুটিয়ে তুলেছেন। তার চেতনাকে ধারণ করে আমাদের অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশ বিনির্মাণের পথে এগিয়ে যেতে হবে।’  

সোমবার বিকেল সাড়ে ৫টা ৩৫ মিনিটে কুমিল্লা মহানগরীরর টাউল হল মাঠে সংস্কৃতি মন্ত্রণালয় ও জেলা প্রশাসন আয়োজিত কবি কাজী নজরুল ইসলামের ১১৬তম জন্মবার্ষিকীর অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন।

শেখ হাসিনা বলেন, সাম্রাজ্যবাদ, সাম্প্রদায়িকতা ও পরাধীনতার বিরুদ্ধে নজরুলের সাহিত্য বাঙালি জাতিকে আত্মশক্তিতে উদ্বুদ্ধ হওয়ার প্রেরণা যুগিয়েছে। পরাধীন ভারতের মুক্তি সংগ্রামের অগ্রসেনানী ছিলেন তিনি। আমাদের মহান মুক্তিযুদ্ধে তাঁর কবিতা ও গান সমগ্র বাঙালি জাতিকে উদ্বুদ্ধ করেছে। আমাদের শক্তি যুগিয়েছে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, `কবি নজরুল এমন একজন কবি, যিনি সমাজের সর্বস্তরের মানুষের জন্য লিখেছেন। তিনি নারীর অধিকারের কথা লিখেছেন। তার লেখনির মাধ্যেমে কুলি, মুজুর থেকে শুরু করে সব পেশার মানুষের কথাই উঠে এসেছে।’

অশুভ শক্তির বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ থাকার জন্য সকলের প্রতি আহ্বান জানিয়ে শেখ হাসিনা বলেন, তাদের নির্মূল না করা পর্যন্ত বাংলাদেশের জনগণ লড়াই চালিয়ে যাবে। শেখ হাসিনা যত তাড়াতাড়ি সম্ভব কুমিল্লাকে বিভাগ করার প্রতিশ্রুতি পুনর্ব্যক্ত করেন।

সংস্কৃতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর এমপির সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন পরিকল্পনামন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল, রেলমন্ত্রী মো. মুজিবুল হক, মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক, কুমিল্লা-৬ আসনের সংসদ সদস্য আ ক ম বাহাউদ্দিন বাহার ও নজরুল ইনস্টিটিউটের ট্রাস্টি বোর্ডের সভাপতি অধ্যাপক এমিরিটাস রফিকুল ইসলাম। স্বাগত বক্তব্য রাখেন সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের ভারপ্রাপ্ত সচিব আক্তারী মমতাজ। নজরুল স্মারক বক্তা ছিলেন অধ্যাপক শান্তনু কায়সার। ধন্যবাদ জানান জেলা প্রশাসক হাসানুজ্জমান কল্লোল।

এর আগে তিনি ১০টি উন্নয়ন প্রকল্পের উদ্বোধন ও ৯টি প্রকল্পের ভিত্তি স্থাপন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

Comments

comments