ব্রেকিং নিউজ

আগামী ১৫ নভেম্বর অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে নোয়াখালী জেলা আওয়ামীলীগের সম্মেলন

awaimileaguenoপ্রতিবেদকঃ দীর্ঘ ১০ বছর পর নোয়াখালী জেলা আওয়ামীলীগের সম্মেলন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে আগামী ১৫ নভেম্বর। ‘জেলা আওয়ামীলীগের একরামুল করিম চৌধুরী এমপি বিকল্প নেই’ ব্যানার বিল বোর্ডে চেয়ে গেছে জেলা শহর। জেলা শহরে এখন সাজ সাজ রব। সম্মেলনকে ঘিরে জেলার নেতৃত্বে পরিবর্তন হতে পারে এমন জল্পনা-কল্পনা এখন জেলার সর্বত্র। জেলার নেতৃত্ব পেতে নেতৃবৃন্দ তৃণমুল থেকে কেন্দ্র পর্যন্ত দৌড়ঝাঁপ ও জোর লবিং শুরু করেছে। সম্মেলনকে কেন্দ্র করে জেলা শহর ব্যাপী নানা আলোচনা সমালোচনা শুনা যাচ্ছে। জেলা আওয়ামীলীগের বর্তমান সাধারণ সম্পাদক একরামুল করিম চৌধুরী এমপি’র বলিষ্ঠ নেতৃত্বে সাংগঠনিক কর্মকান্ড সু-শৃঙ্খলভাবে পরিচালিত হয়ে আসছে। যা নোয়াখালী জেলা আওয়ামীলীগের অতীতের সকল রেকর্ডকে হার মানিয়েছে বলে তৃণমুল ও জেলা পর্যায়ের বহু নেতাকর্মী স্বীকার করেন। একরামুল করিম চৌধুরী এমপি জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হওয়ার পর থেকে দলীয় নেতাকর্মীদের মাঝে উৎসবের আমেজ ছিলো চোখে পড়ার মতো। যখনই তিনি জেলা শহরে অবস্থান করতেন এবং দলীয় কর্মসূচীতে অংশ নিতেন তখনই তৃণমুল নেতাকর্মী ও জেলা নেতৃবৃন্দের ব্যাপক উপস্থিতিতে সরগরম হয়ে উঠত দলীয় কার্যালয় তাঁর গতিশীল নেতৃত্বে বিশেষ করে সদর উপজেলা আওয়ামীলীগ, শহর আওয়ামীলীগ, কবিরহাট উপজেলা আওয়ামীলীগ, কবিরহাট পৌর আওয়ামীলীগ, সূবর্ণচর আওয়ামীলীগ এখন আগের তুলনায় অনেক শক্তিশালী সাংগঠনিক রুপ পেয়েছে। একই সাথে জেলা যুবলীগ, ছাত্রলীগ, স্বেচ্ছাসেবকলীগসহ সকল অঙ্গসহযোগী সংগঠন সক্রীয় হয়ে উঠে। জেলা আওয়ামীলীগের সর্বশেষ সম্মেলন হয়েছেন ২০০৪ সালের ১৭ জুলাই। তখন সভাপতি ছিলেন প্রাক্তন এমপি অধ্যাপক মোহাম্মদ হানিফ ও সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হন একরামুল করিম চৌধুরী এমপি। এরপর দলীয় কোন্দলের একপর্যায়ে সাধারণ সম্পাদক জেলা কমিটির সভা ডেকে সভাপতি পদ থেকে অধ্যাপক মোহাম্মদ হানিফকে অব্যহতি দেন। এরপর থেকে গত ৪ বছর থেকে ভারপ্রাপ্ত সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন অধ্যক্ষ এ এইচ এম খায়রুল আনাম চৌধুরী সেলিম। এবার তিনি সভাপতি প্রার্থী তালিকায় রয়েছেন। সভাপতি পদে ডাকসুর সাবেক নেতা বর্তমান জেলা আওয়ামীলীগের সহসভাপতি শিল্পপতি এটিএম এনায়েত উল্যাহ ও সাবেক এমপি জেলা আওয়ামীলীগের সহসভাপতি মোহাম্মদ আলীর নামও আলোচনা এসেছে।
সম্মেলনকে সামনে রেখে তৃণমুল নেতাকর্মীদের অনেকের সাথে আলাপ করলে তারা মনের দিক থেকে একরামুল করিম চৌধুরীকে এবারে সম্মেলনে সভাপতি পদে দেখতে চান বলে মত প্রকাশ করেছেন। এই ক্ষেত্রে একরামুল করিম চৌধুরী সভাপতি প্রার্থী হলে সাধারণ সম্পাদক পদে আলহাজ্ব মামুনুর রশিদ কিরণসহ একাধিক প্রার্থী এগিয়ে আসতে পারেন। ভেতরে ভেতরে অনেক নেতাকর্মী কেন্দ্রীয় নেতাদের গ্রীণ সিগন্যাল পেয়ে তৃণমুলে এসে নিজেদের অবস্থান দৃঢ় করতে মাঠ গোছাতে ব্যস্ত রয়েছেন। তবে সাধারণ সম্পাদকের তালিকায় নতুন মুখ বেগমগঞ্জ উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ও নোয়াখালী-৩ আসনের সংসদ সদস্য শিল্পপতি আলহাজ্ব মামুনুর রশীদ কিরণসহ কয়েকজনের নাম শোনা গেলেও এখানো বর্তমান সাধারণ সম্পাদক ও নোয়াখালী-৪ আসনের সংসদ সদস্য একরামুল করিম চৌধুরীর বিকল্প প্রাথী হতে চাচ্ছেননা অনেকেই। যদিও আলহাজ্ব একরামুল করিম চৌধুরী এমপি এখনো নিজ থেকে এবিষয়ে কোনো কথা বলেননি।
নোয়াখালী-৩ (বেগমগঞ্জ) আসনের সংসদ সদস্য ও বেগমগঞ্জ উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক মামুনুর রশিদ কিরণ সাধারণ সম্পাদক পদে একজন প্রার্থী হিসেবে তৃণমুল নেতাকর্মীদের সাথে আলাপ-আলোচনা চালিয়ে যাচ্ছেন। মামুনুর রশিদ কিরণ বেগমগঞ্জ আসনের এমপি হলেও তিনি একজন শিল্পপতি। তাঁর দান-অনুদানের ছোঁয়া সমগ্র জেলার শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, ধর্মীয় ও সামাজিক প্রতিষ্ঠানে রয়েছে। দলীয় নেতা-কর্মীদের প্রতি তাঁর উদারহস্ত এবং সাংগঠনিকভাবে সকলকে সহযোগীতার মাধ্যমে তিনি একজন জনপ্রিয় নেতা হিসেবে নিজেকে ঠাঁই করে নিয়েছেন। তিনি জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হলে বৃহত্তর পরিসরে দলীয় কর্মকান্ড তথা দলের নেতা-কর্মীদেরকে আরো সুসংগঠিত করার প্রয়াস পাবেন এবং জননেত্রী শেখ হাসিনার হাত আরো শক্তিশালী হবে এমনটাই বলছেন দলের ত্যাগী নেতাকর্মীরা। জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক পদে তাঁকে প্রার্থী হতে তৃণমুল নেতাকর্মীদের প্রচন্ড চাপ রয়েছে বলে মামুনুর রশিদ কিরণ এমপি জানান। তৃণমুল নেতাকর্মীরা পরিবর্তন চায়। এটাই স্বাভাবিক। জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আবু তাহের বলেন, নোয়াখালীতে আওয়ামী লীগকে আরো সু-সংগঠিত করতে যোগ্য নেতৃত্বের প্রয়োজন। আশা করি কেন্দ্রীয় নেতারা যোগ্যতাকে প্রাধান্য দিবেন। জেলা আওয়ামীলীগের সম্মেলনে নবীণ-প্রবীণের সংমিশ্রণে আগামীদিনের জেলা আওয়ামীলীগের কমিটি হলে দলীয় কর্মকান্ড আরো গতিশীল হবে। শক্তিশালী হবে আওয়ামীলীগসহ সকল অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠন।  তথ্যসূত্র : স.নো.

Comments

comments