ব্রেকিং নিউজ

নোয়াখালিতে বিএনপি-পুলিশ সংঘর্ষে—নিহত-২আহত অর্ধশত

_20496_07-01-15_Wদ্য বিডি এক্সপ্রেসঃ ৭, নভেম্বর বিএনপি-পুলিশ ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া ও সংঘর্ষে নোয়াখালীর ব্যানিজ্য কেন্দ্র চৌমুহনী রনক্ষেত্রে পরিণত হয়েছে। সংঘর্ষে গুলিবিদ্ধ হয়ে রুবেল ও মহিন উদ্দিন নামের দুই জনের মৃত্যু হয়েছে। গুলিবিদ্ধসহ আহত হয়েছে অন্তত অর্ধশত। এসময় ৫টি মোটরসাইকেলে আগুন  ও ব্যাপক ভাংচুর করা হয়। ঘটনার প্রতিবাদে বৃহস্পতিবার নোয়াখালীতে সকাল সন্ধ্যা হরতাল ডেকেছে বিএনপি।

 
বুধবার বিকেল সাড়ে ৪টা থেকে ঘন্টা ব্যাপি এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। নিহত মো. মিজানুর রহমান রুবেল (৩০) জেলার সেনবাগ উপজেলার নবীপুর ইউনিয়নের শিবপুর গ্রামের তোফায়েল আহমদের ছেলে ও চৌমুহনীর হাজীপুর গ্রামের খোরশেদ আলম প্রকাশ খোরশেদ বাবুর্চির ছেলে মহিন উদ্দিন (৩০)।
 
গুলিবিদ্ধ অবস্থায় নোয়াখালী আব্দুল মালেক উকিল মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি আছেন- বেগমগঞ্জ উপজেলার দূর্গাপুরের নূর মোহাম্মদের ছেলে জাহাঙ্গীর (৩৭), বেগমগঞ্জ উপজেলার চৌমুহনীর গণিপুর গ্রামের জাহাঙ্গীর হোসেনের ছেলে সাহাব উদ্দিন (৩৫), উপজেলার দূর্গাপুর গ্রামের বেলাল হোসেনের ছেলে মাসুদের রহমান (১২) ও ঝিনাইদহ জেলার বাঁধখালি এলাকার আমজাদ হোসেনের ছেলে ও জমিদারহাট ব্যাংকের আনসার সদস্য জামাল হোসেন (৩২)।
 
প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা গেছে, বিকেলে জেলার বেগমগঞ্জ উপজেলার চৌমুহনী বাজারে অবরোধের সমর্থনে চৌমুহনী পৌরসভা বিএপির সভাপতি জহির উদ্দিন হারুন ও জেলা যুবদলের সাধারন সম্পাদক বাবু কামাঙ্কা চন্দ্র দাস’এর নেতৃত্বে চৌমুহনী বাজার থেকে একটি মিছিল বের করে বিএনপির নেতা কর্মীরা। মিছিলটি ফেনী রোডের কাচারি বাড়ী মসজিদ পর্যন্ত গিয়ে পূণঃরায় বাজারের দিকে আসার পথে রেইল লাইন এলাকায় এসে পুলিশের বাঁধার মুখে পড়ে। এতে বিএনপির নেতা কর্মীদের সাথে পুলিশের ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া ও সংঘর্ষ শুরু হয়। একপর্যায়ে বিএনপির নেতা কর্মীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে ইটপাটকেল নিক্ষেপ করলে পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে গুলি ছুঁড়ে। এতে পুলিশ, পথচারি, ব্যবসায়ীসহ অন্তত বিএনপির অর্ধশত নেতাকর্মী আহত হয়। এসময় সংঘর্ষকারীরা ৫টি মোটরসাইকেলে আগুন দেয় ও ব্যাপক ভাংচুর।  
 
জেলা যুবদলের সাধারন সম্পাদক বাবু কামাঙ্কা চন্দ্র দাস নিহত রুবেল, মহিন উদ্দিনকে যুবদলের কর্মী দাবী ও হরতালের বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, আমাদের শান্তিপূর্ণ মিছিলে পুলিশ ও ছাত্রলীগের নেতা কর্মীরা অর্তকিত হামলা চালিয়েছে। এসময় গুলিবিদ্ধ হয়ে যুবদল কর্মী রুবেল নিহত ও অর্ধশত নেতা কর্মী আহত হয়। 
 
বেগমগঞ্জ থানার ওসি আইনুল হক জানান, বিএনপির নেতাকর্মীরা মিছিল থেকে পুলিশের উপর হামলা চালিয়েছে। এতে, এসআই সাইফুল শিকদারসহ ৩জন পুলিশ আহত হয়েছে। নিহতের বিষয়টি তিনি নিশ্চিত করতে পারেননি।
 
নোয়াখালী আব্দুল মালেক উকিল মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার (আরএমও) ডা. ফরিদ উদ্দিন জানান, সন্ধ্যা সাড়ে ৭টা পর্যন্ত হাসপাতালে গুলিবিদ্ধ দুটি মৃতদেহ এসেছে।
 

Comments

comments