সোনাইমুড়ীতে বস্তা বন্দি মৃতদেহ উদ্ধার

_31255_25-11-14_dead-body-1_1605সংবাদদাতাঃ নোয়াখালীর সোনাইমুড়ী উপজেলার বজরা ইউনিয়নের ইসলামগঞ্জ বাজারের পাশ্ববর্তী বজরা বহুমূখী উচ্চ বিদ্যালয়ের পিছনের মোল্লা বাড়ী থেকে ফিরোজা বেগম নামের এক মহিলার বস্তা বন্দি মৃতদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। এ হত্যাকান্ডের সাথে জড়িত থাকার সন্দেহে উপজেলা পূর্ব চাদঁপুর গ্রামের সুকমিয়া কেরানী বাড়ীর মৃত আবুল হোসেনের ছেলে রাজু (২৭) আটক করেছে পুলিশ।

 
মঙ্গলবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে নিহতের মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়। নিহত ফিরোজা বেগম (৬৫) উপজেলার বজরা ইউনিয়নের পূর্ব চাঁদপুর গ্রামের মোল্লাবাড়ীর বজরা বহুমূখী উচ্চ বিদ্যালয়ে নাইট গার্ড সফি উল্ল্যার স্ত্রী।
স্থানীয় ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, গত সোমবার দুপুর ১২টার সময় ফিরোজা বেগমের সাথে দীর্ঘ ১ ঘন্টা কথা বলেন রাজু। কথার ২ ঘন্টা পর থেকে ফিরোজা বেগমকে আর খোঁজে পাওয়া যায়নি। ফিরোজা বেগমের সাথে সব সময় ৫-৬ ভরি স্বর্ণালংকার গলায় ও কানে থাকে। এর লোভে এই হত্যা কান্ডের ঘটনা ঘটতে পারে বলে স্থানীয়রা ধারনা করেন। 
 
অন্যদিকে ধারণা করা হচ্ছে, ফিরোজা বেগমের মেজো ছেলে প্রবাসী বাদশাহর স্ত্রী বকুল বেগমের সাথে পরক্রীয়ার কারণও হতে পারে এই হত্যা কা-। মঙ্গলবার সকাল ১১টার সময় স্কুলের পুকুরে একটি বস্তাবন্দি  লাশ দেখতে পায় স্থানীয়রা। এ খবর তাৎক্ষনিক এলাকায় ছড়িয়ে পড়লে হাজার হাজার জনতা লাশটি দেখতে উক্ত পুকরের পাড়ে ভিড় জমায়। খবর পেয়ে সোনাইমুড়ী থানা পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য নোয়াখালী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠায়। 
 
সোনাইমুড়ী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আশরাফ উল ইসলাম জানান, সকালে স্থানীয় লোকজন বিদ্যালয়ের পিছনে বস্তার মুখ বাঁধা অবস্থায় একটি বস্তা পড়ে থাকতে দেখে থানায় খবর দেয়। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছে বস্তা বন্দি অবস্থায় নিহতের মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। ধারণা করা হচ্ছে, গত রাতে কোন একসময় ওই মহিলার গলায় ওলনা পেছিয়ে হত্যার পর বস্তায় ভরে ওই স্থানে পেলে গেছে হত্যাকারীরা। লাশের শরীরে বিভিন্ন জায়গায় আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। এ বিষয়ে সোনাইমুড়ী থানায় একটি মামলা চলছে। 

Comments

comments