ব্রেকিং নিউজ

সন্তানকে রক্ষা করুন মরণব্যাধি ক্যান্সার হতে

imagesদ্য বিডি এক্সপ্রেসঃ বেশীরভাগ শিশু যারা ক্যান্সারে ভুগে থাকে তার জন্য দায়ী থাকে জীবনযাপনের ধারা। যেমন- অভিভাবকের পেশা, প্রজননের ক্ষমতার ইতিহাস, অভিভাবকের ধূমপানের অভ্যাস, গর্ভকালীন মায়ের খাদ্যাভ্যাস, শিশুটির খাদ্যাভ্যাস ও জীবনযাপনের ধারা ইত্যাদি। কিন্তু শিশুদের ক্যান্সার রোগটি খুব সহজেই প্রতিরোধ করা সম্ভব সাধারণ কিছু পরিবর্তনে। ডাক্তারদের মতে প্রতিটি অভিভাবকেরই উচিত নিজের শিশু সন্তানটিকে ক্যান্সারের মতো ভয়াবহ রোগটির হাত থেকে রক্ষার জন্য পদক্ষেপ নেয়া।

১) খাদ্যাভ্যাস শিশুদের ছোটবেলা থেকেই অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট এবং ভিটামিন ও মিনারেল সমৃদ্ধ। তাজা ফল, শাক-সবজি খাওয়ানোর অভ্যাস গড়ে তুলতে হবে। এতে করে তাদের দেহে গড়ে উঠবে সাধারণ প্রতিরোধ ক্ষমতা।

২) পরিমিত শারীরিক পরিশ্রম একেবারে ছোটবেলা থেকেই নিজের সন্তানকে শারীরিক পরিশ্রমের ব্যাপারে আগ্রহী করে তুলুন। শারীরিক পরিশ্রম ক্যান্সারের ঝুঁকি অনেক কমিয়ে দেয়। ছোটবেলা থেকেই নিজের শিশুকে ছোটোখাটো কাজ করতে দিয়ে এবং খেলাধূলার মাত্রা বাড়িয়ে শারীরিক পরিশ্রমের ব্যাপারে আগ্রহী করে তুলুন।

৩) শিশুর ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখুন শিশুকাল থেকেই অনেক বেশি ওজন থাকা এবং ওজন নিয়ন্ত্রণের অভ্যাস না থাকা ক্যান্সারের ঝুঁকি অনেকাংশে বাড়িয়ে তোলে। শিশুটিকে তার পছন্দের ফ্যাট জাতীয় খাবার খাওয়া কমানো এবং স্বাস্থ্যকর খাবার খাওয়ার জন্য তৈরি করে তুলতে হবে। এছাড়াও শারীরিক পরিশ্রম করিয়ে হলেও ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখতে হবে।

৪) আলট্রা ভায়োলেট রশ্মি থেকে দূরে রাখুন সরাসরি সূর্যের আলোতে বেশিক্ষণ ঘোরাফেরার ব্যাপারে কড়া নজরদারি করুন।

৫) ধূমপান ও মদ্যপান অভিভাবককে নিজের এই বাজে অভ্যাসগুলো ছাড়তে হবে। নতুবা আপনার মাধ্যমেও শিশুটি আক্রান্ত হতে পারে ক্যান্সারে। এছাড়াও তারা আপনাকে দেখে শিখে নিতে পারে এই বাজে অভ্যাসগুলো। সুতরাং সাবধান।

৬) বাড়িয়ে তুলুন শিশুর রোগপ্রতিরোধ ক্ষমতা যেসকল খাবার দেহের রোগপ্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়িয়ে তোলে সে সকল খাবার প্রতিদিন পরিমিত পরিমাণে শিশুকে খেতে দিন এবং তার অভ্যাস গড়ে তুলুন।

৭) কার্ভিক্যাল ক্যান্সার ভ্যাকসিন ছেলে শিশুর বয়স ১২ এবং মেয়ে শিশুর বয়স ১১ হলে এই ভ্যাকসিনটি দিয়ে ফেলার চেষ্টা করুন। কার্ভিক্স এবং গারডাসিল নামক দুই ধরণের ভ্যাকসিন ৬ মাসে ৩ টি ডোজে পূরণ হয়।

৮) হেপাটাইটিস বি ভ্যাকসিন হেপাটাইটিস বি থেকে লিভার ক্যান্সার হয়, তাই ছোটোকালেই এই ভ্যাকসিনটি দিয়ে হেপাটাইটিস বি রোগ ও ক্যান্সারের হাত থেকে শিশুকে রক্ষা করুন।

Comments

comments