ব্রেকিং নিউজ

মায়ানমার সীমান্তে নতুন ৩৫টি বিওপি স্হাপনের কাজ শুরু করেছে বিজিবি

বিজিবিদ্য বিডি এক্সপ্রেসঃ বাংলাদেশ মায়ানমার সীমান্তে নতুন বিওপি স্হাপনের কাজ শুরু করেছে বিজিবি। নতুন ৩৫টি বিওপি সীমান্তের ১৩১ কিলোমিটার ব্যাপি স্হাপন করা হবে। বান্দরবনের বিশাল অরক্ষিত সীমান্ত নিরাপত্তা সুরক্ষা নিশ্চিত করার লক্ষে ইতিমধ্যে মায়ানমার ও ভারত সীমান্তে বিওপি (বর্ডার অবজারবেশন পোষ্ট) স্থাপনের কাজও শুরু করা হয়েছে। মায়ানমার ও ভারতের দীর্ঘ ১৩১ কিলোমিটার অরক্ষিত সীমান্তে নতুন দুটি ব্যাটালিয়নের আওতায় ৩৫টি বিওপি স্থাপন করা হচ্ছে। অত্যন্ত দুর্গম এলাকায় এসব বিওপি স্থাপনে কাজে ব্যবহার করা হচ্ছে নিরাপত্তা বাহিনীর হেলিকাপ্টার। সম্প্রতি রুমা ও বলিপাড়া ব্যাটালিয়নে ২টি করে মোট ৪টি নতুন বিওপি স্থাপন করা হয়েছে। সীমান্ত থেকে এক কিলেমিটার দুরত্বে স্থাপিত এসব বিওপিগুলোতে বিজিবির সদস্যরা অবস্থান নিয়েছে। বিওপির জন্য প্রথমে জায়গা নির্ধারনের পর সেখানে হেলিকাপ্টারে টেষ্ট লেন্ডিং করা হচ্ছে। অত্যন্ত ঝুকিপূর্ন ও ব্যবয়বহুল এই কাজ করতে গিয়ে বিজিবিকে হিমশিম খেতে হচ্ছে বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্ঠ কর্মকর্তরা। বান্দরবান বিজিবি সেক্টরের আওতায় ১৪২ কিলোমটিার মায়ানমার ও প্রায় ৪৪ কিলোমিটার ভারত সীমান্ত রয়েছে। এর মধ্যে ১৩১ কিলোমিটার দীর্ঘ সীমান্তে কোন বিওপিই নেই। বান্দরবানের রুমা থেকে শুরু করে নাইক্ষ্যংছড়ির উপজেলার দোছড়ি সীমান্তের আর্šÍজাতিক সীমানা পিলার ৫৬ পর্যন্ত দীর্ঘ এই জায়গাটি সম্পূর্ন অরক্ষিত। এছাড়া ভারত সীমান্তের অধিকাংশ জায়গাও একই অবস্থায় রয়েছে। এসব সীমান্ত এলাকা অত্যন্ত দুর্গম ও উচু পাহাড় বেষ্ঠিত হওয়ায় দেশী বিদেশী বিভিন্ন সেন্ত্রাসী গ্রুপের তৎপরতা, মাদক ব্যবসা, অন্ত্র পাচার ও নানা ধরনের সন্ত্রাসী কর্মকান্ড হয়ে থাকে। ভারত ও মিয়ানমার থেকে সহজেই লোকজন যাতায়াত করছে এসব অরক্ষিত সীমান্ত দিয়ে। খোজ নিয়ে জানা গেছে অরক্ষিত সীমান্তের বিপরীতে ভারতের বিএসএফ এর ১টি সেক্টর ও ১টি ব্যাটালিয়ন রয়েছে। অন্যদিকে মাযানমারে ২টি সেক্টর ও ২টি ব্যাটালিয়নের আওতায় বেশ কিছু সীমান্ত ক্যাম্প রয়েছে। সীমান্তে বসবাসকারী স্থানিয় বাসিন্দা ও জনপ্রতিনিধিরা জানিয়েছেন দীর্ঘ সীমান্ত নিরাপত্তার বাহিরে থেকে যাওয়ায় সহজেই বিভিন্ন সন্ত্রাসী সংগঠন ও মাদক পাচারকারীরা তা ব্যবহার করছে। ফলে সীমান্তে বসবাসকারীরা অনেক সময় আতংকের মধ্যে থাকে। এদিকে বান্দরবানের বিশাল এই অরক্ষিত সীমান্তে নিরাপত্তা বাড়াতে ৩টি ব্যাটালিয়নে নতুন ৩৫টি বিওপি স্থাপনের কাজ শুরু করেছে বিজিবি। এগুলোর মধ্যে আলীকদম ব্যটালিয়নে ১০টি, রুমা ব্যাটাীরয়নে ১২টি ও বলিপাড়া ব্যাটালিয়নে ১৩টি বিওপি রয়েছে। এর আগে বলিপাড়া ব্যাটালিয়নের আওতায় মাত্র ২টি বিওপি ও ৭টি সিআইও (কাউন্টার ইন্সারজেন্সি অপারেশন) ক্যাম্প ছিল। বলিপাড়া ব্যাটালিয়নে নতুন ১৩টি বিওপির মধ্যে পুনিয়া পাড়া ও দলিয়ান পাড়া এবং রুমা ব্যাটালিয়নে ১২টি বিওপির মধ্যে সুরাহা পাড়া ও তালাংহুব পাড়ায় চলতি মার্চ ও গত ফেব্রয়ারী মাসে বিওপিগুলো স্থাপন করা হয়েছে। রুমা ৫৩ বিজিবির ব্যাটলিয়ন কমান্ডার লে: কর্নেল মহসিনুল হক কবির জানান দুর্গম সীমান্তে নতুন বিওপি স্থাপনের কাজ খুবই কষ্ঠসাধ্য বিষয়। উচু উচু পাহাড় ডিঙ্গিয়ে গভীর জঙ্গলে হেটে বিজিবির সদস্য বিওপির জায়গা বের করে সেখানে অবস্থান নিয়েছে। উপজেলা সদর থেকে এক একটি বিওপির দুরত্ব কমপক্ষে ২৫ থেকে ৩০ কিলোমিটার। বিওপি স্থাপনের পর সেখানে হেলিকাপ্টারে টেষ্ট লেন্ডিং এর কাজ করা হচ্ছে। পর্যায়ক্রমে অন্যান্য বিওপিগুলোও একই ভাবে স্থাপন করা হবে। বিজিবি বান্দরবান সেক্টরের সেক্টর কমান্ডার কর্নেল অলিউর রহমান জানান বিজিবি পুর্নগঠনের আওতায় বান্দরবান সীমান্তে নতুন দুটি ব্যাটালিয়নের ৩৫টি বিওপি স্থাপনের কাজ শুরু হয়েছে। দুর্গম এলাকায় বিওপি স্থাপন চ্যলেজ্ঞিং হলেও বিজিবির সদস্যরা কষ্ঠসাধ্য এই কাজ সুন্দর ভাবেই সম্পন্ন করছে। অরক্ষিত সীমান্তে বিওপিগুলো স্থাপন হয়ে গেলে সীমান্তে সন্ত্রাসী তৎপরতা, অন্ত্র মাদক পাচার বন্ধ হয়ে আসবে।

Comments

comments